শনিবার | আগস্ট ০৮, ২০২০ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

দেশের খবর

রংপুর নগরীতে তামাকপণ্যের ৭৭% দোকানে অবৈধ বিজ্ঞাপন

বণিক বার্তা প্রতিনিধি রংপুর

রংপুর নগরীর ৭৭ শতাংশ তামাকপণ্যের দোকানে আইনবহির্ভূত অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হচ্ছে। এছাড়া পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে ৭০ শতাংশ দোকানে। নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে সম্প্রতি পরিচালিততামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচার, প্রণোদনা পৃষ্ঠপোষকতাশীর্ষক এক জরিপে চিত্র উঠে এসেছে। গতকাল নগরীর লার্নিং অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে জরিপের ফলাফল তুলে ধরা হয়। ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিড্স-সিটিএফকের সহযোগিতায় অ্যাসোসিয়েশন ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডি জরিপ পরিচালনা করে।

রংপুর অঞ্চলের তামাক নিয়ন্ত্রণ কোয়ালিশনের ফোকাল পারসন সুশান্ত ভৌমিকের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন রংপুর মহানগর পুলিশের (কোতোয়ালি জোন) সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মো. জমির উদ্দিন। সংবাদ সম্মেলনে সিটিএফকের গ্র্যান্ট্স ম্যানেজার (বাংলাদেশ) আব্দুস সালাম মিয়া, এসিডির ডিরেক্টর শারমিন সুবরীনা, অ্যাডভোকেসি অফিসার মো. তুহিন ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে সরেজমিন পর্যবেক্ষণ করে হাজার ৮৪৫টি তামাকপণ্যের বিক্রয় কেন্দ্রের একটি তালিকা করা হয়। পরবর্তী সময়ে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে নির্বাচন করে ৩৯২টি দোকানের ওপর একটি বেসলাইন জরিপ পরিচালিত হয়। জরিপে দেখা গেছে, হাজার ৮৪৫টি তামাকপণ্যের বিক্রয় কেন্দ্রের মধ্যে হাজার ৩৬৪টির লাইসেন্স নেই। ৭৭ শতাংশ দোকানে তামাকের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা হচ্ছে। পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে ৭০ শতাংশ দোকানে।

এসি মো. জমির উদ্দিন বলেন, সরকার বর্তমানে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে বিশেষ পদক্ষেপ নিচ্ছে। রংপুর মহানগরীতে পুলিশ বিশেষ ক্ষমতা আইনে মাঝেমধ্যেই তামাক কোম্পানিগুলোর আইনবহির্ভূত এসব বিজ্ঞাপন বন্ধে

অভিযান চালায়। এখন থেকে আমরা তামাকের এসব বিজ্ঞাপন, পুরস্কার-প্রণোদনা বন্ধে আরো কঠোর হব।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন