রবিবার| জানুয়ারি ২৬, ২০২০| ১৩মাঘ১৪২৬

পণ্যবাজার

আইসিইতে চিনি ও কফির দাম ঊর্ধ্বমুখী

বণিক বার্তা ডেস্ক

ইন্টারকন্টিনেন্টাল এক্সচেঞ্জে (আইসিই) অপরিশোধিত চিনি অ্যারাবিকা কফির দাম বেড়েছে। সম্প্রতি ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিতে আইসিইতে অপরিশোধিত চিনির দাম বেড়ে নয় মাসের সর্বোচ্চে অ্যারাবিকা কফির দাম বেড়ে এক বছরের সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

আইসিইর মঙ্গলবার কার্যদিবসে মার্চে সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি পাউন্ড অপরিশোধিত চিনি বেচাকেনা হয় ১২ দশমিক ৯০ সেন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় দশমিক সেন্ট বেশি। এর আগে শুক্রবার কার্যদিবসে মিষ্টি পণ্যটির দাম বেড়ে নয় মাসের সর্বোচ্চে উঠেছিল। এদিকে মঙ্গলবার কার্যদিবসে পরিশোধিত চিনির দাম বেড়ে প্রতি টন ৩৪৫ ডলার ৭০ সেন্টে উন্নীত হয়, যা আগের দিনের তুলনায় শতাংশ বা ডলার ৪০ সেন্ট বেশি।

দীর্ঘদিন ধরে চিনির বাজারে মন্দা ভাব বজায় রয়েছে। তবে এবার মৌসুমে বৈশ্বিক উৎপাদন মজুদ কমার পূর্বাভাসে পণ্যটির বাজারে চাঙ্গা ভাব ফিরেছে। মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) সাম্প্রতিক তথ্য অনুযায়ী, চলতি মৌসুমে চিনির বৈশ্বিক উৎপাদন কমতে পারে ৬০ লাখ টন। এর মধ্যে ভারতেই কমতে পারে ৫০ লাখ টন। এদিকে মৌসুম শেষে পণ্যটির বৈশ্বিক মজুদ কমে পাঁচ কোটি টনে নামতে পারে। দ্বিতীয় শীর্ষ উৎপাদনকারী দেশ ব্রাজিল চিনির পরিবর্তে ইথানল উৎপাদনে বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছে।

এদিকে আইসিইর মঙ্গলবার কার্যদিবসে মার্চে সরবরাহ চুক্তিতে অ্যারাবিকা কফির দাম বেড়ে পাউন্ডপ্রতি ডলার ২৩ সেন্টে বেচাকেনা হয়, যা আগের দিনের তুলনায় দশমিক সেন্ট বা দশমিক শতাংশ বেশি। এর আগে পাউন্টপ্রতি পানীয় পণ্যটির দাম ডলার ২৪ সেন্টে উঠেছিল, যা এক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

একই সময় রোবাস্তা কফির দাম প্রতি টনে ১৩ ডলার বা দশমিক শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে হাজার ৪২৪ ডলারে। এছাড়া এদিন চাঙ্গা ভাব ফিরেছে কোকোর বাজারে। মঙ্গলবার কার্যদিবেস কৃষিপণ্যটির দাম প্রতি টনে ডলার বা দশমিক শতাংশ বেড়ে হাজার ৫৫২ ডলারে উন্নীত হয়। আগের দিন পণ্যটির দাম কমে তিন মাসের সর্বনিম্নে নেমেছিল।

প্রতিকূল আবহাওয়ার জেরে এবার মৌসুমে শীর্ষ উৎপাদক ব্রাজিলের কফি উৎপাদন কমে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়া হন্ডুরাস, কোস্টারিকাসহ অন্যান্য শীর্ষ উৎপাদনকারী দেশে থেকে পানীয় পণ্যটির রফতানি নিম্নমুখী রয়েছে। এতে সরবরাহ সংকটের শঙ্কায় পণ্যটির বাজার ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন