রবিবার | ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

খবর

নতুন সাতটি বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

মোট ৭৯০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন নতুন সাতটি বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে বিদু্যুৎকেন্দ্রগুলো উদ্বোধন করেন তিনি। একই অনুষ্ঠানে আরো ২৩টি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

উদ্বোধন হওয়া বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো হচ্ছে আনোয়ারা ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র, রংপুর ১১৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র, কর্ণফুলী ১১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র, শিকলবাহা ১০৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র, পটিয়া ৫৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র, গাজীপুরে নির্মিত রুরাল পাওয়ার কোম্পানির ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র তেঁতুলিয়া মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎকেন্দ্র।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধা দিতে কাজ করে যাচ্ছে। কেউ অন্ধকারে থাকবে না, মুজিববর্ষে সব ঘরে আলো জ্বলবে, শতভাগ মানুষ পাবে বিদ্যুৎ সুবিধা।

তিনি বলেন, ২০২০ সালে জাতির পিতার জন্মশতবর্ষ আমরা উদযাপন করব। জাতির পিতার জন্মদিন ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে উদযাপন কর্মসূচি শুরু হবে, চলবে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস পর্যন্ত। তখন আর একটি ঘরেও অন্ধকার থাকবে না।

সারা দেশের ৯৪ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আলোকিত করাই আমাদের কাজ এবং সেটাই আমরা করে যাচ্ছি। যেখানে বিদ্যুতের গ্রিড লাইন পৌঁছেনি, সেসব প্রত্যন্ত পাহাড়ি, হাওড় চরাঞ্চলে সোলার প্যানেলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে সারা দেশে এই বিদ্যুতায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

সবাইকে বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদন বিতরণে যে খরচ হয় তার চেয়ে কম অর্থে আমরা বিদ্যুৎ সরবরাহ করছি। সবাই বিদ্যুৎ অপচয় বন্ধ করবেন, বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হবেন, সাশ্রয়ী হয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করবেন। সম্পদ জনগণের, জনগণের সম্পদ ব্যবহারে সবাই সাশ্রয়ী হবেন। তাছাড়া বিদ্যুৎ কম ব্যবহার করলে বিদ্যুৎ বিল কম আসবে। বিদ্যুৎ বিল যাতে কম আসে সেভাবে ব্যবহার করবেন।

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (আরইবি) ভৌগোলিক এলাকায় ৪৬১টি উপজেলার মধ্যে ২১১টি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আনা এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এল আরো ২৩টি উপজেলা। উপজেলাগুলো হচ্ছে বগুড়ার শেরপুর, গাবতলী শিবগঞ্জ উপজেলা, চট্টগ্রামের লোহাগাড়া, ফরিদপুরের মধুখালী, নগরকান্দা সালথা, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা সদর, ফুলছড়ি, হবিগঞ্জের মাধবপুর, নবীগঞ্জ, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ, মহেশপুর, কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ, নাটোরের বড়াইগ্রাম, লালপুর সিংড়া উপজেলা, নেত্রকোনার বারহাট্টা, মোহনগঞ্জ, পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া, কাউখালী ইন্দুরকানী উপজেলা।

ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে পরিচালিত অনুষ্ঠানে গণভবন প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি খনিজ সম্পদবিষয়ক উপদেষ্টা . তৌফিক--ইলাহী চৌধুরী, বিদ্যুৎ, জ্বালানি খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন