শুক্রবার| জানুয়ারি ২৪, ২০২০| ১১মাঘ১৪২৬

টকিজ

মাইলসের চার দশক পূর্তির শেষ উৎসব ঢাকায়

ফিচার প্রতিবেদক

চলতি বছর ব্যান্ড সংগীতজগতে পথচলার চার দশক পূর্তি করছে দেশের অন্যতম পরিচিত ব্যান্ড মাইলস। বছরটিকে স্মরণীয় করে রাখতে তাই মাইলস হাতে নিয়েছিল চোখ ধাঁধানো সব পরিকল্পনা। এর অংশ হিসেবে এরই মধ্যে ইউরোপ আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশ সফর করেছে দলটি। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা অস্ট্রেলিয়ার ভক্ত-শ্রোতাদের সামনে তো রীতিমতো ২৮টি কনসার্ট করেছে তারা। যুক্তরাষ্ট্র থেকে শুরু করে অস্ট্রেলিয়ার মাধ্যমে গত মাসের মাঝামাঝিতে শেষ হয় দলটির বিশ্বভ্রমণ। পর্যায়ে দেশের অগণিত ভক্তের মন খারাপ হতে পারে এই ভেবে যে এত এত দেশের মানুষের সামনে পারফর্ম করে এলেও নিজের দেশের শ্রোতাদের জন্য তো কোনো উপহার রাখল না মাইলস! কিন্তু বিষয়টি মোটেও তা নয়। সুখবর হলো, দেশীয় ভক্তদের সামনে পারফর্ম করেই দলের ৪০ বছর পূর্তি উৎসবের ইতি টানবেন তারা।

মাইলস ব্যান্ডের পথচলার ৪০ বছর পূর্তির সর্বশেষ আয়োজনটি উদযাপন হতে যাচ্ছে ২৪ ডিসেম্বর। ঢাকার বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে এটি অনুষ্ঠিত হবে। আয়োজক প্রতিষ্ঠান উইন্ডমিল অ্যাডভারটাইজিং লিমিটেড আনুষ্ঠানিকভাবে এমন ঘোষণা দিয়েছে। সম্প্রতি উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মাইলসসহ উপস্থিত ছিলেন ওয়ারফেজ, ভাইকিংস, ফিডব্যাকসহ উল্লেখযোগ্যসংখ্যক কয়েকটি দলের সদস্যরা। বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের পাশাপাশি গালা কনসার্ট করা হবে বলেও জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।


অনুষ্ঠানে মাইলস ব্যান্ডের সদস্যরা জানান, মাইলসের ৪০ বছর পূর্তির সর্বশেষ আয়োজনটি তারা বাংলাদেশেই রেখেছেন। অনুষ্ঠানের বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে তাদের পাশাপাশি থাকছে অন্যান্য জনপ্রিয় ব্যান্ডের পারফরম্যান্সও। উপস্থিত দর্শক, ভক্তদের জন্য এদিন থাকবে বেশকিছু সারপ্রাইজ। থাকছে কনটেস্টে বিজয়ী ভক্তদের মাইলসের সঙ্গে গান গাওয়ার সুযোগ, যা শিগগিরই জানানো হবে।

ঢাকায় ৪০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠান সম্পর্কে টকিজকে মাইলসের অন্যতম সদস্য শাফিন আহমেদ বলেন, ‘আমাদের শুরু থেকেই পরিকল্পনা ছিল ৪০ বছর পূর্তির শেষ টানব দেশের ভক্ত-শ্রোতাদের সঙ্গী করে। এছাড়া অন্যান্য দেশের শ্রোতাদের সামনে যেভাবে হাজির হয়েছি, তার চেয়ে অনেক বেশি ব্যতিক্রম হবে দেশের আয়োজন। শেষ পর্যন্ত সবকিছু গুছিয়ে চূড়ান্তভাবে অনুষ্ঠানটি করতে পারছি বলে ভালো লাগছে। আরেকটি কথা বলতে চাই। তা হলো, আমাদের পথচলায় অন্য ব্যান্ডগুলো যেভাবে আমাদের সমর্থন দিচ্ছে, তা সত্যিই মাইলসের জন্য বড় পাওয়া। আমরা তাদের কাছেও চিরকৃতজ্ঞ।

এদিকে মাইলস ব্যান্ডের ৪০ বছরের অগ্রযাত্রায় শামিল হতে পেরে দারুণ উচ্ছ্বসিত ওয়ারফেজ, ভাইকিংস, ফিডব্যাকের সদস্যরা। মাকসুদ ঢাকা ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য মাকসুদুল হক মাকসুদ বিষয়ে বলেন, মাইলসের প্রতিটি কাজই অনেক গোছানো। ৪০ বছর লম্বা একটা সময়। শুধু একজন ব্যান্ড সদস্য নয়, বন্ধু হিসেবে শুরু থেকেই সঙ্গে ছিলাম, এখনো আছি।

ওয়ারফেজের শেখ মনিরুল আলম টিপু বলেন, একটা ব্যান্ডের ৪০ বছর পার হওয়ার পেছনে যত গল্প থাকে, শ্রম বা ত্যাগ থাকে, এটা সাধারণ মানুষের পক্ষে বোঝা অসম্ভব। নিজেদের জনপ্রিয়তা একই তালে রেখে এগিয়ে যাওয়া একটা বিশাল ব্যাপার; মাইলস যা করে দেখিয়েছে। নতুনদের জন্য মাইলস একটি অনুপ্রেরণার প্রতীক হয়ে আছে, থাকবে। তাদের জন্য রইল অনেক অনেক শুভকামনা।


অনুষ্ঠানে বিডব্যাকের লাবু রহমান বলেন, মাইলস শুধু একটি ব্যান্ডই নয়, একটি প্রতিষ্ঠানে রূপ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠান একদিনে তৈরি হয়নি। মাইলসের সবাই প্রথম শ্রেণীর মিউজিশিয়ান। সে কারণে এখনো মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে মাইলস। তাদের এমন কিছু গান আছে, যা অনেক দিন ধরে টিকে থাকবে। মাইলসের কালের সাক্ষীতে আমরাও থাকছি।

ভাইকিংসের তন্ময় বলেন, ৪০ বছর পার করা অনেক বড় একটি ঘটনা। মাইলস আমাদের জন্য একটি অনুকরণীয় ব্যান্ড। এটা দেখে আসছি আমাদের সময় থেকে এখন পর্যন্ত। তাদের কাছে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে।

আয়োজক প্রতিষ্ঠান উইন্ডমিলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মাইলসের ৪০ বছর ঘিরে থাকবে নানা আয়োজন। থাকছে অন্যান্য জনপ্রিয় ব্যান্ডের মাইলসের প্রতি সম্মান প্রদর্শন। যার মধ্যে থাকছে ভক্তদের মাইলসের সঙ্গে গান গাওয়ার সুযোগ, মাইলস গানের কথা এবং তার পেছনের কাহিনী প্রদর্শনী। নিয়ে আয়োজক প্রতিষ্ঠান উইন্ডমিলের সিইও সাব্বির রহমান তানিম বলেন, মাইলস আমাদের দেশের অনেক কিছুর প্রথমের সঙ্গে যুক্ত। ভক্তদের কাছে আয়োজনকে তুলে ধরতে অনেকগুলো চমক নিয়ে হাজির হবে উইন্ডমিল। ব্যাপারে শিগগিরই ঘোষণা আসছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন