শনিবার| মার্চ ২৮, ২০২০| ১৩চৈত্র১৪২৬

দেশের খবর

ইটভাটার ট্রাক্টরের কারণে বিধ্বস্ত সাতক্ষীরার গ্রামীণ রাস্তা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা

 সাতক্ষীরার আশাশুনি দেবহাটা উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামীণ রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে স্থানীয়রা বলছেন, ট্রাক্টরে করে ইটভাটার মাটি বহনের কারণেই এসব রাস্তার এমন অবস্থা হয়েছে

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার কিছু ইট বিছানো এবং কিছু আধাপাকা এসব রাস্তায় এখন হেঁটে চলাই কঠিন ইটগুলো উঠে গিয়ে ভেঙে গেছে বালি, মাটি ভাঙা ইটের স্তূপে পরিণত হয়েছে রাস্তাগুলো দুই উপজেলার প্রায় প্রত্যেকটি গ্রামেই এমন অবস্থা এলজিইডির অধীন হলেও ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার কোনো হিসাব দিতে পারেননি কর্মকর্তারা অবশ্য দায়ী ইটভাটা মালিকদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন

সম্প্রতি গিয়ে দেখা গেছে, আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের জেলেপাড়া, নওয়াপাড়া আমদখালী রাস্তা সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ভাঙা রাস্তার ওপর দিয়ে চলছে মাটিবাহী ট্রাক্টর ট্রলি স্থানীয় বুধহাটা ব্রিকস, এইচবিএফ ব্রিকস নওয়াপাড়া ইটভাটায় যাচ্ছে এসব মাটি

বুধহাটা গ্রামের মুজিবর রহমান, আব্দুল বারি আব্দুল হাকিম জানান, প্রতি বছরই ইট তৈরির মৌসুমে ভাটা মালিকরা বিভিন্ন বিল ফসলি জমি থেকে মাটি সংগ্রহ করেন প্রতি ট্রাক্টর ট্রলিতে ১২ থেকে ১৫ টন মাটি থাকে এসব ট্রাক্টরই গ্রামীণ রাস্তাগুলো ধ্বংস করে দিচ্ছে অধিকাংশ রাস্তা এরই মধ্যে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার দহকুলা গ্রামের সানি ব্রিকসের মাটি আনা হয়ে থাকে জেলার দেবহাটা উপজেলার বিলশিমুলবাড়িয়া এল্লারচর এলাকা থেকে প্রতিদিন -১০টি ট্রাক্টর ট্রলিতে করে ভাটার জন্য মাটি পরিবহন করা হয় ফলে সদ্য নির্মিত এল্লারচর পাকা রাস্তা

বিলশিমুলবাড়িয়া কাঁচা রাস্তা তছনছ হয়ে গেছে

ভাটা কর্তৃপক্ষ অবশ্য মাটি বহনের কারণে গ্রামীণ রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা স্বীকার করেছেন যদিও এছাড়া তাদের কোনো উপায় নেই বলে দায় এড়ানোর চেষ্টা করছেন তারা

এর মধ্যে আশাশুনির এইচবিএফ ব্রিকসের ব্যবস্থাপক বলেন, ইট বানাতে গেলে মাটি সংগ্রহ করতেই হবে তবে যাতে রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেদিকে খেয়াল রেখে মাটি পরিবহনের চেষ্টা করা হবে ভাটাটির স্বত্বাধিকারী উসমান গণি মিন্টু দাবি করেন, ইট প্রস্তুতের মৌসুম শেষে তারা ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তায় নিজ খরচে মাটি ফেলেন একই কথা বলেন সদর উপজেলার দহকুলা গ্রামের সানি ব্রিকসের স্বত্বাধিকারী আব্দুল খালেক সানি

বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে সাতক্ষীরা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী বিশ্বজিৎ কুমার

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন