মঙ্গলবার | ডিসেম্বর ১০, ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শেষ পাতা

শনিবার যুবলীগের সম্মেলন, আলোচনায় পরশ

তানিম আহমেদ

ক্যাসিনো ব্যবসা, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ভাবমূর্তি সংকটে পড়েছে যুবলীগ। ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত সপ্তম জাতীয় কংগ্রেসের মাধ্যমে ক্লিন ইমেজের নেতা উপহার দিয়ে তা পুনরুদ্ধার করতে চায় আওয়ামী লীগ। এজন্য পরবর্তী চেয়ারম্যান হিসেবে আলোচনায় আছেন শেখ মণির বড় ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ। সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন সংগঠনটির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট বেলাল হোসেন। সংগঠন আওয়ামী লীগ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য সংগঠনটির ওপর ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। কারণে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে। আগামী সম্মেলনের মাধ্যমে যাতে গ্রহণযোগ্য কেউ সংগঠনটির দায়িত্বে আসেন, সে বিষয়টিও তদারক করছেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর এক সদস্য বলেন, শেখ ফজলে শামস পরশ যুবলীগের চেয়ারম্যান হবেন, এটা মোটামুটি নিশ্চিত। আর সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য সম্মেলনের দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এখন যার নাম সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে, তিনি হয়তো না- হতে পারেন। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর আরেক সদস্য বলেন, যুবলীগের চেয়ারম্যান পদে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণির বড় ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ, ছোট ছেলে শেখ ফজলে নূর তাপস জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর--আলম চৌধুরীর (লিটন চৌধুরী) বিষয়ে প্রাথমিকভাবে চিন্তা ছিল দলের হাইকমান্ডের। তাদের সঙ্গে বিষয়ে কথাও বলা হয়েছিল। কিন্তু সে সময় তাদের কেউই পদে আসতে আগ্রহ প্রকাশ করেননি। ঢাকা-১২ আসনের সংসদ সদস্য ফজলে নূর তাপস আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিব। অন্যদিকে লিটন চৌধুরী আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সাধারণ সম্পাদক। আর পরশ একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন।

জানা গেছে, যোগ্য-ত্যাগী নেতা বের করার জন্য এবার সিলেকশন পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। শেখ হাসিনার নির্দেশে সিলেকশন পদ্ধতিতে আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ স্বেচ্ছাসেবক লীগে এরই মধ্যে নেতা নির্বাচন করা হয়েছে। যুবলীগেও একই প্রক্রিয়ায় চেয়ারম্যান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবে।

গতকাল বিকালে যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক চয়ন ইসলাম সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার গণভবনের বাসায় সাক্ষাৎ করেছেন। সেখানে সম্মেলনের প্রস্তুতি সম্পর্কে তাকে অবহিত করেন।

যুবলীগে নতুন নেতৃত্বের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে বলেন, নতুন সম্মেলন মানেই নতুন মুখ। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ তার সহযোগী সংগঠনগুলোকে ঢেলে সাজানো হবে। অভিজ্ঞতার সমন্বয় ঘটিয়ে আমরা দলকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব। এখানে পরিবর্তন হবে, নতুন মুখ আসবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন