মঙ্গলবার | নভেম্বর ১২, ২০১৯ | ২৮ কার্তিক ১৪২৬

প্রথম পাতা

রোহিতের ব্যাটে সমতায় ভারত

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টি২০ ক্রিকেটে নিজের শততম ম্যাচটিকে স্মরণীয় করে রাখলেন ভারতের দায়িত্বপ্রাপ্ত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। মাত্র ৪৩ বলে গড়া তার ৮৫ রানের ইনিংসে ভর দিয়ে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশকে উইকেটে হারিয়েছে ভারত। জয়ে তিন ম্যাচ টি২০ সিরিজে এখন - সমতা। আগামী রোববার নাগপুরে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল।

গতকাল রাজকোটে রোহিতদের প্রতিশোধের আগুনে পুড়েছে মাহমুদউল্লাহর দল। বাংলাদেশের গড়া ১৫৩ রানের মামুলি ইনিংস ২৬ বল হাতে রেখেই টপকে গেছে ভারত। উদ্বোধনী জুটিতেই ম্যাচকে শেষ করে দেন রোহিত শিখর ধাওয়ান (৩১) মাত্র ৬৫ বলের জুটিতে ১১৮ রান যোগ করেন দুজনে। একটা পর্যায়ে মনে হচ্ছিল, নিজের শততম ম্যাচটিকে সেঞ্চুরিতে রাঙাবেন রোহিত। কিন্তু মাত্র ১৫ রানের জন্য শতকবঞ্চিত হন স্বাগতিক অধিনায়ক। তবে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন রোহিত।

ম্যাচে স্লগ ওভারে ব্যাটিং ব্যর্থতার খেসারত দিতে হয়েছে বাংলাদেশকে। প্রথম তিন ওভারে সফরকারীদের স্কোরবোর্ডে ছিল বিনা উইকেটে ২৪। হাতে পাঁচটি উইকেট থাকার পরও শেষ তিন ওভারে যোগ হয়েছে মোটে ১৭ রান। টি২০ ক্রিকেটের বড় স্কোর গড়ার পূর্বশর্ত স্লগ ওভারের মারকাটারি ব্যাটিং। সেই হিসাবে টি২০ ক্রিকেটের দর্শনের বিপরীতে হেঁটেছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। সমৃদ্ধ স্কোরের সম্ভাবনা শেষ হয়েছে স্লথ ওভারের ব্যাটিংয়ে। বাংলাদেশ ইনিংসে প্রথম ফিফটি এসেছে মাত্র ৩৪ বলে। আর শেষ ফিফটির জন্য ৪২ বল খেলতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

গতকাল দুই দলই মাঠে নামে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে। সিরিজের প্রথম ম্যাচে সাত উইকেটের বড় ব্যবধানে হারলেও দলে কোনো পরিবর্তন আনেনি স্বাগতিকরা। ম্যাচে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান রোহিত। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই ঝড় তোলেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস মোহাম্মদ নাইম। মাত্র . ওভারের জুটিতে ৬০ রান যোগ করেন দুজন। ভাগ্যের ছোঁয়া পেয়ে বাঁচলেও দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের বলি হন লিটন। আউট হওয়ার আগে মাত্র ২১ বলের ইনিংসে ২৯ রান করেন ওপেনার।

মজবুত ভিতকে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এগিয়ে নেন নাইম সৌম্য সরকার। ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৬ রান করে আউট হন তরুণ নাইম। উইকেটে সেট সৌম্যর সঙ্গে যোগ দেন আগের ম্যাচের নায়ক মুশফিকুর রহিম। সমৃদ্ধ ইনিংসের সম্ভাবনা তখন জোরালো। কিন্তু যুজবেন্দ্র চাহালের ঘূর্ণি জালে পথ হারায় বাংলাদেশ। ইনিংসের ১৩তম ওভারে দুজনকেই শিকারে পরিণত করলেন চাহাল। তার ওভারের প্রথম বলে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ধরা পড়লেন মুশফিক ( বলে ) ওভারের শেষ বলে আউট হন সৌম্য (২০ বলে ৩০) একই ওভারে দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। মাহমুদউল্লাহ চেষ্টা করেছিলেন। ২১ বলে ৩০ রান করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ১৮. ওভারের মাথায় সাজঘরমুখো হন মাহমুদউল্লাহ। এরপর শেষ বলে মাত্র ১১ রান জমা পড়ে বাংলাদেশ ইনিংসে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন