শনিবার| ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০| ১৫ফাল্গুন১৪২৬

খবর

উন্নয়ন নয় আন্দোলনের জন্য নির্বাচনে বিএনপি —তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ঢাকাবাসীর উন্নয়নের জন্য নয়, তাদের নেত্রীকে মুক্ত করার আন্দোলনের অংশ হিসেবে অংশগ্রহণ করছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস। তিনি বলেন, বিএনপির প্রার্থী নির্বাচনে ঢাকার উন্নয়নের জন্য নয়, ঢাকাবাসীর কষ্ট লাঘবের জন্য নয়, উন্নত ঢাকা উপহার দেয়ার জন্য নয় বরং তারা বারবার বলছে এটা তাদের একটি আন্দোলনের অংশ, তাদের নেত্রীকে মুক্ত করার আন্দোলনের অংশ হিসেবে এটি দেখছে। আমি মনে করি না ঢাকাবাসী সেটাকে গ্রহণ করবে।

গতকাল রাজধানীর খিলগাঁও রেলগেট এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগে তিনি এসব কথা বলেন।

তাপস বলেন, আমরা যে উন্নয়নের রূপরেখা দিয়েছি, আমি বিশ্বাস করি ঢাকাবাসী সেটা সাদরে গ্রহণ করেছে। এভাবে উন্নয়নের রূপরেখা কেউ নির্বাচনেও দেয়নি, এর আগেও কেউ দেয়নি। সুনির্দিষ্ট রূপরেখার আওতায় উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে আমরা বিস্তারিত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রকাশ করব। এখন পর্যন্ত আমরা যতটুকু ঢাকাবাসীর কাছে তুলে ধরেছি, ঢাকাবাসী সেটা স্বতঃস্ফূর্তভাবে গ্রহণ করেছে। আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার প্রণয়নের কার্যক্রম চলছে। আমাদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি ইশতেহার নিয়ে কাজ করছে। আমরা আশা করছি, আর দু-একদিনের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ ইশতেহার ঢাকাবাসীর কাছে প্রকাশ করতে পারব।

ইভিএম নিয়ে বিএনপির আন্দোলনের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলেন, এখন নতুন করে ইভিএমের ব্যাপারে তারা (বিএনপি) কথা বলছে। আমি তো ঢাকার জনগণের মধ্যে ব্যাপারে কোনো শঙ্কা লক্ষ করিনি। বরং আমি মনে করি, আধুনিক প্রযুুক্তি সবাই সাদরে গ্রহণ করেছে। একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের মাধ্যমে, প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনে ঢাকাবাসী তাদের সেবক নির্বাচিত করবে।

হকার মুক্ত ঢাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে একটি মহাপরিকল্পনার আওতায় আমাদের ঢাকাকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, সচল হিসেবে গড়ে তুলব।

সেখানে রাস্তা হোক বা ফুটপাত হোক, সেগুলো অবমুক্ত করার আমরা ব্যবস্থা নেব। তবে এটা পর্যায়ক্রমে। কারণ আমাদের যারা ফুটপাতে হকারের ব্যবসা করে তারা আসলে শোষিত। তাদের শোষণ করা হয় বিভিন্ন মিটিংম্যানের আওতায়। আমরা তাদের জন্য কর্মসংস্থান পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করব। এর আগে হকারদের জন্য পুনর্বাসনের কথা বললেও কার্যকর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। আমরা অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে রাস্তা নির্ধারণ করে তথ্যভাণ্ডার তৈরি করে পর্যায়ক্রমে হকারদের পুনর্বাসন করব।

সময় তার সঙ্গে যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিলসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন