মঙ্গলবার| ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০| ৫ফাল্গুন১৪২৬

খবর

যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে কনজারভেটিভ দলের জয়

ব্রেক্সিট পরবর্তী ইউরোপের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক নিরূপণ কঠিন হবে

কার্যকর একটি চুক্তি ছাড়াই ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেন বেরিয়ে যাবে, নাকি ব্রেক্সিট ইস্যুতে দেশটিতে নতুন করে গণভোট হবে- দুই প্রশ্ন নির্বাচনী প্রচারে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয়েছে কারণে এবারের নির্বাচনকে যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন বিবেচনা করা হয়েছে নাটকীয়ভাবে শেষ হাসি হেসেছেন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জয় পেয়েছে তার দল


নির্বাচনী প্রচারে লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন জয় পেলে ব্রেক্সিট নিয়ে নতুন করে গণভোট আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন অন্যদিকে কনজারভেটিভ নেতা বরিস জনসন বলেছিলেন, বড় ধরনের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি ইইউ থেকে ব্রিটেনকে মসৃণভাবে বের করে আনতে সক্ষম হবেন তিনি

নির্বাচনের ফলাফলে ভোটাররা স্পষ্টভাবে লেবারের নতুন গণভোটের প্রস্তাবকে প্রত্যাখ্যান করেছেমসৃণ বেক্সিটের পক্ষে বিপুল ম্যান্ডেট দিয়েছে ফলে আগামী দিনগুলোয় ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া কার্যকর গতিশীল হবে বলে আশা করা হচ্ছে

বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সভাপতি ফজলুল হালিম রানা বলেন, এবারের নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টি ভূমি ধ্বস বিজয় অর্জন করেছে এটা ঐতিহাসিক পার্লামেন্টের সংখ্যাগরিষ্ঠতা কাজে লাগিয়ে দলটি হয়তো ব্রেক্সিট চুক্তি মসৃণভাবেই এগিয়ে নিতে পারবে তবে চ্যালেঞ্জ রয়ে যাবে ব্রেক্সিটের পর ইউরোপের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সম্পর্ক নিরূপণে বিশেষত এত অল্প সময়ের মধ্যে শর্তহীন অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে ইউরোপের দেশগুলোকে রাজি করানোটা কঠিন হয়ে পড়তে পারে

উল্লেখ্য, ব্রিটেনের পার্লামেন্টের আসন ৬৫০টি সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ৩২৬ আসন ১২ ডিসেম্বরের নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টি এখন পর্যন্ত ৩৬৪ আসনে জয় পেয়েছে বিরোধী লেবার পার্টি জয়ী হয়েছে ২০৩ আসনে স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি ৪৮, লিবারেল ডেমোক্র্যাট ১১ আসনে জয় পেয়েছে আলোচিত ব্রেক্সিট পার্টি চমক দেখিয়েছে নির্বাচনে কোন আসন না পেয়ে


এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন