রবিবার | নভেম্বর ২৯, ২০২০ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

প্রথম পাতা

বিএসএফের গুলিতে তিন বাংলাদেশীর মৃত্যুর অভিযোগ

বণিক বার্তা প্রতিনিধি নওগাঁ

নওগাঁর পোরশার হাঁপানিয়া সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে তিন বাংলাদেশী গরু ব্যবসায়ী নিহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে একজনের মৃত্যুর বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেলেও মরদেহ পাওয়া না যাওয়ায় অন্য দুজনের মৃত্যুর বিষয়ে নিশ্চিত করতে পারেনি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) গতকাল ভোরে উপজেলার দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকার ২৩১/১০(এস) মেইন পিলারের নীলমারী বিল এলাকায় ভারতের ক্যাদারীপাড়া ক্যাম্পের বিএসএফ জওয়ানদের গুলিতে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিজিবি পক্ষ থেকে একজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম মফিজুল ইসলাম (৩৫)। তিনি দীঘিপাড়া গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে।

এছাড়া অন্য যে দুজনের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে তারা হলেন পোরশা উপজেলার বিষ্ণুপুর বিজলীপাড়ার রণজিত কুমার (২৫) ও কাঁটাপুকুরের মৃত জিল্লুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেন (৩২)।

বিজিবি কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এ ঘটনার পর দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের জন্য বিএসএফকে আহ্বান জানানো হয়েছে। যেহেতু একজনের মরদেহ দেখা গেছে, তাই এখন পর্যন্ত একজন বাংলাদেশী নিহত হয়েছে বলে ধরা হচ্ছে। বিএসএফের সঙ্গে বৈঠকের আগে অন্য দুজন আটক না গুলিতে নিহত, তা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। তবে পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে এ দুজনের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় নীতপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার এসতাব আলী।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার রাতে বেশ কয়েকজন যুবক গরু নিতে অবৈধভাবে ভারত সীমানার অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে। চোরাচালানির গরু নিয়ে ফেরার পথে গতকাল ভোরে পোরশার দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকার ২৩১/১০(এস) মেইন পিলারের নীলমারী বিল এলাকায় ভারতের ক্যাদারীপাড়া ক্যাম্পের বিএসএফ জওয়ানরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালান। এ সময় অন্যরা পালিয়ে আসতে সক্ষম হলেও তিন বাংলাদেশী যুবক গুলিবিদ্ধ হন। গুলিতে নিহত গরু ব্যবসায়ী মফিজুল ইসলামের মরদেহ বাংলাদেশ সীমান্তের প্রায় ২০০ গজ অভ্যন্তরে পড়ে ছিল। অন্য দুই গরু ব্যবসায়ী রণজিত কুমার ও কামাল হোসেনের মরদেহ ভারতের ৮০০ গজ অভ্যন্তরে পড়ে ছিল। 

মরদেহ দুটি পরে বিএসএফ সদস্যরা নিয়ে যান।

এ বিষয়ে ১৬ বিজিবি হাঁপানিয়া ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার মোখলেছুর রহমান জানান, তিনজন বাংলাদেশী গুলিবিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে তাদের একজন মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত। অন্য দুজন ভারতের অভ্যন্তরে মারা গেছেন কিনা, সে বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন