শনিবার | ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

প্রথম পাতা

প্রথম টি২০-তে বায়ুদূষণের প্রভাব

কন্ডিশন আদর্শ নয়, তবে অভিযোগও নেই!

ক্রীড়া প্রতিবেদক

আগের দিন দেখা গেছে মাস্ক পরে অনুশীলন করেছেন বাংলাদেশের ওপেনার লিটন দাস। গতকালও শিষ্যদের অনুশীলন করানোর সময় মাস্ক পরে ছিলেন টাইগারদের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। দিওয়ালি থেকে দিল্লির বায়ুদূষণ নিয়ে বিস্তর রিপোর্টও হয়েছে। জনস্বাস্থ্যসংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারিও করা হয়েছে। এ অবস্থার মধ্য দিয়ে আগামীকাল (রোববার) দিল্লির অরুণ জেটলি (সাবেক ফিরোজ শাহ কোটলা) স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে সাকিববিহীন বাংলাদেশ।

আসন্ন বাংলাদেশ-ভারত সিরিজের আগে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে সাকিব আল হাসানের নিষিদ্ধ হওয়ার ঘটনার পাশাপাশি আলোচনার কেন্দ্রে দিল্লির বায়ুদূষণ। এ নিয়ে ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘গরম নেই। তবে বাতাস নেই। ধোঁয়াশার কারণে আবহাওয়া  পরিস্থিতি মোটেও ভালো নয়। ক্রিকেটের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ নেই। কন্ডিশন আদর্শ নয়। তবে এ নিয়ে আমরা কোনো অভিযোগ জানাতে চাই না। আর পরিস্থিতি দুই দলের জন্য একই। বায়ুদূষণ বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ওপর খুব একটা প্রভাব ফেলতে পারবে না বলেই মনে করছেন ডমিঙ্গো। তার কথায়, ‘আপনারা হয়তো খেয়াল করবেন যে বাংলাদেশেও কিছুটা বায়ুদূষণ আছে। ছেলেরা খেলা নিয়ে তেমন অভিযোগও করেনি। আর এটা তো মাত্র ৩ ঘণ্টার ব্যাপার। ধীরে ধীরে এটা সয়েও যাচ্ছে। বায়ুদূষণ নিয়ে আলাদা কোনো পরিকল্পনাও নেই বলে জানান বাংলাদেশের প্রধান কোচ ডমিঙ্গো।

আগের দিনই দিল্লির দূষণ নিয়ে কোনো অভিযোগ নেই বলে জানান বিশ্রামে থাকা বিরাট কোহলির জায়গায় ভারতীয় দলের নেতৃত্বের দায়িত্ব পাওয়া রোহিত শর্মা। মাত্রাতিরিক্ত ধোঁয়াশার কারণে প্রথম টি২০ ম্যাচের ভেনু পরিবর্তনের কথাও উঠেছিল। তবে ভেনু বদল হবে না বলে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন নবনির্বাচিত ভারত বোর্ডের প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলী। পরবর্তী সময়ে এ নিয়ে আরো সতর্ক থাকার কথা বলেছেন সৌরভ।

নিষেধাজ্ঞার কারণে সাকিব নেই। এদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি২০ সিরিজে অংশ নেবেন না ভারত অধিনায়ক কোহলি। আর এতে দুই দলের মধ্যে এক ধরনের ভারসাম্য তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন বাংলাদেশের প্রোটিয়া কোচ ডমিঙ্গো। তিনি বলেছেন, ‘ওদের বিরাট নেই, আমাদের নেই সাকিব। সাকিব নেই, এটা ভারতের জন্য একটা সুযোগ। আবার বিরাট নেই, এটা বাংলাদেশের জন্য সুযোগ। বিরাট থাকলে খুবই ভালো হতো। কেননা আমরা সবসময় বিশ্বসেরা প্লেয়ারদের সঙ্গে খেলতে চাই। যোগ করেন, ‘আমাদের প্লেয়ারদের জিজ্ঞাসা করে দেখুন, সবাই বিরাটের সঙ্গে খেলতে আগ্রহী। ভারত অধিনায়কের না খেলাটা হতাশার।

সাকিবের না থাকাটাকে দলের জন্য ক্ষতি হিসেবে স্বীকার করলেও এটা তরুণদের প্রমাণের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার একটা সুযোগ বলেই মনে করছেন ডমিঙ্গো। তিনি বলেছেন, ‘গত কয়েকদিন আমাদের কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে। অবশ্য সবসময় সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় থাকেও না। তবে ভারতে আসার পর ছেলেরা খুশি। তারা খুবই পরিশ্রম করছে। সবাইকে সুখী দেখাচ্ছে। ভালো প্রস্তুতির জন্য এগুলো দরকারি। আরো বলেন, ‘সাকিবকে সবাই মিস করবে। সে অসাধারণ একজন অলরাউন্ডার। তাকে না পাওয়াটা অবশ্যই বড় ক্ষতি। এ নিয়ে কোনো বিতর্কই নেই। একটা ভুলের জন্য তাকে চড়া মাশুল গুনতে হচ্ছে। তবে তার না থাকাটা দলের অন্যদের জন্য প্রমাণের সুযোগ। আর কোচ হিসেবে আমার দায়িত্ব দলের পারফরম্যান্সে যেন প্রভাব না পড়ে সেভাবেই ছেলেদের প্রস্তুত রাখা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন