বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ২১, ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সংকেত

গেল সপ্তাহে প্রকাশিত

ঘোষিত লভ্যাংশ আর্থিক ফলাফল

এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে এটলাস বাংলাদেশের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৯৯ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা ১১ পয়সা। ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৩৩ টাকা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৪৮ টাকা।

সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন, ঘোষিত লভ্যাংশসহ অন্যান্য এজেন্ডা পর্যালোচনার জন্য আগামী ২১ ডিসেম্বর বেলা আড়াইটায় গাজীপুরের টঙ্গী শিল্পাঞ্চলে অবস্থিত কোম্পানির কারখানা প্রাঙ্গণে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৪ নভেম্বর।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) এটলাস বাংলাদেশের শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৩৮ পয়সা, আগের হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে যা ছিল ১৮ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৩৩ টাকা।

 

মতিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে মতিন স্পিনিংয়ের পরিচালনা পর্ষদ। আগামী ১২ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় গাজীপুরে অবস্থিত কোম্পানির নিজস্ব কারখানায় এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ হয়েছে ২৪ নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে মতিন স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৭ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল টাকা ১০ পয়সা। ৩০ জুন কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৪২ টাকা ৯০ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৪৩ টাকা ৬৩ পয়সা।

 

সুহূদ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে সুহূদ ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালনা পর্ষদ। আগামী ৩০ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় গাজীপুরে অবস্থিত মেঘের ছায়া কনভেনশন সেন্টারে কোম্পানির এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ হয়েছে ২৪ নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে সুহূদ ইন্ডাস্ট্রিজের ইপিএস হয়েছে টাকা ৩৮ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩৭ পয়সা। ৩০ জুন কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ২১ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১০ টাকা ৮৪ পয়সা।

 

এস আলম কোল্ড রোলড স্টিলস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে এস আলম কোল্ড রোলড স্টিলসের পরিচালনা পর্ষদ। আগামী বছরের জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম ক্লাবে এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ হয়েছে ২৭ নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির সম্মিলিত ইপিএস হয়েছে টাকা পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল টাকা ২৫ পয়সা। ৩০ জুন সম্মিলিত এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৯ টাকা ৪৬ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১৯ টাকা ৪১ পয়সা।

 

ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টস ব্লেন্ডার্স লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টসের পরিচালনা পর্ষদ। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় চট্টগ্রামের স্টেশন রোডে অবস্থিত বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনেরমোটেল সৈকত’- কোম্পানির ৫১তম এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৭ ডিসেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টসের ইপিএস হয়েছে ২৩ টাকা ৪৫ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ৩৬ টাকা ২৩ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৮২ টাকা ৭৬ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৬৯ টাকা ৩১ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টসের কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ১১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা, আগের হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে যা ছিল ১৬ লাখ ৩৯ হাজার টাকা। ইপিএস হয়েছে টাকা ১৪ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা ৬৫ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৮৩ টাকা ৯০ পয়সা।

এদিকে দেশে বিদ্যুত্ উত্পাদনে নিয়োজিত বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে শেল ব্র্যান্ডের লুব্রিক্যান্ট বিক্রি বিপণনের বিষয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানি ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টস র্যাংকস পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের মধ্যে স্বাক্ষরিত খসড়া চুক্তিতে অনুমোদন দিয়েছে ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টসের পরিচালনা পর্ষদ। গত সোমবার কোম্পানিটির ২৫০তম পর্ষদ সভায় অনুমোদন দেয়া হয়।

 

পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৯ টাকা পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ৩৪ টাকা ১৮ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৪২ টাকা ৮৫ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১২৬ টাকা ৭৮ পয়সা। আগামী বছরের ১৮ জানুয়ারি বেলা ১১টায় চট্টগ্রামের নেভি কনভেনশন সেন্টারে কোম্পানির এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬ নভেম্বর।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) পদ্মা অয়েলের ইপিএস হয়েছে টাকা ৪৯ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা। ৩০ সেপ্টেম্বর এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৫০ টাকা ৩৪ পয়সা।

 

ইস্টার্ন কেবলস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে ইস্টার্ন কেবলস লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। বিষয়টি পর্যালোচনার জন্য আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় কোম্পানির কারখানা প্রাঙ্গণে এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ ডিসেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে টাকা ৭২ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১৫ পয়সা। হিসাবে গত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান বেড়েছে টাকা ৫৭ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ২২ টাকা পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ৩০ টাকা ৪৭ পয়সা।

এদিকে অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ইস্টার্ন কেবলসের শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে টাকা ৪৯ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা ৫০ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৫৭ পয়সা।

 

এমএল ডায়িং লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের মোট ২০ শতাংশ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে এমএল ডায়িং লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে শতাংশ নগদ ১৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে টাকা পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা ৩৯ পয়সা। হিসাবে সদ্যসমাপ্ত হিসাব বছরে ইপিএস কমেছে ৩২ পয়সা বা ২৩ শতাংশ। ৩০ জুন কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৩০ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ২৫ টাকা পয়সা।

এদিকে অনুমোদিত মূলধন ২১০ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩১০ কোটি টাকায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০১৮ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এমএল ডায়িংয়ের পর্ষদ। লক্ষ্যে কোম্পানির সংঘস্মারক সংঘবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় পরিবর্তনও আনবে তারা। ১৯ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় ময়মনসিংহের ভালুকায় অবস্থিত তেপান্তর হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টে কোম্পানির বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। আর সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন, ঘোষিত লভ্যাংশসহ অন্যান্য এজেন্ডা পর্যালোচনার জন্য একই দিন দুপুর ১২টায় একই স্থানে কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজিএম ইজিএম-সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ নভেম্বর।

 

ফার্মা এইডস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য ৫০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে ফার্মা এইডসের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৫ টাকা ৪৮ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১৫ টাকা পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৭১ টাকা পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ৬০ টাকা ৮১ পয়সা।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় কেন্দ্রীয় কচিকাঁচার মেলা মিলনায়তনে কোম্পানির এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ডিসেম্বর।

 

শমরিতা হসপিটাল লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য মোট ১৫ শতাংশ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে শমরিতা হসপিটালের পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে ১০ শতাংশ নগদ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে টাকা ৭৯ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা ৩১ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৫২ টাকা ৫৫ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ৫১ টাকা ৯৫ পয়সা।

সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন, ঘোষিত লভ্যাংশসহ অন্যান্য এজেন্ডা পর্যালোচনার জন্য আগামী ২৯ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর তেজগাঁওয়ে এমএইচ শমরিতা হসপিটাল অ্যান্ড মেডিকেল কলেজে কোম্পানির এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ডিসেম্বর।

এদিকে অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) শমরিতা হসপিটালের ইপিএস হয়েছে ৯৩ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪৯ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৫৩ টাকা ৪৮ পয়সা।

 

পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে

 

 

টাকা ৩৩ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা ৭৩ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৪৩ টাকা ৭৬ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১০৮ টাকা ১২ পয়সা।

আগামী বছরের ২৫ জানুয়ারি সকাল ১০টায় রাজধানীর আফতাবনগরে পাওয়ার গ্রিডের সদর দপ্তর মিলনায়তনে কোম্পানিটির ২৩তম এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ ডিসেম্বর।

 

ন্যাশনাল টিউবস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে ন্যাশনাল টিউবস লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ১৬ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৭৫ টাকা ৩০ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৯৩ টাকা ৬২ পয়সা।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় গাজীপুরের টঙ্গী শিল্পাঞ্চলে কোম্পানির কারখানা প্রাঙ্গণে ৩৯তম এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ নভেম্বর।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ৫৩ লাখ ১৪ হাজার ৭৬৮ টাকা, যেখানে আগের হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে কর-পরবর্তী নিট লোকসান ছিল কোটি লাখ ৪৪ হাজার ৭১৫ টাকা। আলোচ্য সময়ে ন্যাশনাল টিউবসের মোট বিক্রি হয়েছে ১০ কোটি ৯০ লাখ ১৯ হাজার ৩৫৫ টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল কোটি ৪০ লাখ ৮৩ হাজার ১৯৪ টাকা। ইপিএস হয়েছে ১৭ পয়সা, যেখানে আগের হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ৭২ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৭৫ টাকা ৪৭ পয়সা।

 

ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালসের পরিচালনা পর্ষদ। ঘোষিত লভ্যাংশ অন্যান্য বিষয়ে পর্যালোচনার জন্য ১৫ ডিসেম্বর রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৮ নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির সম্মিলিত ইপিএস হয়েছে টাকা ৭৭ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল টাকা ৪৩ পয়সা। ৩০ জুন কোম্পানিটির সম্মিলিত এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৭৫ টাকা ১৯ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৭২ টাকা ৮৮ পয়সা।

এদিকে কোম্পানির সংঘবিধির ১১৫ নম্বর ধারায় পরিবর্তন আনতে এবং রিলেটেড পার্টি ট্রান্সেকশন-সংক্রান্ত অনুমোদনের জন্য বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) আহ্বানের পরামর্শ দিয়েছে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ। আগামী ১৫ ডিসেম্বর ইজিএম অনুষ্ঠিত হবে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৮ নভেম্বর।

 

সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য মোট ১১ শতাংশ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে সিলভা ফার্মার পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে শতাংশ নগদ লভ্যাংশ পাবেন কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকদের বাদ দিয়ে অন্য শেয়ারহোল্ডাররা (আইসিবি ব্যতীত) এছাড়া সব ধরনের শেয়ারহোল্ডার শতাংশ স্টক লভ্যাংশ পাবেন। ২৫ নভেম্বর বেলা ১১টায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে অবস্থিত হোয়াইট হল কনভেনশন সেন্টারে কোম্পানিটির এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে সিলভা ফার্মার কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ১৪ কোটি ৩৩ লাখ ২০ হাজার টাকা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল কোটি ২৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা। ইপিএস হয়েছে টাকা ১৫ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ৯৩ পয়সা। ৩০ জুন এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৪১ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৭ টাকা ১১ পয়সা।

এদিকে গবাদি পশুখাদ্য উত্পাদন, প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ বিপণনের জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের লাইসেন্স (নং-১৫৯) পেয়েছে সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। লাইসেন্সের অধীনে প্রাথমিকভাবে সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালসকে ২০ ধরনের পণ্য উত্পাদন-বিপণনের অনুমোদন দিয়েছে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর।

 

জাহিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড

 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের শতাংশ স্টক লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে জাহিন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬৩ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল টাকা পয়সা। ৩০ জুন কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৮১ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১২ টাকা ১৮ পয়সা।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর সকাল ৯টায় রাজধানীর ধানমন্ডি সাত মসজিদ রোডে অবস্থিত সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে জাহিন স্পিনিংয়ের ১২তম এজিএম আহ্বান করা হয়েছে। -সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৪ নভেম্বর।

 

 

বিএসইসির কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত

ভুয়া বিও আইডি বন্ধে কমিশনের নির্দেশনার সময়সীমা বৃদ্ধি

 

একই জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নম্বর, একই মোবাইল নম্বর একই ব্যাংক হিসাব নম্বর বিভিন্ন বেনিফিশারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্টে ব্যবহারের মতো বেআইনি কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে যে ব্যক্তির নামে বিও অ্যাকাউন্ট, সেই ব্যক্তির এনআইডি, ব্যাংক হিসাব মোবাইল নম্বর ব্যবহার নিশ্চিত করতে গত ২০ জুন একটি সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ওই সার্কুলারে কমিশন সব ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারীর (ডিপি) নির্দেশ দেয়া হয়েছিল, উপরোক্ত নিয়মের কোনো ব্যত্যয় থাকলে তা ২১ জুলাইয়ের মধ্যে সংশোধন করতে হবে। তবে সময়সীমা আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে কমিশন। মঙ্গলবার ৭০৪তম কমিশন সভায় বিএসইসি সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

নতুন তালিকাভুক্ত শেয়ারে সার্কিট ব্রেকার আরোপ করা হবে

 

পুঁজিবাজারে আইপিওর মাধ্যমে নতুন তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানির শেয়ার স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনের শুরুতে অস্বাভাবিক দর বাড়তে থাকে। অবশ্য কিছুদিন পরই শেয়ারের দর কমে যায় এবং বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কারণে নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ার লেনদেনের প্রথম দিন থেকেই সার্কিট বেকার আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসইসি। বিএসইসির ৭০৪তম কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিএসইসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, লেনদেনের প্রথম দিকে নতুন তালিকাভুক্ত শেয়ারের উচ্চমূল্য থাকায় এনআরবি (অনিবাসী বাংলাদেশী) কোটাসহ বিনিয়োগকারীরা লটারিতে প্রাপ্ত বিনিয়োগকারীরা প্রাথমিক শেয়ার উচ্চমূল্যে বিক্রি করে বাজার থেকে বেরিয়ে যায়। পরবর্তী সময়ে নতুন তালিকাভুক্ত শেয়ার তার প্রথম দিনের উচ্চমূল্য ধরে রাখতে পারে না। ফলে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং সূচকে নেতিবাচক প্রভাব পড়েও বাজার তার স্বাভাবিক গতি হারায়। অবস্থায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে নতুন তালিকাভুক্ত শেয়ার লেনদেনের প্রথম দিন থেকেই সার্কিট ব্রেকারের আওতায় থাকবে। এক্ষেত্রে প্রথম দিন ইস্যুমূল্যের ৫০ শতাংশ এবং দ্বিতীয় দিন লেনদেন হওয়া শেয়ারের রেফারেন্স মূল্য কিংবা আগের দিনের সমাপনী মূল্য কিংবা সমন্বিত প্রারম্ভিক মূল্যের ওপর ৫০ শতাংশ হারে সার্কিট ব্রেকার প্রযোজ্য হবে। তবে তৃতীয় দিন থেকে স্বাভাবিক সময়ের মতো ১০ শতাংশ হারে সার্কিট ব্রেকার প্রযোজ্য হবে।

 

মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগে স্টক ডিলারদের প্রভিশন সুবিধা প্রদানের সিদ্ধান্ত

 

মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে মূল্যহ্রাসজনিত লোকসানের বিপরীতে প্রভিশন (সঞ্চিতি) সংরক্ষণের সুবিধা পেয়ে থাকে আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মিউচুয়াল ফান্ড মার্চেন্ট ব্যাংকারগুলো। ডিএসই ব্রোকার অ্যাসোসিয়েশন (ডিবিএ) স্টক ডিলারদেরও একই ধরনের সুবিধা প্রদানের জন্য আবেদন করেছিল। এরই পরিপ্রেক্ষিতে স্টক ডিলারদের প্রভিশন সংরক্ষণের সুবিধা প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিষয়ে কমিশন শিগগিরই একটি নির্দেশনা জারি করবে বলে জানিয়েছে।

 

রিং শাইন টেক্সটাইলের এমডির স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ধারণকৃত শেয়ারে তিন বছরের লক-ইন

 

রিং শাইন টেক্সটাইল লিমিটেডের চেয়ারম্যান ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সুং উয়ে মিনের স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ইউনিভার্স নিটিং গার্মেন্টস লিমিটেড কর্তৃক রিং শাইনের ধারণকৃত সব শেয়ারের জন্য এক বছরের পরিবর্তে তিন বছরের লক-ইনের শর্ত আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) প্রতিষ্ঠানটির ৭০৪তম কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উল্লেখ্য, রিং শাইনের এমডি সুং উয়ে মিন ইউনিভার্স নিটিং গার্মেন্টসের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বরত। সম্প্রতি একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালেঅস্তিত্বহীন ইউনিভার্স নিটিং কোম্পানির নামে রিং শাইন টেক্সটাইলের প্রায় ২৫ কোটি টাকার শেয়ারশিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে দাবি করা হয়, ইউনিভার্স নিটিং গার্মেন্টসের চেয়ারম্যান সুং উয়ে মিন যে রিং শাইন টেক্সটাইলের এমডি হিসেবে দায়িত্বরত, তা কোম্পানির প্রসপেক্টাস এমনকি নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনেও উল্লেখ নেই। তবে পর্যালোচনায় বিএসইসি দেখেছে, রিং শাইনের প্রকাশিত প্রসপেক্টাসের ১৯৫ নম্বর পাতায় কোম্পানিটির এমডি সুং উয়ে মিনের অন্যান্য কোম্পানিতে সম্পৃক্ততার বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। এছাড়া ইউনিভার্স নিটিং কোম্পানির নিয়মিত পরিচালনা কার্যক্রমে তার সক্রিয় থাকার প্রমাণাদিও কমিশনে পাঠিয়েছে রিং শাইন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন