রবিবার | মে ৩১, ২০২০ | ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ঈপ্সনীয়

মন মাতানো সৌরভে ভালোবাসা দিবস

ফিচার ডেস্ক

সুগন্ধি অনুভবের বিষয়। দেখা না গেলেও এটি নিজ উপস্থিতি ঠিকই জানান দেয়। সুগন্ধির রহস্য এখানেই। প্রাচীন যুগ থেকেই সুগন্ধি ব্যবহারের চল রয়েছে। আগে হয়তো হাতের নাগালে এসব পাওয়া যেত না। তবুও মানুষ সুগন্ধি ব্যবহার করত। সময় বদলেছে। এখন হাত বাড়ালেই ভিন্ন ভিন্ন সৌরভের সুগন্ধি পেয়ে যাই আমরা।

সুগন্ধি সবসময় আভিজাত্যের প্রতীক। জমকালো পোশাক পরিধানের পর একটুখানি সুগন্ধি না হলে কেমন হয়? তবে হ্যাঁ, সুগন্ধি ব্যবহারে অবশ্যই যত্নশীল হতে হয়। কারণ সুগন্ধি আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে সঙ্গে রুচিবোধকেও সবার সামনে তুলে ধরে। কাজেই সুগন্ধি ব্যবহারে সতর্ক থাকা প্রয়োজন। যেমন-তেমন সুগন্ধি শরীরে না লাগানোই ভালো। এর যেমন ক্ষতিকর দিক রয়েছে, তেমনি নিম্নমানের সুগন্ধি ব্যবহারে আপনি পড়তে পারেন অস্বস্তিকর পরিবেশে।

বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে ব্যবহার করুন ব্র্যান্ডের সুগন্ধি। আর কেনার আগে অবশ্যই ঘ্রাণ নিয়ে নিতে হবে। অনেক শৌখিন মানুষ আছেন যারা শুধু সুগন্ধি মাখতেই পছন্দ করেন না, বরং নানা ব্র্যান্ডের সুগন্ধি নিজের সংগ্রহেও রাখেন। সুগন্ধির জন্য গুয়েরলেইন একটি পরিচিত নাম। প্রতিষ্ঠানটি দীর্ঘসময় ধরে বিলাসবহুল স্নিগ্ধ ঘ্রাণযুক্ত সুগন্ধি সরবরাহ করে আসছে।

গুয়েরলেইনের কাছে সুগন্ধিপ্রেমীদের প্রাধান্য সবসময়ই রয়েছে। সামনে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। সুগন্ধিপ্রেমীদের কাছে দিনটি যেন আরেকটু সৌরভময় হয়, তাই গুয়েরলেইন বাজারে নিয়ে এসেছে এলহিউর ব্লাঞ্চের লিমিটেড সংস্করণের সুগন্ধি। ১৯১২ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত এলহিউর ব্লাঞ্চ একটি পরিচিত নাম আভিজাত্যের প্রতীক। সৌরভে সুশোভিত করে নিজেকে তুলে ধরতে আপনি সুগন্ধির স্পর্শ নিতেই পারেন। নারী-পুরুষসবার জন্যই গুয়েরলেইন সুগন্ধি তৈরি করেছে। সীমিত সংস্করণের এলহিউর ব্লাঞ্চ সুগন্ধিটি মন মাতানো, শান্ত   স্নিগ্ধ প্রকৃতির।

সুগন্ধি তৈরিতে ব্যবহূত হয়েছে নানা উপাদান। পারফিউমার ডেলফাইন জেল্ক একটি আইরিশ নোটের সঙ্গে বাতাস, দুধ কস্তুরীর সমন্বয়ে তৈরি করেছে এলহিউর ব্লাঞ্চ। এর সঙ্গে আরেকটু নতুন মাত্রা যোগ করেছেন পারফিউমার থেরি ওয়াসার। সুগন্ধি তৈরিতে তিনি সাদা রঙের ফুল, দুধ, আইরিস, সাদা কস্তুরী সাদা অ্যাম্বার যুক্ত করেন।

এলহিউর ব্লাঞ্চ সুগন্ধিটি কেবল ঘ্রাণের দিক থেকেই নয়, সুগন্ধির শিশিটিও দেখতে চমত্কার। নতুন বিলাসবহুল সুগন্ধির শিশিটি পুরো সাদা আবরণে ঢাকা। সঙ্গে রয়েছে ম্যাট রঙ। শিশির শরীর অনেকটা মৌমাছি আকৃতির। শিশিটি ফ্রান্সের ভিজ্যুয়াল আর্টিস্ট ক্লাউডিন ড্রির সৃজনশীল জগেক প্রতিফলিত করে। ঘ্রাণ তো পরের কথা, সুগন্ধির বহিরাবরণ দেখেই অনেকের মন পোড়াবে কেনার জন্য।

তবে দামি বিলাসবহুল সুগন্ধিটি খুব বেশি পাওয়া যাবে না। বাজারে মাত্র হাজার ৮৮৮ পিস পাওয়া যাবে। সুগন্ধির বোতলে ১২৫ মিলি ইও ডি পারফাম রয়েছে, সঙ্গে রয়েছে ২০ মিলি ট্রাভেল স্প্রে। ব্র্যান্ডের এলহিউর ব্লাঞ্চ সুগন্ধির একটি শিশির দাম পড়বে ৬৬৫ ডলার। সীমিত সংস্করণের সুগন্ধি নিতে চাইলে, দেরি না করে এক্ষুনি কিনে ফেলুন। সীমিত বাজারে পরে না- পেতে পারেন।

 

সূত্র: লাক্সারি লঞ্চেস

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন