বুধবার| জানুয়ারি ২২, ২০২০| ৯মাঘ১৪২৬

টকিজ

ঋত্বিক ঘটকের বোন প্রতীতি দেবীর মরণোত্তর দেহদান

ফিচার প্রতিবেদক

উপমহাদেশের কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের বোন প্রতীতি দেবীর ইচ্ছা লিখিত চুক্তি অনুযায়ী মৃত্যুর পর তার দেহ দান করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালকে। গতকাল বেলা ১টার দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে তার মেয়ে অ্যারোমা দত্তসহ আরো কয়েকজন আত্মীয় শুভানুধ্যায়ী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতীতি দেবীর মরদেহ হস্তান্তর করেন। অ্যারোমা দত্ত সম্পর্কে বলেন, ‘সমাজের জন্য, গবেষণার জন্য, মানবতার জন্য প্রতীতি দেবীর সিদ্ধান্ত দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

এর আগে গত রোববার রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান প্রতীতি দেবী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। ১৯২৫ সালের নভেম্বর পুরান ঢাকার হূষিকেশ দাস রোডের এক বাড়িতে ঋত্বিক ঘটক প্রতীতি দেবী ঘটকের জন্ম হয়। ১৯৪৭ সালের দেশ ভাগের সময় অনেকেই বাংলাদেশ ছেড়ে পশ্চিমবঙ্গে চলে গিয়েছিলেন। ঋত্বিক প্রতীতিও চলে গিয়েছিলেন ভারতে। কিন্তু পরে বাংলাদেশে ফিরে আসেন প্রতীতি। এখানে তার বিয়ে হয় ভাষা সংগ্রামী পূর্ব পাকিস্তানের মন্ত্রী ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের ছেলে সঞ্জীব দত্তের সঙ্গে। দম্পতির ছেলে রাহুল দত্ত কন্যা অ্যারোমা দত্ত।

১৯৭১ সালের ২৯ মার্চ কুমিল্লার নিজ বাসভবন থেকে প্রতীতির চোখের সামনেই পাক হানাদার বাহিনী ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত তার ছোট ছেলে দিলীপ কুমার দত্তকে ধরে নিয়ে যায়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন