বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ২১, ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ফিচার

পরিবেশের ক্ষতি করছে মাংসভোজীরা!

বণিক বার্তা অনলাইন

জানেন কি আমাদের খাদ্যাভাসও পরিবেশ দূষণে নেতিবাচক ভূমিকা রাখে? সেদিক থেকে যারা মাংসভোজী ও মাংসজাত পণ্য উৎপাদন করেন তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে পরিবেশের।

 

মাংসজাত খাদ্যপণ্য তৈরির জন্য গবাদিপশু উৎপাদনে বাড়ছে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন, বননিধন, পানি দূষণ ও বায়ু দূষণ। গোটা বিশ্বে গবাদিপশু উৎপাদনে ব্যবহৃত হচ্ছে ৮৩ শতাংশ জমি ও নির্গমন হচ্ছে ৬০ শতাংশ  গ্রিন হাউজ গ্যাস। সেদিকে থেকে দেখলে মাংসজাত পণ্য থেকে পাওয়া যায় মোটে ১৮ শতাংশ ক্যালরি ও ৩৭ শতাংশ প্রোটিন। এককথায় বলতে গেলে উপকারের চেয়ে ক্ষতির পরিমাণই কিন্তু বেশি।

 

২০১৮ সালে ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের এক গবেষণায় দেখা যায়, একটি কোয়ার্টার ভেগান বার্গার ও কোয়ার্টার বিফ বার্গারের পুষ্টিমান প্রায় একই। কিন্তু ভেগান বার্গার তৈরিতে ৯০ শতাংশ কম গ্রিন হাউজ গ্যাস উৎপন্ন হয়, ৪৬ শতাংশ কম শক্তিক্ষয় হয়, পানি অপচয় কমে যায় ৯৯ দশমিক ৫ শতাংশ। অন্যদিকে, এসব ভেষজ উপাদান উৎপাদনে জমি লাগে ৯৩ শতাংশেরও কম। ফলে দেখা যায়, যারা নিরামিষভোজী তারা স্বাস্থ্যের পাশাপাশি পরিবেশের পক্ষেও সুফল বয়ে আনে। কয়েকটি প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ভেগান ডায়েট গ্রিন হাউজ গ্যাস নির্গমনের মাত্রা কমায়।

 

জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত জাতিসংঘের আন্তঃসরকারী প্যানেলের ২০১৯ সালের রিপোর্টে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন সীমিত করার একটি বড় সুযোগ হিসাবে উদ্ভিদ-ভিত্তিক ডায়েটে অভ্যস্থ হওয়ার ওপর জোর দেয়া হয়েছে।

 

ল্যানসেট জার্নালের ২০১৯ সালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, উদ্ভিদ-ভিত্তিক ডায়েটে অভ্যস্থ হলে ২০৫০ সালের মধ্যে খাদ্য-সম্পর্কিত গ্রিন হাউজ গ্যাস নির্গমনকে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত হ্রাস করা যাবে। এছাড়াও ২০১৫ সালে জার্নাল অব ক্লিনার, খাদ্য উৎপাদনের সময় গ্রিনহাউজ গ্যাস নির্গমন কমানোর জন্য নিরামিষ খাদ্যাভাসে অভ্যস্থ হওয়ার কথা উল্লেখ করেছে। এতে করে ২০ থেকে ৫৫ শতাংশ গ্রিন হাউজ গ্যাস নির্গমন কমানো সম্ভব। কারণ নিরামিষভোজীদের চেয়ে মাংসভোজীরা ২ দশমিক ৫ গুণ বেশি কার্বন ডাই-অক্সাইড উৎপন্ন করে।

 

উইসকনসিন মেডিসন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা মার্কিন খাদ্য ব্যবস্থায় প্রাণী-ভিত্তিক খাদ্য সামগ্রী উৎপাদনের পরিবর্তে উদ্ভিদ-ভিত্তিক খাদ্য উৎপাদন করার একটি হিসাব দেখে বলেন, প্রাণী-ভিত্তিক পণ্যের স্থলে উদ্ভিদ-ভিত্তিক পণ্য প্রতিস্থাপন করে ৩৫০ মিলিয়ন অতিরিক্ত ভোক্তাকে ধরে রাখা যাবে। তাছাড়া উদ্ভিদভিত্তিক খাদ্যাভাসে অভ্যস্থ হলে আবর্জনাও কম উৎপন্ন হয়। ফলে পরিবেশ দূষিত হয় কম।

 

সূত্র: বিবিসি ও ভেগান আউট রিচ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন