বুধবার | নভেম্বর ২০, ২০১৯ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শেষ পাতা

৩০০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক

রিলায়েন্স ফিন্যান্সের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে লিজিং কোম্পানির হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ শতকোটি টাকা বিদেশে পাচারের অভিযোগ অনুসন্ধান করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে বেশকিছু রেকর্ডপত্র তলব করেছে দুদক। এছাড়া ১৪ নভেম্বর তাকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে হাজির থাকতে বলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগটি অনুসন্ধান করছেন দুদকের উপপরিচালক মো. গুলশান আনোয়ার প্রধান।

প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে দুদকের অভিযোগে বলা হয়েছে, রিলায়েন্স ফিন্যান্সে এমডি থাকা অবস্থায় তার আত্মীয়স্বজনকে দিয়ে আরো বেশ কয়েকটি লিজিং কোম্পানির ইনডিপেনডেন্ট পরিচালক বানান এবং একক কর্তৃত্বে অদৃশ্য শক্তির মাধ্যমে পিপলস লিজিংসহ বেশ কয়েকটি লিজিং কোম্পানির টাকা বিভিন্ন কৌশলে আত্মসাৎ করেন। পিপলস লিজিংয়ে আমানতকারীদের অর্থ কৌশলে আত্মসাৎ করে কোম্পানিটিকে পথে বসিয়েছেন তিনি।

অভিযোগ অনুসন্ধানে ১৩ নভেম্বরের মধ্যে তার কাছে বেশকিছু রেকর্ডপত্র তলব করেছে দুদক। এর মধ্যে রয়েছে পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের পর্ষদ সদস্যদের নাম বিস্তারিত তথ্যাদি, ২০১৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত কত টাকা আমানতকারীদের কাছ থেকে উত্তোলন করা হয়েছে এবং কত টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে। পাশাপাশি বর্তমানে প্রতিষ্ঠানের কাছে কত টাকা রক্ষিত রয়েছে, সে তথ্যও চাওয়া হয়েছে। এছাড়া ২০১৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ওই কোম্পানির কত টাকা মূল্যের স্থাবর সম্পদ বিক্রি করা হয়েছে এবং কোম্পানির শেয়ার পোর্টফোলিও থেকে গ্রাহকদের মার্জিন লোনের বিপরীতে কত টাকার শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে, ওই অর্থ দিয়ে কী করা হয়েছে বা কোথায় বিনিয়োগ করা হয়েছে, সে তথ্যও চাওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে চাওয়া হয়েছে গ্রাহক ছাড়া আর কোন কোন প্রতিষ্ঠানের কত টাকা আমানত হিসেবে নেয়া হয়েছিল বা কোন কোন প্রতিষ্ঠানের কত টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে তার বিস্তারিত তথ্য। ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের কাছ থেকে কত টাকা আমানত হিসেবে নেয়া হয়েছিল বা কত টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে, সে তথ্যও চেয়েছে দুদক।

এসব তথ্য চেয়ে পিপলস লিজিং রিলায়েন্স ফিন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন দুদকের অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা। এছাড়া -সংক্রান্ত বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়ে আটটি ব্যাংকেও চিঠি পাঠিয়েছে দুদক।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন