বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | ৯ আশ্বিন ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

বেজোসের সঙ্গে দেখা করেননি মোদি

বিশাল জনগোষ্ঠীর দেশ ভারতে প্রায় অর্ধযুগ ধরে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেফ বেজোসের প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন। তবে তাদের কার্যক্রম নিয়ে মোটেই সন্তুষ্ট নন ভারতের খুচরা ব্যবসায়ীরা। দীর্ঘদিন ধরেই অ্যামাজনসহ বৈশ্বিক ইকমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে অভিযোগ জানিয়ে আসছেন তারা। তীব্র বিরোধিতার মুখেই ভারত সফরে এসেছেন জেফ বেজোস। ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাইজেশনে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের। তারপরও এই ধনকুবেরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেননি নরেন্দ্র মোদি, এমনকি সরকারের কোন মন্ত্রীও তার সঙ্গে সাক্ষাতে রাজি হননি। 

সংশ্লিষ্ঠরা বলছেন, স্থানীয় ব্যবসায়ীদের আপত্তি অ্যামাজনে মোদি সরকারের অনীহা একটি কারণ। তাছাড়াও বেজোসের মালিকানাধীন মার্কিন সংবাদপত্র ওয়াশিংটন পোস্টের সমালোচনাও মোদি সরকারের পছন্দ না। আর এ কারণেই হয়তো সরকারের কেউ বেজোসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চাইছেন না। অবশ্য সূত্রের বরাত ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, বেজোস প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চাইলে এক মাস আগেই তা নাকচ করে দেওয়া হয়েছিল।

অ্যামাজনে বিজেপি সরকারের অনীহার বিষয়টি স্পষ্ট হচ্ছে কয়েকজন মন্ত্রীর কথাতেও। গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পিযূষ গয়াল বলেন, ‘অ্যামাজন আগামী পাঁচ বছরে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের কথা বলে ভারতকে কৃতার্থ করছে না।’ তবে এ বক্তব্যের সমালোচনা করেন দেশটির শিল্পপতিরা। দেশটির সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম মনে করেন, বাণিজ্যমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে ভারতে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে ভুল বার্তা যাবে। পরে কিছুটা নরম হয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী গতকাল শুক্রবার বলেছেন, ‘আমরা সব রকম বিনিয়োগকে স্বাগত জানাই। কিন্তু আইন না মেনে বিনিয়োগ করলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

যুক্তি দেখিয়ে পিযূষ গয়াল বলেন, ‘প্রচুর ছাড় দিয়ে পণ্য বেচতে গিয়ে বিপুল ক্ষতির মুখে পড়ছে অ্যামাজন। সেই ক্ষতি পুষিয়ে দিতেই অ্যামাজন ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে।’ বাণিজ্যমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের পর একটি বিবৃতি দেন জেফ বেজোস। তিনি বলেন, ‘আগামী পাচ বছরে তারা যে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবেন, তাতে ১০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান হবে।

তবে সহসাই গলছে না মোদি সরকার। বাণিজ্যমন্ত্রীর যুক্তি, অ্যামাজনের মতো বিদেশী সংস্থাকে শুধু নেট-বাজার বা কেনাবেচার প্ল্যাটফর্ম চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। খুচরো ব্যবসা করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন