বৃহস্পতিবার | অক্টোবর ০১, ২০২০ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

প্রথম পাতা

রাজাকারের তালিকা স্থগিত

মুক্তিযোদ্ধাদের নাম থাকায় প্রধানমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজাকারের প্রকাশিত তালিকা স্থগিত করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। যাচাই-বাছাই করে পরবর্তী সময়ে তালিকা আবার প্রকাশ করা হবে। গতকাল মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তথ্য জানানো হয়েছে। এদিকে তালিকায় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম থাকায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ১৫ ডিসেম্বর এক সংবাদ সম্মেলনে ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের একটি তালিকা প্রকাশ করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক। সে সময় তিনি জানান, এটি কোনো নতুন তালিকা নয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া তালিকাই প্রকাশ করা হয়েছে। ওই দিনই মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে তালিকাটি প্রকাশ করা হয়। গতকাল ওয়েবসাইট থেকে সেটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, তালিকা প্রকাশের পর বিভিন্ন মহল থেকে অভিনন্দিত করা হয়েছে, আবার তালিকায় কিছু ভুল-ত্রুটির জন্য তীব্র সমালোচনাও হয়েছে। স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির মধ্যে যাতে কোনো ভুল বোঝাবুঝি না হয়, সেজন্য রাজাকার, আলবদর, আলশামস, শান্তি কমিটি স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রকাশিত তালিকা স্থগিত করেছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক। মন্ত্রী জানান, এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী তালিকা যাচাই-বাছাই করে সংশোধনের নির্দেশনা দিয়েছেন। কী প্রক্রিয়ায় দ্রুততম সময়ে দেশব্যাপী যাচাই-বাছাই সম্পন্ন করে প্রকৃত তালিকা প্রকাশ করা যায়, সে ব্যাপারে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে আলোচনা প্রয়োজন। আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে তালিকা প্রকাশের প্রচেষ্টা থাকবে।

প্রধানমন্ত্রীর দুঃখপ্রকাশ
রাজাকারের তালিকা নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীকে বলেছিলাম, তাড়াহুড়ো না করতে। এখানে অনেক ঝামেলা রয়ে গেছে, ভালো করে দেখতে হবে। আমিও খুব ব্যস্ত ছিলাম। এটা খুব স্বাভাবিক, যার পরিবারের কেউ শহীদ হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধ করেছে, তাদের নাম রাজাকারের তালিকায় দেখলে কষ্ট পাওয়া স্বাভাবিক। এর চেয়ে দুঃখের, কষ্টের আর কিছু হতে পারে না। তাদের বলব, আপনারা শান্ত হোন, ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখেন।

গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভার সূচনা বক্তব্যে তিনি বলেন, যেহেতু সরকারপ্রধান, আমার আরো শক্ত করে বলা দরকার ছিল। কেন এটা দিয়ে দিলেন, এটা তো দেয়ার কথা ছিল না। অন্তত বিজয় দিবসের আগে নয়। অত্যন্ত স্বতঃস্ফূর্তভাবে এবার বিজয় দিবস পালিত হয়েছে, ঠিক তখনই এটা এসেছে। মুক্তিযোদ্ধা হয়েও যাদের নাম তালিকায় এসেছে, তাদের জন্য কী পরিমাণ কষ্টের,

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন