শনিবার| মার্চ ২৮, ২০২০| ১৩চৈত্র১৪২৬

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

রেকর্ড সরবরাহে শীর্ষে এয়ারবাস

বণিক বার্তা ডেস্ক

২০১১ সালের পর প্রথমবারের মতো বিশ্বের শীর্ষ উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানিতে পরিণত হলো ইউরোপের বহুজাতিক অ্যারোস্পেস করপোরেশন এয়ারবাস। ২০১৯ সালে ৮৬৩টি উড়োজাহাজ সরবরাহ করেছে কোম্পানিটি, যা পূর্বাভাসের চেয়ে বেশি। ফলে সমস্যাজর্জরিত মার্কিন প্রতিদ্বন্দ্বী বোয়িংকে টপকে তকমা অর্জন করল এয়ারবাস। সম্প্রতি বিমানবন্দর পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলো তথ্য জানিয়েছে। খবর রয়টার্স।

পাঁচ মাসের ব্যবধানে বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের দুটি উড়োজাহাজ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বছর ব্যাপকসংখ্যক গ্রাউন্ডিংয়ের জেরে বিশ্বের শীর্ষ দুই উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানির প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যে উল্টো হাওয়া বইতে পারে, তা আগেই প্রত্যাশা করা হচ্ছিল। চলতি বছরও ৭৩৭ ম্যাক্স গ্রাউন্ডিংয়ের সংকট বয়ে বেড়াতে হবে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতাটিকে।

কিন্তু বাজারে হারানো অবস্থান ফিরে পেতে বোয়িংকে যে পরিমাণ দূরত্ব অতিক্রম করতে হবে, ইউরোপীয় পরিসংখ্যানগুলো সে ব্যবধানটি আবারো সামনে তুলে ধরেছে।

তবে গত বছর সরবরাহ নিয়ে নিজেও সংকটে ছিল এয়ারবাস। নিজস্ব শিল্প সমস্যার কারণে অক্টোবরে ২০১৯ সালের সরবরাহের লক্ষ্যমাত্রা - শতাংশ কমাতে বাধ্য হয়েছিল কোম্পানিটি। কিন্তু মধ্যরাতের কয়েক ঘণ্টা আগ পর্যন্ত অতিরিক্ত শ্রম দিয়ে ৮৬৩টি উড়োজাহাজ সরবরাহ নিশ্চিত করেছে এয়ারবাস, যা কোম্পানিটির সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার ৮৬০টি উড়োজাহাজের চেয়ে বেশি। কোম্পানির সরবরাহের হার ২০১৮ সালের ৮০০ উড়োজাহাজ থেকে দশমিক শতাংশ বেড়েছে।

সমাপ্তি প্রকাশের আগে অডিট বাকি থাকায় পরিসংখ্যান নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে এয়ারবাস।

সাধারণত উড়োজাহাজ সরবরাহ হলে উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানিগুলো সবচেয়ে বেশি রাজস্ব অর্জন করে। ফলে কোম্পানিগুলোর বছর শেষের সরবরাহ পারফরম্যান্সের দিকে নিবিড় মনোযোগ থাকে বিনিয়োগকারীদের।

অর্ধসমাপ্ত উড়োজাহাজগুলোর নির্মাণকাজ শেষ করতে এবার শিল্প রেকর্ড ভেঙে হাজারের বেশি কর্মীকে কাজে লাগায় এয়ারবাস। একই সঙ্গে সব ধরনের ছুটি বাতিল করে। ২০১৯ সালের সরবরাহের মধ্যে প্রায় ৬৪০টি সিঙ্গেল-আইল উড়োজাহাজ রয়েছে।

গত বছর জার্মানির হামবুর্গে অ্যাসেম্বলকৃত এ৩২১নিও উড়োজাহাজের নতুন জটিল লেআউটের কারণে সরবরাহ বিঘ্নিত হয় এয়ারবাসের। জটিলতার কারণে শেষ মুহূর্তের কাজ আরো কর্মীর অপেক্ষায় এ৩২১নিও মডেলের কয়েক ডজন অন্যান্য মডেলের আরো উড়োজাহাজ হ্যাঙ্গারে পড়ে থাকতে দেখা যায়।

অন্যদিকে গত বছরের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ৩৪৫টি উড়োজাহাজ সরবরাহ করেছে বোয়িং, যার সিংহভাগই দূরপাল্লার। সংখ্যা ২০১৮ সালে সরবরাহকৃত ৭০৪টি উড়োজাহাজের অর্ধেকেরও কম।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন