মঙ্গলবার | ডিসেম্বর ১০, ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শেষ পাতা

যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী বৃদ্ধির হার

ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

তাসনিম মহসিন

অভিবাসন প্রত্যাশার ক্ষেত্রে বাংলাদেশীদের কাছে প্রথম পছন্দ যুক্তরাষ্ট্র। প্রতি বছরই বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশী দেশটিতে পাড়ি জমাচ্ছে। সেন্টার ফর ইমিগ্রেশন স্টাডিজের (সিআইএস) তথ্য বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী বৃদ্ধির হারে ভারত পাকিস্তানের চেয়েও এগিয়ে আছে বাংলাদেশ।

সিআইএসের প্রকাশ করা তথ্য অনুযায়ী, ২০১০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অভিবাসী বেড়েছে ৭০ শতাংশ। একই সময়ে দেশটিতে ভারতীয় অভিবাসী বেড়েছে ৪৯ পাকিস্তানের ২৭ শতাংশ। তবে সংখ্যার দিক দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ভারতীয় অভিবাসীই বেশি যুক্তরাষ্ট্রে। সংখ্যা ২৬ লাখ ৫২ হাজার ৮৫৩। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানের অভিবাসীর সংখ্যা লাখ ৭৯ হাজার ১০৩ বাংলাদেশের লাখ ৬১ হাজার ৫২।

স্বাধীনতার অল্প কিছুদিন পর থেকেই বাংলাদেশের মানুষ যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দিতে শুরু করে। শুরুর দিকে রাজনৈতিক আশ্রয়ের পাশাপাশি শিক্ষাগত কারণে কিছু মানুষ যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার সুযোগ পায়। এরপর ১৯৯০ সালের দিকে এসে ডাইভারসিটি ভিসা তথা ডিভি লটারির সূত্র ধরেও অনেক মানুষ দেশটিতে যাওয়ার সুযোগ পায়। ডিভি লটারি প্রোগ্রামের আওতায় গ্রিন কার্ড পেয়ে দেশটির নাগরিকত্বও পেয়েছে অনেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের আদমশুমারি অনুযায়ী, ১৯৮০ সালের দিকে দেশটিতে বাংলাদেশী অভিবাসীর সংখ্যা ছিল হাজার ৮০০। ১৯৯০ সালে তা ২১ হাজার ৪১৪ জনে দাঁড়ায়। এরপর সংখ্যা আরো বেড়ে ২০০০ সালে ৯৫ হাজার ২৯৪ ২০১০ সালে লাখ ৫৩ হাজার ৬৯১ জনে দাঁড়ায়। ২০১০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অভিবাসীর সংখ্যা বেড়েছে লাখ হাজার ৩৬১।

জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশীদের অনেকে আইনসিদ্ধ পথে অথবা অবৈধভাবে প্রবেশ করছে। এর মধ্যে অনেককে আইনি প্রক্রিয়ায় অভিবাসী করেছে দেশটি। আর অবৈধভাবে প্রবেশসহ ফৌজদারি অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকা বা যুক্তরাষ্ট্রের আইনবিরোধী কাজ করার কারণে আট বছরে হাজার ৭৩১ বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইউএস সিটিজেনশিপ অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসেসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ২০০৯ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত হাজার ৭৩১ জন বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে দেশটি। এর মধ্যে ২০০৯ সালে ৩১০ জন, ২০১০ সালে ২৮১, ২০১১ সালে ২৪৮, ২০১২ সালে ২৩৮, ২০১৩ সালে ১৬৭, ২০১৪ সালে ১৬৯, ২০১৫ সালে ১৯৯ ২০১৬ সালে ১৯৯ বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠানো হয়।

সময়ে ৯৭৫ জন বাংলাদেশীর রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা গ্রহণ করে যুক্তরাষ্ট্র। ২০০৯ সালে ৯৪ জন, ২০১০ সালে ৭০, ২০১১ সালে ৬৯, ২০১২ সালে ৮৬, ২০১৩ সালে ১০৬, ২০১৪ সালে ১৮৯, ২০১৫ সালে ২২২ ২০১৬ সালে ১৩৭ বাংলাদেশীকে রাজনৈতিক আশ্রয় দিয়েছে দেশটি। আর ২০১৭ অর্থবছরে যুক্তরাষ্ট্রে আইনসিদ্ধভাবে স্থায়ী বাসিন্দা হওয়ার সুযোগ পেয়েছে ১৪ হাজার ৬৮৭ বাংলাদেশী। এর মধ্যে নতুন আবেদন ১৩ হাজার ১৫১টি। আর পূর্ণ নাগরিকত্ব পেয়েছে হাজার ৫০৫ বাংলাদেশী।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন