শনিবার | ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

সংকটে যুক্তরাষ্ট্রের সর্ববৃহৎ দুগ্ধ উৎপাদনকারী কোম্পানি

দেউলিয়াত্ব সুরক্ষার আবেদন

বণিক বার্তা ডেস্ক

চ্যাপ্টার ১১-এর অধীন দেউলিয়া সুরক্ষার জন্য আবেদন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম দুগ্ধ উৎপাদনকারী কোম্পানি ডিন ফুডস। মার্কিনিদের মধ্যে গরুর দুধ পানের হার কমায় সাম্প্রতিক বছরগুলো টানাপড়েনের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে ৯৪ বছরের পুরনো কোম্পানিটিকে। খবর সিএনএন ও সিএনবিসি।

ডালাসভিত্তিক কোম্পানিটির ব্র্যান্ডের মধ্যে রয়েছে ডেইরিপিওর, ট্রুমু, ল্যান্ড ওলেকস, কান্ট্রি ফ্রেশ, ডিন, গেয়ারলিক ফার্মস ও ফ্রেন্ডলিস। দুগ্ধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ব্যবসা চালিয়ে যেতে এবং কোম্পানির ঋণ ও নন-ফান্ডেড ঋণ পরিশোধে চ্যাপ্টার ১১ ব্যবহারের পরিকল্পনা করা হয়েছে। এছাড়া কোম্পানি বিক্রি করার চেষ্টা করছে ডিন ফুডস।

আর্থিক সংকটে থাকা কোম্পানিগুলোর জন্য দেউলিয়া প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে কোম্পানি চালু রাখার জন্য বিদ্যমান ঋণদাতাদের কাছ থেকে সাড়ে ৮ কোটি ডলার নিশ্চিত করতে পেরেছে ডিন ফুডস।

ডিন ফুডস আরো জানিয়েছে, কোম্পানির সব সম্পদেরউল্লেখযোগ্য অংশ বিক্রির বিষয়ে কানসাসভিত্তিক জাতীয় কো-অপারেটিভ ডেইরি ফারমার্স অব আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে। এদিকে পক্ষ দুটি যদি সম্পদ বিক্রি করতে সম্মত হয়ও, তবু কোম্পানি দেউলিয়া পরিস্থিতিতে থাকা অবস্থায় লেনদেনের ক্ষেত্রে উচ্চতর বা আরো ভালো প্রস্তাব থাকলে তা গ্রহণ করা হতে পারে।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ডিন ফুডস একটি কৌশলগত পর্যালোচনা শেষ করার কথা জানিয়েছিল। সে সময় কোম্পানিটি সম্পদ বিক্রি না করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২০১৯ কোম্পানিটির জন্য সবচেয়ে সংকটপূর্ণ একটি বছর হিসেবে হাজির হয়েছে। চলতি বছরের প্রথমার্থে কোম্পানির বিক্রি ৭ শতাংশ হ্রাস পায় ও মুনাফায় ১৪ শতাংশ পতন দেখা যায়। এছাড়া চলতি বছর ৮০ শতাংশ শেয়ারদর হারিয়েছে কোম্পানিটি।

প্রতিষ্ঠানের বিক্রি ও মুনাফা পতনের পেছনে প্রচলিত সাদা দুধ গ্রহণ তীব্রভাবে হ্রাস পাওয়াকে দায়ী করেছে ডিন ফুডস। কোম্পানিটি জানায়, গ্রাহকরা ক্রমে নন-ডেইরি দুধে আগ্রহী হওয়ায় বা ব্যক্তিগত লেবেলযুক্ত পণ্য আরো বেশি কিনতে শুরু করায় ব্যবসায় সংকট তৈরি হয়েছে। মার্কিন কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুসারে, গত দুই দশকে মার্কিনিদের মধ্যে মাথাপিছু দুধ পানের হার ২৬ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।

বিশ্বে বিকল্প দুধের বাজার ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভোক্তারা কম চিনিযুক্ত বা উদ্ভিদজাত দুধের প্রতি বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছে। ইউরোমনিটরের তথ্যানুসারে, চলতি বছর বিকল্প দুধের বৈশ্বিক বাজারের আকার ১ হাজার ৮০০ কোটি ডলার ছাড়াবে বলে আশা করা হচ্ছে, যা ২০১৮ সালের চেয়ে ৩ দশমিক ৫ শতাংশ বেশি। তবে এখনো বিকল্প দুধের বাজারের আকার প্রচলিত দুধের বাজারের চেয়ে অনেক ছোট। চলতি বছর প্রচলিত দুধের বাজারের আকার ১২ হাজার কোটি ডলারের সামান্য নিচে রয়েছে।

২০১৭ সালে নিজস্ব দুগ্ধপণ্য প্রক্রিয়াজাত করতে শুরু করে বিশ্বের বৃহত্তম খুচরা বিক্রেতা কোম্পানি ওয়ালমার্ট। ডিন ফুডসের ওপর খুচরা বিক্রেতা কোম্পানিটির এ সিদ্ধান্তের ব্যাপক প্রভাব পড়তে দেখা গেছে। ওয়ালমার্টের সিদ্ধান্তের ফলে আটটি প্রদেশের দুগ্ধ খামারিদের সঙ্গে ১০০টির বেশি চুক্তি বাতিল করতে হয়েছে ডিন ফুডসকে। এছাড়া ২০২৮ সালে গ্রোসারি চেইন ফুড লায়ন ডিন ফুডসের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করায় কোম্পানিটির সংকট আরো ঘনীভূত হয়। গত আটটি প্রান্তিকের মধ্যে সাতটিতেই নিট লোকসানের কথা জানিয়েছে ডিন ফুডস।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন