শনিবার| জানুয়ারি ১৮, ২০২০| ৪মাঘ১৪২৬

আন্তর্জাতিক খবর

ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচন: শেষ হাসি হাসলেন জনসন

বণিক বার্তা অনলাইন

ব্রিটেনের ঐতিহাসিক সাধারণ নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বিজয়ের হাসি হাসলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার দল কনজারভেটিভ পার্টি ৬৫০টি আসনের মধ্যে ৩৬৪ আসনে জয় নিয়ে পুনরায় ক্ষমতায় আসছে। 

অন্যদিকে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী জেরেমি করবিনের লেবার পার্টি মাত্র ২০৩ আসনে জয় পেয়েছে। আর স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি ৪৮ এবং লিবারেল ডেমোক্র্যাট পেয়েছে ১১ আসন। তবে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে চমক দেখানো ব্রেক্সিট পার্টি আশ্চর্যজনকভাবে একটি আসনেও জয় পায়নি।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাত ১০টায় (বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায়) ভোটগ্রহণ শেষ হয়। ভোট গ্রহণ শেষ হওয়া মাত্রই বুথ ফেরত জরিপের ফল প্রকাশ শুরু হয়। বিবিসি, স্কাই এবং আইটিভি পক্ষে জরিপকারী প্রতিষ্ঠান ইপসস মোরি এ জরিপ পরিচালনা করে। দেশব্যাপী ১৪৪টি ভোট কেন্দ্রে বুথ ফেরত ২২ হাজার ৭৯০ জন ভোটারের মতামত বিশ্লেষণ করে আগেই জনসনের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, দেশটিতে বুথ ফেরত জরিপের ফলাফল কখনোই ভুল প্রমাণিত হয়নি।

এ বিজয় হবে ১৯৮৭ সালে মার্গারেট থেচারের তৃতীয় দফা বিজয়ের পর কনজারভেটিভ পার্টির সবচেয়ে বড় বিজয়। অন্যদিকে লেবার পার্টির জন্য ১৯৩৫ সালের পর সবচেয়ে খারাপ ফলাফল। ২০১৭ সালের নির্বাচনে লেবার পার্টি ২৬২ আসনে বিজয় পেয়েছিল।

২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে মসৃণভাবে ব্রিটেনকে বের করে আনতে নির্বাচনে বড় ধরনের সংখ্যাগরিষ্ঠতা আশা করছিলেন বরিস জনসন। তার সে আশা বাস্তবে রূপ নিতে চলেছে।

ব্রেক্সিটের ভাগ্য নির্ধারণ করবে এ নিরঙ্কুশ বিজয়। সংসদে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় এবং দলীয় আইনপ্রণেতাদের বিরোধিতার কারণে গত তিন বছরেও ব্রেক্সিট কার্যকর করতে পারেনি ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভরা। তাই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় ফিরতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন।

অন্যদিকে নির্বাচনে জয় পেলে ব্রেক্সিট নিয়ে নতুন গণভোটের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টি। কনজারভেটিভদের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় বিজয় তাঁদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে প্রধান বাধা।

ব্রিটেনে সাধারণত পাঁচ বছর পরপর সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু ব্রেক্সিট ইস্যুতে নানান নাটকীয়তার জেরে এই মেয়াদে তৃতীয়বারের মতো ভোট দিচ্ছে ব্রিটিশ নাগরিকরা। একশ বছরের ইতিহাসে এটি ডিসেম্বরে নির্বাচন আয়োজনের দ্বিতীয় ঘটনা। যুক্তরাজ্যে ১৯৭৪ সালে প্রথম শীতকালে নির্বাচন হয়েছিল এবং প্রথম তা ডিসেম্বরে হয় ১৯২৩ সালে।

তীব্র শীত ও বৃষ্টি উপেক্ষা করে গতকাল ভোট দিয়েছেন ব্রিটিশ নাগরিকত্ব প্রাপ্ত এবং ১৮ বছরের বেশি বয়সী সকল নাগরিক। আইরিশ ও কমনওয়েলথ নাগরিক যারা যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন, তারাও নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন। 

ব্রিটেনের নির্বাচনের হালনাগাদ বিস্তারিত ফল দেখতে ক্লিক করুন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন