মঙ্গলবার| ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০| ৫ফাল্গুন১৪২৬

আন্তর্জাতিক খবর

রাজপদ ছাড়ায় যা হারাবেন হ্যারি-মেগান দম্পতি

বণিক বার্তা অনলাইন

আনুষ্ঠানিকভাবে রাজপদ ছাড়লেন প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেল। গতকাল শনিবার বাকিংহাম প্যালেস থেকে এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, প্রিন্স হ্যারি ও মেগান এখন থেকে রাজপরিবারের কার্যকরী সদস্য নন এবং সম্প্রতি নিজেদের বসবাসের জন্য রাজ তহবিলের টাকায় যে ফ্রগমোর কটেজটি বানিয়েছিলেন সেই ২৪ লাখ পাউন্ড বা ৩০ লাখ ডলার তারা ফেরত দেবেন। কারণ এটি ব্রিটিশ করদাতাদের টাকা। চুক্তি অনুযায়ী এ দম্পতি রাজকীয় সব দায় দায়িত্ব থেকে বিরত থাকবেন। পাশাপাশি সামরিক পদও ছাড়বেন। তারা আর রাজ তহবিলের টাকা বরাদ্দ পাবেন না এবং রানীর প্রতিনিধিত্ব করবেন না। এক বিবৃতিতে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ বলেছেন, তারা এ দম্পতির ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করছেন। 

রানী বিবৃতিতে বলেছেন, হ্যারি, মেগান ও আর্চি সব সময়ই আমার পরিবারের স্নেহের সদস্য হয়েই থাকবে। গত দুই বছর তারা যে কঠোর সমালোচনা ও প্রতিকূল অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছে তা আমি মানি। তাদের অধিকতর স্বাধীন জীবনের জন্য আমার শুভ কামনা থাকবে। 

রাজ পরিবারের একটি সূত্র জানিয়েছে, এর মাধ্যমে হ্যারি সামরিক বাহিনীতে তার তিনটি অগ্রাধিকার হারাবেন। কমওয়েলথের ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডরের পদও থাকবে না। এ দম্পতি এখন তাদের বেশিরভাগ সময় কাটাবেন উত্তর আমেরিকায়। 

ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি এবং ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল আর হিজ/হার রয়্যাল হাইনেস উপাধি ব্যবহার করতে পারবেন না। আগামী বসন্ত থেকে এ চুক্তি কার্যকর হবে।

প্রিন্স হ্যারির মা ডায়ানাও রাজ উপাধি ছেড়েছিলেন। প্রিন্স চার্লসের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর প্রিন্সেস অব ওয়েলশ ডায়ানা আর কখনোই হার রয়্যাল হাইনেস বা সংক্ষেপে এইচআরএইচ পদবি ব্যবহার করেননি।

চলতি মাসে রাজপরিবারের সবাইকে হতবাক করে দিয়ে রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দেন হ্যারি ও মেগান। পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠদের সঙ্গে আলোচনা না করেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে মেগান-হ্যারি এক বিবৃতিতে জানান, অনেক ভেবেচিন্তেই তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিছু সময় তারা ব্রিটেন, বাকি সময় উত্তর আমেরিকায় কাটাবেন। তাদের এ সিদ্ধান্তে রীতিমতো হতাশ ও আহত হয় রাজপরিবার।  এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে গত সোমবার হ্যারির সঙ্গে আলোচনায় বসেন রাজপরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যরা। মেগানেরও এ বৈঠকে অংশ নেয়ার কথা জানা গিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে ডাকা হয়নি। সূত্র: বিবিসি ও সিএনএন

আরো পড়ুন: প্রাসাদ ছেড়ে কানাডাই কেন হ্যারি-মেগানের পছন্দ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন