বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

প্রথম পাতা

অদক্ষ কর্মীরাই শিল্প চালাচ্ছেন

বদরুল আলম

স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে দেশের শিল্প বলতে ছিল মূলত পাটকল। পরে রফতানিমুখী পোশাক খাত দিয়ে শুরু হয় উৎপাদনমুখী শিল্পের অগ্রযাত্রা। ধারাবাহিকতায় গত চার দশকে অনেকগুলো শিল্প বিকশিত হয়েছে, যেগুলোর চালিকাশক্তি ছিল অদক্ষ কর্মী। আন্তর্জাতিক সংস্থার পর্যবেক্ষণ বলছে, এখনো অদক্ষ কর্মীরাই চালাচ্ছেন বাংলাদেশের শিল্প।

বাংলাদেশের বেসরকারি খাত নিয়ে একটি মূল্যায়ন প্রতিবেদন সম্প্রতি প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়নবিষয়ক সংস্থা ইউএসএআইডি। প্রতিবেদনে শিল্পভিত্তিক অদক্ষ কর্মীর হার প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে দেখা গেছে, শিল্পভেদে অদক্ষ কর্মীর হার সর্বনিম্ন ৭৩ দশমিক ৮০ থেকে সর্বোচ্চ ৯৯ দশমিক শতাংশ।

খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশে শিল্পের পত্তনে অদক্ষ শ্রমিকরাই মূল ভূমিকা রেখেছেন। তবে অদক্ষতা বা স্বল্পদক্ষতা দিয়ে আগামীতে শিল্পের বিকাশ কঠিন হবে। ভবিষ্যতের কথা বিবেচনায় অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার সময় হয়েছে।

পোশাক শিল্পের বাইরে সম্ভাবনাময় খাতগুলোর অন্যতম ওষুধ শিল্প। বাংলাদেশের ওষুধ খাতের বাজার এরই মধ্যে ২৪৪ কোটি ডলার। উৎপাদিত ওষুধ ১২৭টি দেশে রফতানিও করছে দেশের ওষুধ কোম্পানিগুলো, যার বার্ষিক পরিমাণ ১০ কোটি ডলার। খাতটিতে কর্মসংস্থান হয়েছে লাখ ৭২ হাজার মানুষের, যাদের ৯৭ দশমিক ৪০ শতাংশই অদক্ষ।

ওষুধ শিল্প মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের (বিএপিআই) ভাইস প্রেসিডেন্ট রেনাটা লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সৈয়দ এস কায়সার কবির বণিক বার্তাকে বলেন, ওষুধ শিল্প শ্রমঘন নয়। বড় আকারের উৎপাদন ব্যবস্থা অনেক বেশি স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতির। আধুনিক ওষুধ শিল্প হোয়াইট কলার কর্মীর ওপরই বেশি নির্ভরশীল যেমন ফার্মাসিস্ট, কেমিস্ট, প্রকৌশলী আইটি পেশাজীবী। ধরনের কর্মীদের বড় একটি অংশ বর্তমানে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে বের হচ্ছেন। আমাদের ঘাটতি আছে শীর্ষ পর্যায়ের বিজ্ঞানীর, যারা পণ্য উন্নয়ন গবেষণার বাস্তবতা নিয়ে কাজ করেন।

দেশের অন্যতম শিল্প খাত কৃষি ব্যবসা। ৩৫৪ কোটি ডলার বা ২৯ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে খাতের আকার। খাতে কর্মসংস্থান হয়েছে প্রায় তিন লাখ মানুষের। ইউএসএআইডির পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, এদের ৯৯ দশমিক শতাংশই অদক্ষ।

দেশে অটোমোবাইল খাতের আকার দাঁড়িয়েছে হাজার ৩৮৯ কোটি ডলারের। খাতে ট্রাক-বাসের সংযোজন করে অটোমোটিভ পণ্য রফতানিও হচ্ছে। বর্তমানে খাতে নিয়োজিত আছেন ৫০ হাজার কর্মী। কর্মীদেরও প্রায় ৮৫ শতাংশ অদক্ষ।

সম্ভাবনাময় বেসরকারি খাতগুলোর

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন