রবিবার| জানুয়ারি ১৯, ২০২০| ৬মাঘ১৪২৬

টেলিকম ও প্রযুক্তি

সরকারি অনুরোধে ‘ভুয়া নিউজ’ ট্যাগ লাগাল ফেসবুক

বণিক বার্তা ডেস্ক

ফেসবুক পেজে প্রকাশিত একটি সংবাদকেভুয়াহিসেবে চিহ্নিত করে তা সরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছিল সিঙ্গাপুর সরকার। আবেদনে সাড়া দিয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ খবরটি সরিয়ে না নিলেও তাতেফেক নিউজট্যাগ লাগিয়ে দিয়েছে। সংবাদ সামনে আসার পর থেকে অনলাইন তথা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বাকস্বাধীনতা রক্ষার পুরনো বিতর্ক নতুন করে সামনে এল। খবর বিবিসি রয়টার্স।

স্টেটস টাইমস রিভিউ সিঙ্গাপুরের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের একজন প্রভাবশালী রাজনীতিকের নির্বাচনী কারচুপির সংবাদ প্রকাশ করে। বলা হয়, তথ্য ফাঁস করার দায়ে একজনকে গ্রেফতার করেছে সিঙ্গাপুর পুলিশ। তবে সিঙ্গাপুর সরকার জানিয়েছে, সংবাদ পুরোপুরি ভুয়া। ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। কাউকে গ্রেফতারও করা হয়নি। যদিও স্টেটস টাইমস রিভিউয়ের সম্পাদক অ্যালেক্স তান এটিকে সত্য যথার্থ খবর বলে দাবি করেছেন।

ভুয়া বলে দাবি করা সংবাদটি স্টেটস টাইমস রিভিউর ফেসবুক পেজ থেকে সরিয়ে ফেলার জন্য দেশটির প্রটেকশন ফ্রম অনলাইন ফলসহুড অ্যান্ড ম্যানিপুলেশন আইনের আওতায় নির্দেশনা দেয় সিঙ্গাপুর সরকার। নির্দেশনা পেয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সংবাদটি সংশোধনের জন্য নোটিস পাঠায়। তবে অ্যালেক্স তান নিজেকে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক উল্লেখ করে পোস্টটি সরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জানান। এর পরিপ্রেক্ষিতে পোস্টের নিচেসিঙ্গাপুর সরকার মনে করছে এটি ভুয়া সংবাদলেখা ট্যাগ যুক্ত করেছে ফেসবুক।

এর আগে সিঙ্গাপুরের বিরোধী রাজনীতিক ব্র্যাড বাওয়ারের একটি ফেসবুক পোস্ট নিয়েও আপত্তি তোলে দেশটির সরকার। ফেক নিউজ আইনের আওতায় ১৩ নভেম্বর আপলোড করা পোস্টটি সরিয়ে ফেলতে আবেদন করে সিঙ্গাপুর সরকার। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পোস্টটি সংশোধনের জন্য বাওয়ারকে নোটিস পাঠিয়েছিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, সিঙ্গাপুরে চলতি বছরের শুরুতে পাস হওয়া আইনটি অনলাইনে বাকস্বাধীনতা চর্চায় মারাত্মকভাবে বিঘ্ন ঘটাতে পারে। এটি ক্ষমতাসীনরা নিজেদের স্বার্থ রক্ষায় বিরোধীদের মুখ বন্ধ রাখতে ব্যবহার করতে পারে। আইনের আওতায় অনলাইনে ভুয়া সংবাদ ছড়ালে সংশ্লিষ্ট অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়ার বিধান রয়েছে। এছাড়া অপরাধ প্রমাণ হলে সর্বোচ্চ ১০ লাখ সিঙ্গাপুর ডলার ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন