বৃহস্পতিবার| এপ্রিল ০২, ২০২০| ১৮চৈত্র১৪২৬

শেয়ারবাজার

ডিএসইতে গত সপ্তাহের লেনদেন

মৌলভিত্তির কোম্পানির প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ভালো ও মৌলভিত্তির কোম্পানির প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে। এ কারণে ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ারদরও বেড়েছে। গত সপ্তাহে ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৩ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে দরবৃদ্ধি ও লেনদেনের তালিকায়ও প্রাধান্য রয়েছে ক্যাটাগরির শেয়ারের।

ভালো ও মৌলভিত্তির কোম্পানিগুলো নিয়ে গড়া ক্যাটাগরির কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর বৃদ্ধিকে স্বাভাবিক হিসেবে দেখছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, অতীতে দুর্বল কোম্পানিতে বিনিয়োগ করে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন বিনিয়োগকারীরা। এছাড়া ব্যক্তিশ্রেণীর বিনিয়োগকারীরাও এখন ঝুঁকিপূর্ণ শেয়ার সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন। তাই তারা বুঝে-শুনে ভালো ও মৌলভিত্তির কোম্পানিতে বিনিয়োগের দিকে বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, গত পাঁচ কার্যদিবসে ক্যাটাগরির শেয়ারের মোট লেনদেন দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮৪৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা, যা আগের সপ্তাহে ছিল ১ হাজার ৭৯১ কোটি ৭২ লাখ টাকা। এ হিসেবে সর্বশেষ সপ্তাহে ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৫৪ কোটি ৫৮ লাখ টাকা বা ৩ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। এদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট যে পরিমাণ লেনদেন হয়েছে, তার ৮৩ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ দখলে রেখেছে ক্যাটাগরির শেয়ার।

বর্তমানে ডিএসইতে ক্যাটাগরিতে ২৫৭টি কোম্পানি রয়েছে। এর মধ্যে ফিনিক্স ফিন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, বিডি অটোকারস, মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্স, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং, অ্যাডভেন্ট ফার্মাসিউটিক্যালস, জেমিনি সি ফুড, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি, সামিট পাওয়ার, গ্রামীণফোন, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালের শেয়ারের দাম গত সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। গত সপ্তাহে লেনদেনের দিক থেকেও শীর্ষে ছিল কোম্পানিগুলোর শেয়ার।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে দরবৃদ্ধির শীর্ষে থাকা ১০টি কোম্পানির সাতটিই ক্যাটাগরির। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দর বেড়েছে ফিনিক্স ফিন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ২৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ বেড়েছে।

এদিকে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ ১০ কোম্পানির নয়টি ছিল ক্যাটাগরির। গত সপ্তাহে লেনদেনে সবার উপরে ছিল লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির ১৫৬ কোটি ৪৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকায় মোট ৩ কোটি ২৩ লাখ ১৬ হাজার ৬৪৫টি শেয়ার লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ৭ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন