মঙ্গলবার | ডিসেম্বর ১০, ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

গভীর সংকটে ইউরোপের ইস্পাত শিল্প

৩ হাজার কর্মী ছাঁটাই টাটা স্টিলের

বণিক বার্তা ডেস্ক

আন্তর্জাতিক ইস্পাত বাজারের গভীর সংকটের জেরে ইউরোপের ব্যবসা থেকে তিন হাজার কর্মী ছাঁটাই করছে টাটা স্টিল। কোনো কারখানা বন্ধ না হলেও কোম্পানিটি বলছে, তারা এখন উচ্চমানসম্পন্ন পণ্যের ওপর জোর দেবে। ছাঁটাইয়ের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশই অফিসভিত্তিক কর্মী বলে জানায় ভারতভিত্তিক শিল্প জায়ান্টটি। খবর বিবিসি, ব্লুমবার্গ রয়টার্স।

গ্রীষ্মে জার্মান প্রতিদ্বন্দ্বী টিসেনক্রপের সঙ্গে একীভবন প্রক্রিয়া আটকে দেয়ার পর কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দেয় টাটা। ইউরোপে টাটা স্টিলের প্রধান নির্বাহী হেনরিক এডাম এক বিবৃতিতে বলেন, আমরা আজ আর্থিকভাবে শক্তিশালী এবং টেকসই ইউরোপীয় ব্যবসা স্থাপনে গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তাব নিয়ে আসছি।

কয়েক মাস আগেই ইস্পাতের ঝিমিয়ে থাকা চাহিদা সামাল দিতে লগ্নি কাটছাঁট করার কথা জানিয়েছিল টাটা স্টিল। যে তালিকায় ভারতের পাশাপাশি আছে ইউরোপও। তবে সেবার ইউরোপে তাদের বেশকিছু শাখায় তালা ঝোলানোর ইঙ্গিতও দেয়া হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট সূত্রের দাবি, এসব বদলের মধ্যে আছে জোগান কমানো, উৎপাদনে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার কর্মী কমিয়ে খরচ বাঁচানো। নেদারল্যান্ডস ওয়েলসে ইস্পাত তৈরির কারখানা ছাড়াও ইউরোপের বিভিন্ন অঞ্চলে টাটা স্টিলের সহযোগী প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

বহুদিন ধরেই ইস্পাতের চাহিদা তলানিতে থাকলেও জোগান বেশি। এতে ইস্পাতের বাজারদর কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। ইউরোপীয় ইস্পাত কারখানাগুলোর অভিযোগ, এর পেছনে চীনা প্রতিষ্ঠানগুলোর অতিরিক্ত সরবরাহ দায়ী। টাটা স্টিল বলছে, সারা বিশ্বের বাড়তি উৎপাদনের প্রবেশস্থল ইউরোপের বাজারে। ফলে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ছে ওই বাজার। তার ওপর রয়েছে প্রতিযোগিতার চাপ বিদ্যুতের চড়া খরচ। ভারতীয় ইস্পাত উৎপাদক প্রতিষ্ঠানটির দাবি, বাড়তি জোগান ঠেকাতে নিজেদের উৎপাদনও কমাচ্ছে তারা।

এপ্রিলে শুরু হওয়া চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে টাটা স্টিল ইউরোপের ইবিআইটিডিএ (সুদ, কর, অবচয় এমোরটাইজেশন-পূর্ব আয়) ৯০ শতাংশ হ্রাস পেয়ে কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। তার ওপর জার্মান শিল্প জায়ান্ট টিসেনক্রপের সঙ্গে একীভবন প্রয়াস আটকে দেয় ইউরোপীয় অ্যান্টি-ট্রাস্ট বিভাগ। দুই শিল্প জায়ান্টের একীভবনের ফলে সরবরাহকারীদের সংখ্যা কমে যাবে এবং দাম বৃদ্ধি পাবে বলে আশঙ্কা থেকে তাতে সায় দেননি ইইউ অ্যান্টি-ট্রাস্ট কর্তাব্যক্তিরা।

স্থানীয় কল-কারখানাগুলোয় চলমান প্রতিকূলতার কারণে গত আগস্টে ইইউতে ইস্পাত উৎপাদন ২০০৯ সালের আর্থিক সংকট-পরবর্তী সর্বনিম্নে নেমে আসে। ওয়ার্ল্ড স্টিল অ্যাসোসিয়েশনের উপাত্তে বলা হয়, ওই মাসে ইইউ জোটের ইস্পাত উৎপাদন হ্রাস পেয়ে কোটি ১৪ লাখ ৫০ হাজার টনে নেমে এসেছে।

বিশ্বের শীর্ষ ইস্পাত নির্মাতা আর্চেলরমিত্তাল বলছে, চলতি মাসে ইউরোপের ইস্পাত ব্যবহার শতাংশ হ্রাস পাবে, যা ২০১২ সালের পর অধিক হ্রাস। ইউরোপজুড়ে বেশ কয়েকটি কারখানায় কার্যক্রম কমিয়েছে আর্চেলরমিত্তাল। ইস্পাত শিল্পে শ্লথগতির ইঙ্গিতে মুনাফা পূর্বাভাস কমিয়েছে অস্ট্রিয়ার ইস্পাত নির্মাতা ভেস্তালপাইন এজি।

গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ইস্পাত নির্মাতা ব্রিটিশ স্টিলে ১২০ কোটি পাউন্ড বিনিয়োগের ঘোষণা দেয় চীনা প্রতিষ্ঠান জিংগাই। গত মে মাসে অবসায়নের পর ব্রিটিশ সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকা কোম্পানিটি এর মাধ্যমে তার চার হাজার কর্মীর কর্মসংস্থান সুরক্ষা করতে পারল। স্কানথর্পে টিসাইড কারখানায় ব্রিটিশ স্টিলের ওই চার হাজার কর্মী কাজ করছেন।

টাটা স্টিলের কর্মী ছাঁটাইয়ের ব্যাপারে ইউরোফারকে জিজ্ঞেস করা হলে ইউরোপীয় ইস্পাত শিল্পের প্রতিনিধিত্বকারী প্রতিষ্ঠানটি এক -মেইলে জানায়, বৈশ্বিকভাবে অতি উৎপাদন চাহিদায় অস্থিরতায় রকম কর্মী ছাঁটাই খুব উদ্বেগ হতাশাজনক প্রবণতা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন