শুক্রবার| ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০| ১৪ফাল্গুন১৪২৬

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

রিসাইকেলড প্লাস্টিকের বাজার তৈরি

বড় অংকের বিনিয়োগে নেসলে

বণিক বার্তা ডেস্ক

দূষণ কমাতে প্লাস্টিকের ব্যবহার হ্রাস করতে চাইছে বিশ্বের বহু খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। তবে এক্ষেত্রে পুনঃপ্রক্রিয়াকৃত (রিসাইকেলড) জুতসই উপাদান সহজলভ্য না হওয়ায় বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। এ সংকট নিরসনে ফুডগ্রেড রিসাইকেলড প্লাস্টিকের বাজার তৈরিতে ২০০ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগের উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান নেসলে। খবর সিএনএন বিজনেস

নেসলে জানায়, ২০২৫ সালের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি ২০ লাখ টন রিসাইকেলড প্লাস্টিক কিনবে। এজন্য তারা খরচ করবে ১৬০ কোটি ডলার। আর এ অর্থ সংগ্রহের জন্য প্রতিষ্ঠানটির অন্য ব্যবসা খাতে ব্যয় সংকোচন করা হবে। একই সঙ্গে নেসলে ২৬ কোটি ডলারের তহবিল গঠনের ঘোষণা দিয়েছে। এ পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করে নতুন স্টার্ট-আপের মাধ্যমে তারা টেকসই প্যাকেজিংয়ে নজর দেবে। সব মিলিয়ে এ উদ্যোগে তাদের খরচ হবে ২১০ কোটি ডলার।

নেসলে বলছে, তারা রিসাইকেলড প্লাস্টিক প্রচলিত বাজারদরের চেয়ে বেশি দামে কিনবে। মূলত খাবারের প্যাকেট তৈরিতে রিসাইকেলড প্লাস্টিকের ঘাটতি পূরণে এ বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। মনে করা হচ্ছে, বেশি দাম দিলে প্লাস্টিকের এ ব্যবসায় নতুন নতুন সরবরাহকারী যুক্ত হবেন। আর এর মধ্য দিয়ে নেসলে ২০২৫ সাল নাগাদ তাদেরআনকোরা প্লাস্টিকের ব্যবহার এক-তৃতীয়াংশ কমানোর লক্ষ্য পূরণে সক্ষম হবে।

নেসলের প্রধান নির্বাহী মার্ক স্নাইডার বলেন, আমাদের শিল্পে রিসাইকেলড প্লাস্টিককে ফুডগ্রেডে রূপান্তর করা বেশ চ্যালেঞ্জিং। এজন্য আমরা প্লাস্টিকের ব্যবহার কমিয়ে আনা ও প্লাস্টিক বর্জ্য সংগ্রহের পাশাপাশি আনকোরা প্লাস্টিক উৎপাদন বন্ধ করতে চাইছি। একই সঙ্গে বারবার পুনঃপ্রক্রিয়াযোগ্য প্লাস্টিক উৎপাদনে জোর দিচ্ছি। তিনি আরো বলেন, ফুডগ্রেড রিসাইকেলড প্লাস্টিক বেশ ব্যয়বহুল। আর এজন্যই বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান খাবারের মোড়কে রিসাইকেলড প্লাস্টিক ব্যবহার করতে চাইছে না।

যুক্তরাজ্যের অ্যালেন ম্যাকআর্থার ফাউন্ডেশনের প্লাস্টিক বিশেষজ্ঞ স্যানডার ডেফ্রুয়েট বলেন, প্লাস্টিক মোড়ক প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রে অন্যসব ভোগ্যপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের চেয়ে খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বেশি সমস্যায় আছে। ফলে খাদ্য উৎপাদনকারীরা রিসাইকেলড প্লাস্টিক সংগ্রহের জন্য বড় লক্ষ্য নির্ধারণ করছে না।

এ অবস্থায় নেসলে ফুডগ্রেড প্লাস্টিকের জন্য নতুন এক অর্থনীতি তৈরি করতে চাচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে প্লাস্টিক যাতে আর কখনই বর্জ্যে পরিণত না হয়, তা নিশ্চিত করা হবে। নেসলের এ উদ্যোগের ফলে রিসাইকেলড প্লাস্টিকের বাজার বেশ উজ্জীবিত হবে বলে মনে করছেন ডেফ্রুয়েট।

এদিকে গ্রিনপিস সুইজারল্যান্ডের জ্যেষ্ঠ ক্যাম্পেইনার ম্যাথিয়াস ওয়াদরিক বলেন, অবশেষে নেসলে আনকোরা প্লাস্টিক ব্যবহার কমানোর জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির এ উদ্যোগ বেশ উৎসাহব্যঞ্জক। যদি সত্যিই নেসলে দূষণ রোধ করতে চায়, তবে অবশ্যই তাদের প্লাস্টিকের ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে হবে। একই সঙ্গে পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক মোড়কের ব্যহারও।

ব্রেক ফ্রি ফ্রম প্লাস্টিকের মতে বিশ্বে প্লাস্টিক দূষণকারী বাজে করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম নেসলে। গত অক্টোবরে সংস্থাটি নেসলের পাশাপাশি কোকা-কোলা এবং পেপসিকোকে টানা দুই বছরে সবচেয়ে বেশি প্লাস্টিক দূষণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঘোষণা করে। আর ২০১৮ সালে নেসলে মোড়ক তৈরিতে মোট প্লাস্টিক ব্যবহার করে ১৭ লাখ টন। এর মধ্যে সম্প্রতি মাত্র ২ শতাংশ রিসাইকেল করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন