বুধবার | নভেম্বর ২০, ২০১৯ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

আন্তর্জাতিক খবর

রাম কিংবা রহিমভক্তি নয়, এখন প্রয়োজন ‘ভারতভক্তি’: মোদি

বণিক বার্তা অনলাইন

কয়েক দশকের প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি নিয়ে করা ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। আজ শনিবার ভারতের উচ্চ আদালতের দেয়া রায়ে উত্তর প্রদেশের অযোধ্যার বিরোধীপূর্ণ বাবরি মসজিদের জমি মন্দির নির্মাণে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ফলে রামের জন্মভূমি ট্রাস্ট এখন জমিটির অধিকারী হবে।

এছাড়া নতুন একটি মসজিদ নির্মাণে মুসলমান সম্প্রদায়কে ওই শহরেই আলাদা পাঁচ একরের জমি বরাদ্দ দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রায় ঘোষণার পর সেই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান নরেন্দ্র মোদি সবাইকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে একটি টুইট করেছেন। টুইটে তিনি উল্লেখ করেছেন, ‘সর্বোচ্চ আদালতের রায় কারও হার বা জিত নয়। রাম ভক্তি হোক বা রহিম ভক্তি, আমাদের দেশভক্তির উপর বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।’

তিনি আরো উল্লেখ করেন, ‘এই রায় আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যে কোন বিতর্ক আইনের মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব এই রায়ের মাধ্যমে তা প্রমাণিত হল। আমাদের বিচার ব্যবস্থা স্বাধীন, আইনের কাছে সবাই সমান এটা আবার প্রমাণিত হল।’

রায় ঘোষণার পর আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়ায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী জাফারিয়াব জিলানি বলেন, ‘আমরা এই রায়ে সন্তুষ্ট নই। এতে অনেক ভুল তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে। রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করার সুযোগ আছে কি না এবিষয়ে আলোচনা করব। এরপর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’ একইসঙ্গে আদালতের এই রায়ের প্রতি সম্মান রেখে সকলকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে ভারতের কট্টরপন্থি হিন্দুত্ববাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ আরএসএস এর প্রধান মোহন ভগবত রায়কে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, ‘এই রায়ের ফলে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের পথ প্রশস্ত হয়েছে।’ ওই স্থানে রাম মন্দির নির্মাণে মুসলমানদেরও সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।

এ রায়কে কেন্দ্র করে সারা ভারত জুরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে সেই দেশের আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। ২০ অক্টোবর থেকে অযোধ্যা শহরে জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। এছাড়া জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে আগামী রোববার থেকে শহরে কারফিউ জারি করা হবে বলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন