বৃহস্পতিবার| ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০| ১৪ফাল্গুন১৪২৬

শেষ পাতা

রোকেয়া দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

সতর্ক থাকুন যাতে কোনো শিশু-নারী নির্যাতিত না হয়

বণিক বার্তা ডেস্ক

কোনো শিশু নারী যাতে নির্যাতনের শিকার না হয়, সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানীতে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে গতকাল বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি আহ্বান জানান। এদিন রোকেয়া পদক-২০১৯ বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। খবর বাসস।

শিশু নারীরা যাতে সুরক্ষিত থাকে, সেদিকে বিশেষ মনোযোগ দেয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেবল আমাদের দেশে নয়, আমরা উন্নয়নশীল দেশগুলোতেও দেখেছি, শিশু নারীদের ওপর নির্যাতন মানসিক রোগের মতো ছড়িয়ে পড়ছে। তাই নারী-পুরুষ প্রত্যেককেই সচেতন থাকতে হবে, যাতে কোনো শিশু নারী নির্যাতিত না হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, মূলত পুরুষরাই নারীদের ওপর নির্যাতন চালায়। তাই তাদের চিন্তা করা উচিত, তাদেরও মেয়েশিশু রয়েছে এবং তাদের সন্তান যদি অন্য কারো দ্বারা নির্যাতিত হয়, তাহলে তারা কী করবে। সে কারণেই ব্যাপারে সচেতনতা খুবই জরুরি।

নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের ১৩৯তম জন্ম ৮৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সারা দেশে বেগম রোকেয়া দিবস পালিত হয়। মহিলা শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা শিশু-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা। মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। রোকেয়া পদক গ্রহণকারীদের পক্ষে সেলিনা খালেক পদক গ্রহণের অনুভূতি প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নারী সামাজিক উন্নয়নে তাদের অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতিতে পাঁচজন নারীকে রোকেয়া পদক-২০১৯ প্রদান করেন। পদকপ্রাপ্তরা হলেন সেলিনা খালেক, অধ্যক্ষ শামসুন নাহার, . নূরুন নাহার ফয়জুন্নেছা (মরণোত্তর), পাপড়ি বসু আখতার জাহান।

শিশু নারী নির্যাতন রোধে সরকারের বিভিন্ন আইন প্রণয়নের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা আইন করেছি। কিন্তু আইন করলেই সবকিছু হয়ে যায় না। এজন্য শিশু নারী নির্যাতন বন্ধে সচেতনতাও প্রয়োজন। শিশু নারী সমাজের কল্যাণে পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ আইন, যৌতুক প্রতিরোধ আইন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ আইন এবং নারী উন্নয়ন নীতিমালা জাতীয় শিশু উন্নয়ন নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। আইন প্রণয়নের ফলে সাধারণ মানুষ মেয়েদের মধ্যে সচেতনতা গড়ে উঠছে।

শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় বেগম রোকেয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় সবকিছুই করছে। বেগম রোকেয়া চেয়েছিলেন একজন নারী যেকোনো রাষ্ট্রের প্রধান হবেন এবং তিনি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন