শনিবার| ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০| ১৫ফাল্গুন১৪২৬

দেশের খবর

ভাঙ্গুড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৯ বছর ধরে অস্ত্রোপচার বন্ধ

বণিক বার্তা প্রতিনিধি পাবনা

 পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক চিকিৎসা সরঞ্জামের সংকট চলছে বহুদিন ধরে ফলে ৫০ শয্যার হাসপাতালে নয় বছর ধরে কোনো ধরনের অস্ত্রোপচার হচ্ছে না একই সঙ্গে সাধারণ স্বাস্থ্যসেবার মান নিয়েও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, চার বছর আগে হাসপাতালটিকে ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয় কিন্তু এখানে এখনো আধুনিক ওটি (অপারেশন থিয়েটার) চালু হয়নি এখানে দীর্ঘ নয় বছর ধরে অ্যানেসথেসিস্ট নেই ফলে বন্ধ রয়েছে সিজারিয়ানসহ সব ধরনের অস্ত্রোপচার তাছাড়া দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে নষ্ট পড়ে আছে এক্স-রে মেশিন অন্যদিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকের ১৫টি পদের বিপরীতে পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ কর্মরত রয়েছেন মাত্র নয়জন মেডিকেল অফিসার খালি পড়ে আছে ছয়জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পদ মূলত এসব পদে কখনই চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হয়নি এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে আবাসিক মেডিকেল অফিসারের পদটিও শূন্য পড়ে আছে

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রসূতিদের নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাদের ২৫০ শয্যার পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন অনেক সময় বাধ্য হয়ে তাদের উপজেলার বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি হতে হয় এতে অনেক টাকা খরচ হয় অথচ সরকারি হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশন হলে স্বল্প খরচে তারা সেবা পেতেন

বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. হালিমা খানম বলেন, আমি নিজেই একজন গাইনি সার্জন কিন্তু এখানে অ্যানেসথেসিস্ট নেই তাছাড়া ওটির সরঞ্জাম জীবাণুমুক্ত করার মেশিনও নেই তাই এখানে সিজারিয়ানসহ বড় ধরনের কোনো অপারেশন করা যাচ্ছে না

উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আজিদা খাতুন পাখি বলেন, হাসপাতালে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় চিকিৎসক নিয়োগ আধুনিক ওটি স্থাপন প্রয়োজন এসব না থাকার কারণে দীর্ঘদিন ধরে উপজেলাবাসীকে স্বাস্থ্যসেবা নিতে গিয়ে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে

বিষয়ে পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মো. মেহেদি ইকবাল বলেন, ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চাহিদাগুলো আমি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে জানিয়েছি আশা করছি, অ্যানেসথেসিস্ট পাওয়া গেলে হাসপাতালটিতে দ্রুত অস্ত্রোপচারের ব্যবস্থা করা যাবে

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন