বৃহস্পতিবার| ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০| ৭ফাল্গুন১৪২৬

টকিজ

আবার নীলিমায় ‘ক্রাচের কর্নেল’...

ফিচার প্রতিবেদক

দেশের নাট্যচর্চায় বিশেষ অবদান রয়েছে রাজধানীর বেইলি রোডের মহিলা সমিতির . নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনের নাট্যাঙ্গনের গুরুত্বপূর্ণ মিলনায়তনেই পুনরায় মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে নাট্য সংগঠন বটতলার আলোচিত নাটক ক্রাচের কর্নেল  ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে প্রথমবারের মতো মঞ্চস্থ হয় নাটকটি প্রায় চার বছর পর ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৭টায় এখানেই নাটকটির ৫০তম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হবে কথাসাহিত্যিক শাহাদুজ্জামানের উপন্যাস থেকে নাটকটির নাট্যরূপ দিয়েছেন সৌম্য সরকার সামিনা লুত্ফা নিত্রা নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন মোহাম্মদ আলী হায়দার এটি বটতলার নবম প্রযোজিত নাটক নাট্য সংগঠনটির ভাষ্য, কর্নেল তাহেরকে উপজীব্য করে নাটকের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে ইতিহাসের নানা অধ্যায়

ক্রাচের কর্নেল-এর কাহিনীতে একটি নাটকের দল দুঃখ, কান্না, সাহসের গল্প থেকে বলতে শুরু করে এক কর্নেলের গল্প যে গল্প এক বা একাধিক স্বপ্নবাজ, পাগল, মৃত্যুর নেশায় পাওয়া মানুষদের গল্প একটি স্থান কালের গল্প হয়েও যেটি কেবল একটি স্থান কালের গল্পমাত্র নয় নাটকটির গল্পে দেখা যায়, ইতিহাস যেহেতু ক্ষমতাবান মানুষদের হাতে রচিত হয়, সেহেতু ইতিহাসের ব্যাখ্যাও বদল হয়! নাটকের দলটি তাই তাদের গল্প তাদের মতো করে বেছে নেয় এবং বোঝার চেষ্টা করে নিজেদের মতো করে কিন্তু দলটি যেহেতু সমকালের অংশ, তাই সংকটমুক্ত নয় তাদের সংকট তারা এখনো নায়ক খুঁজে পায়নি তারা আবার এমন এক দেশের গল্প বলে, যে দেশটিও নায়ক খুঁজে পায়নি

মূলত ক্রাচের কর্নেল-এর মধ্য দিয়ে কর্নেল তাহেরের জীবনের প্রস্তুতি, প্রেম, সংগ্রাম মৃত্যুর গল্প বলতে গিয়ে নাটকের দলটি যখন বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ-পূর্ব পরবর্তী বিস্তৃত ঘটনারাশির কথা বলতে শুরু করে; তখনই দেখা দেয় সংকট! শুরু হয় আরেক ভিন্ন ইতিহাসের গোড়াপত্তন

নাটকটি নিয়ে নির্দেশকদের ভাষ্য, ক্রাচের কর্নেল ইতিহাসের একটি ব্যাখ্যা দাঁড় করাতে চেয়েছে, কিন্তু তা মোটেও ধ্রুব ব্যাখ্যা নয় আমাদের ব্যাখ্যা সেই ব্যাখার দায়ও আমাদেরই



কথাসাহিত্যিক শাহাদুজ্জামানের প্রামাণ্য উপন্যাস ক্রাচের কর্নেল-এর অ্যাখ্যানকে আশ্রয় করে নাটক ক্রাচের কর্নেল-এর কাহিনী গড়ে উঠেছে উপন্যাসটি নিয়ে শাহাদুজ্জামান বলেন, ‘‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পূর্বাপর নাটকীয় কালপর্বকে উপজীব্য করে লেখা প্রামাণ্য উপন্যাস ক্রাচের কর্নেল গ্রন্থে আমি বাংলাদেশের রাজনীতির সেই ক্রান্তিকালটি বোঝানোর চেষ্টা করেছি কর্নেল তাহের নামের একাধারে অমীমাংসিত, বিতর্কিত এবং বর্ণাঢ্য চরিত্রের মাধ্যমে’’ তিনি আরো যোগ করেন, উনিশশ ষাট সত্তরের দশকের পৃথিবী যখন পুঁজিবাদী এবং সমাজতান্ত্রিক দুটো শিবিরে বিভক্ত, তখন তৃতীয় বিশ্বের অগণিত তরুণ-তরুণী একটি বৈষম্যহীন সমাজতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠার স্বপ্নে ছিল বিভোর কর্নেল তাহের সে প্রজন্মের তরুণ তিনি একটি বিশেষ ধারার বিপ্লবী রাজনীতির কৌশল হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন সেনাবাহিনীতে, তারপর দুঃসাহসিক এক অভিযানের মধ্য দিয়ে পশ্চিম পাকিস্তানের ক্যান্টনমেন্ট থেকে পালিয়ে যোগ দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধে, যুদ্ধক্ষেত্রের দুর্ধর্ষ এক অপারেশনে হারিয়েছেন একটা পা, ক্রাচে ভর দিয়ে তারপর নেতৃত্ব দিয়েছেন ব্যতিক্রমী এক সেপাই অভ্যুত্থানের; অবশেষে শিকার হয়েছেন উপমহাদেশের ঘৃণিত এক রাজনৈতিক ফাঁসির

শাহাদুজ্জামানের বক্তব্য, একটা আদর্শকে তাড়া করতে গিয়ে একজন মানুষ যতটুকু দিতে পারে, দিয়েছেন সবটুকুই যদিও সে আদর্শ প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থ হয়েছেন তিনি কিন্তু তথাকথিত বহু সাফল্যের চেয়ে কোনো কোনো ব্যর্থতাও হয়ে উঠতে পারে উজ্জ্বল, দাবি করে আমাদের মনোযোগ যদিও বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসচর্চায় কর্নেল তাহের সচরাচর থাকেন উহ্য, উপেক্ষিত অথবা পরস্পরবিরোধী বক্তব্যে ধোঁয়াচ্ছন্ন একজন লেখক হিসেবে এবং বাংলাদেশের রাজনীতির একজন কৌতূহলী পর্যবেক্ষক হিসেবে ব্যতিক্রমী মানুষটিকে নিয়ে একটি সাহিত্যিক মোকাবেলার ফলশ্রুতি ক্রাচের কর্নেল

ক্রাচের কর্নেল প্রামাণ্য উপন্যাসে ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট, অগণিত চরিত্র, জটিল রাজনৈতিক ঘটনাবলির বয়ান আছে, এজন্য রকম একটি বিষয়কে মঞ্চের ভাষায় তুলে আনার মতো দুঃসাধ্য কাজ করায় শাহাদুজ্জামান নাট্যদল বটতলার প্রশংসা করেন

নাটকটি নিয়ে মঞ্চে উঠবেন ইমরান খান মুন্না, কাজী রোকসানা রুমা, সামিনা লুত্ফা নিত্রা, তৌফিক হাসান ভুঁইয়া, বাকীরুল ইসলাম, পংকজ মজুমদার, ইভান রিয়াজ, . সাঈদ, মনজুরুল ইসলাম রনি, গোলাম মাহবুব মাসুম, নাফিউল ইসলাম নাটকটির পোশাক পরিকল্পনা করেছেন হুমায়রা আক্তার; কোরিওগ্রাফি সামিনা লুত্ফা নিত্রার

 


এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন