রবিবার | সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭

দেশের খবর

বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়ক

১২ কিলোমিটার সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণের পরিকল্পনা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি বরিশাল

বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কের নথুল্লাবাদ থেকে রূপাতলী পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণের পরিকল্পনা করছে সড়ক জনপথ বিভাগ (সওজ) এছাড়া গড়িয়ারপাড়-কুদঘাটা-কালিজিরা সড়কে তৈরি করা হবে বাইপাস সড়ক। এরই মধ্যে এসব পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন সওজ কর্মকর্তারা।

সওজ সূত্রে জানা গেছে, ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে বরিশালের প্রত্যেকটি সড়ক সংস্কার প্রশস্তকরণের পরিকল্পনা করেছে সওজ। এরই মধ্যে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজও শুরু করা হয়েছে।

সূত্রটি জানায়, বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কের নথুল্লাবাদ থেকে রূপাতলী পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়ক ব্যবহার করা হবে আঞ্চলিক ক্ষুদ্র থেকে মাঝারি আকৃতির যানবাহনের জন্য। আর বাইপাস ব্যবহার করা হবে শিল্প-কারখানার কাঁচামাল বহনকারী ভারী যানবাহন চলাচলের জন্য। এতে সড়কের স্থায়িত্ব যেমন বজায় থাকবে, তেমনি যানজটের কোনো সম্ভাবনা থাকবে না।

প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নগরীর মধ্যে থাকা আমতলা মোড় থেকে নথুল্লাবাদ পর্যন্ত চার কিলোমিটার সড়ক ২০১০ সালে তত্কালীন মেয়র শওকত হোসেন মাঝখানে ডিভাইডার দিয়ে চার লেন করেন। কিন্তু সড়কে থাকা সেতু কালভার্টগুলো দুই লেনে থেকে যায়। এতে চার লেন সড়কের সুফল পাওয়া যায়নি। চলতি মাসেই আমতলা মোড় এলাকা প্রশস্ত করতে সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের কাছে জমির চাহিদা প্রস্তাব করা হবে। পাশাপাশি ওই অংশের সড়কের নিজস্ব জমিও উদ্ধার করা হবে। একই সঙ্গে কালভার্টগুলো চার লেনের উপযুক্ত করার পরিকল্পনাও রয়েছে সওজের। কাশিপুর থেকে রূপাতলী পর্যন্ত সড়কের পাশে ৯৫৭টি অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়া মূল

সড়কের পাশে কতটুকু জমি রয়েছে সওজ বিভাগের, তা নির্ধারণ করে অভিযানে নামারও পরিকল্পনা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বরিশাল জেলার প্রবেশদ্বার ভুরঘাটা থেকে কাশিপুর রূপাতলী থেকে লেবুখালী পর্যন্ত সড়কে অবৈধ স্থাপনা শনাক্তের কাজও এগিয়ে চলেছে।

সওজের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, আগামী জুনের মাঝামাঝি সওজ বিভাগ থেকে বাইপাস সড়ক নির্মাণকাজ শুরু হবে। নিয়ে একাধিক বৈঠকও করা হয়েছে।

বরিশাল সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ খান বলেন, এখন দুটি ভাগে কাজ শুরু হয়েছে। প্রথমত যেসব সড়ক রয়েছে, তা আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনে সংস্কার করা। কাজের অংশ হিসেবে থেকে ১০ দিনের মধ্যে ভুরঘাটা থেকে লেবুখালী মহাসড়কের ১০টি স্পিড ব্রেকার উচ্ছেদ করা হবে। কারণ মহাসড়কে স্পিড ব্রেকার রাখার কোনো নিয়ম নেই। এর পরপরই অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু করা হবে। এছাড়া চার লেন বাইপাস নির্মাণের জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করা হয়েছে। বাইপাসের জন্য ডিপিপি দাখিল করা হচ্ছে।

নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ খান বলেন, আগামী সাতদিনের মধ্যে কোন স্থান থেকে বাইপাস সড়ক যাবে, তা নির্ধারণ করার জন্য ভূমি জরিপের কাজ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সড়কের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। পরিকল্পনাটি বাস্তবায়ন করা হলে বরিশালের চেহারে পাল্টে যাবে বলে মনে করছেন সওজের প্রকৌশলী।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন