শনিবার | ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

পণ্যবাজার

অসময়ের বৃষ্টিতে যুক্তরাষ্ট্রের শস্য সংগ্রহে শ্লথগতি

বণিক বার্তা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে চলছে ভুট্টা, গম সয়াবিন সংগ্রহ মৌসুম। কিন্তু দেশটির কৃষকরা এখন পর্যন্ত খুব সামান্য পরিমাণে শস্য সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছেন। মূলত শস্য সংগ্রহের ভরা মৌসুমে দেশটিতে দেখা দিয়েছে অসময়ের বৃষ্টি। এছাড়া সম্প্রতি কয়েকটি তুষার ঝড়ের পর দেশটির উত্তরাঞ্চলের তাপমাত্রা কমে শস্য সংগ্রহের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে অধিক নরম হওয়ায় ভূমি থেকে শস্য সংগ্রহ করতে সরঞ্জাম ব্যবহার সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে গত বসন্তে বিরূপ আবহাওয়ার কারণে দেশটিতে শস্য বপন দেরিতে শুরু হয়। ফলে এবার যুক্তরাষ্ট্রের শস্য সংগ্রহের গতি বেশ কমেছে। খবর রয়টার্স।

প্রতিকূল আবহাওয়ার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের শস্যের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বাণিজ্যযুদ্ধও। বিশ্বের বৃহৎ অর্থনীতির দুই দেশের মধ্যকার চলমান বাণিজ্যযুদ্ধের প্রভাবে আন্তর্জাতিক বাজারে অধিকাংশ ফসলের দাম নিম্নমুখী রয়েছে। বিশেষত চলতি বছর গম, ভুট্টা সয়াবিনের অব্যাহত দরপতন লক্ষ করা গেছে। এতে দেশটির কৃষকরা ফসল সংগ্রহ নতুন ফসল আবাদে দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

মিনেসোটা নর্থ ডাকোটা যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম সুগারবিট উৎপাদনকারী অঙ্গরাজ্য। নর্থ ডাকোটার সুগারবিট, সয়াবিন গমচাষী ড্যানিয়েল ইয়াংগ্রেন বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে ভোগান্তিতে আছেন নর্থ ডাকোটা মিনেসোটার চাষীরা। দুই অঙ্গরাজ্যে শস্য আবাদকারীরা খুব খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন। অসময়ে মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের ফলে কৃষকরা ফসল সংগ্রহ করতে পারছেন না। এদিকে ফসল সংগ্রহে ধীরগতি নতুন ফসল আবাদের সময় পিছিয়ে দিচ্ছে।

মিনেসোটা যুক্তরাষ্টের তৃতীয় শীর্ষ সয়াবিন উৎপাদনকারী অঞ্চল। মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) তথ্য অনুযায়ী, গত ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত অঙ্গরাজ্যের কৃষকরা ৬২ শতাংশ সয়াবিন সংগ্রহ করতে পেরেছেন। গত পাঁচ বছরের একই সময়ে অঞ্চলে কৃষিপণ্যটি সংগ্রহের গতি ছিল গড়ে ৯৩ শতাংশ। এদিকে নর্থ ডাকোটা যুক্তরাষ্ট্রের সয়াবিন উৎপাদনে অষ্টম শীর্ষ রাজ্য। একই সময়ে এলাকার কৃষকরা মাত্র ২৯ শতাংশ সয়াবিন শতাংশ ভুট্টা সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছেন। ড্যানিয়েল ইয়াংগ্রেন বলেন, অঞ্চলের তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি ফারেনহাইটে উঠলে তিনি সয়াবিন সংগ্রহ শুরু করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের শীর্ষ ভুট্টা সরবরাহকারী দ্বিতীয় শীর্ষ সয়াবিন রফতানিকারক দেশ। ইউএসডিএর তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের শুরু থেকে পর্যন্ত সমগ্র দেশে ভুট্টা সয়াবিন সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে যথাক্রমে ৪২ ৬২ শতাংশ, যা এক দশকের একই সমেয় মধ্যে সর্বনিম্ন গত পাঁচ বছরের গড় সংগ্রহের তুলনায় কম। গত পাঁচ বছরের সময়ে শস্যদ্বয়ের সংগ্রহের হার ছিল যথাক্রমে ৬১ ৭৮ শতাংশ।

নর্থ ডাকোটা স্টেট ইউনিভার্সিটির (এনডিএসইউ) কৃষিবিষয়ক অর্থনীতিবিদ অ্যান্ডি সেম্বনসন              জানান, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে শস্য উৎপাদন ক্রমেই কঠিন হয়ে উঠছে। প্রতিকূল পরিবেশ বাণিজ্য বিরোধের প্রভাবে দেশটির শস্য উৎপাদন কমে বছর বড় আকারের ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

শস্য সংগ্রহ হ্রাস নতুন ফসল আবাদে ধীরগতি ছাড়াও মাত্রাতিরিক্ত ভেজা আর্দ্র পরিস্থিতি এবং বছরের শুরুতে বিরাজমান প্রচণ্ড দাবদাহের কারণে এবার যুক্তরাষ্ট্রে উৎপাদিত শস্যের মান কমতে পারে বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন