বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ২১, ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ফিচার

খাবার নিয়ে যত ভুল ধারণা

বণিক বার্তা অনলাইন

সুস্বাস্থ্য ধরে রাখতে আমরা কত ধরনের খাবারই তো গ্রহণ করি। মেনে চলি নানা ধরনের নিয়মকানুন। কিন্তু এগুলোর সবই কি সঠিকভাবে কাজ করে? এ প্রশ্নের উত্তর আমাদের অনেকেরই অজানা। এই যেমন রোজ ১০ গ্লাস পানি পান, পর্যাপ্ত সালাদ গ্রহণ, কার্বহাউড্রেট ও কোলেস্টেরলজাতীয় খাবার কম গ্রহণ মানেই সেরা ডায়েট বলে আমরা ভাবি। তবে অনেক সময়ই দেখা যায়, এসব মেনে চলেও সঠিক ওজন ও সুস্বাস্থ্য ধরে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। এর অন্যতম কারণ হতে পারে খাদ্য ও খাদ্যাভাস সম্পর্কে আমাদের ভুল ধারণা।

খেয়াল করলে দেখবেন, অনেকে একেবারেই ফ্যাটমুক্ত সালাদ ড্রেসার ব্যবহার করেন। ভাবা হয়, এভাবে সালাদ তৈরি করলেই বুঝি উপকারিতা বেশি পাওয়া যাবে। তবে সালাদের উপকরণগুলো পুষ্টির খুব ভালো উৎস হলেও সামান্য পরিমাণ ফ্যাট যদি এতে মেশানো যায় তাহলে উপকারটা একটু বেশি হয়। তাই বলে সালাদে পনির বা মেয়োনেজ মেশাতে যাবেন না। এর পরিবর্তে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল, বাদাম ও বীজ মেশাতে পারেন।

আচারকে প্রোবায়োটিক ও কম ক্যালরিবহুল খাবার মনে করলে কিছুটা ভুল করবেন। আচার তৈরির সময় তা লবণে এপিঠ-ওপিঠ করে তারপর ডুবো তেলে বয়ামে রাখা হয়। এতে ক্যালরি রয়েছে বৈকি! তাই এর পরিবর্তে খেতে পারেন অল্প লবণ দেয়া ধনেপাতা ও পুদিনাপাতার চাটনি।

একটা সময় বলা হতো, দিনের যেকোনো এক বেলার খাবার বাদ দিলে সহজে ওজন কমানো যাবে। তবে এটা একেবারেই ভুল ধারণা। এতে করে যে কেবল বেশি ক্ষুধা লাগে তাই না, পরবর্তীতে একবারে বেশি খাওয়া হয়।

সুস্থ থাকার জন্য অনেকেই ভিটামিন সম্পূরক গ্রহণ করেন। আর এগুলোর মধ্যে মাল্টিভিটামিন সম্পূরকে ঠিক সেসব ভিটামিনই থাকে যা সারাদিনে আপনার শরীরের জন্য প্রয়োজন। তবে শুধু ভিটামিন ছাড়াও শরীরে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য উপাদানের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। তাই সম্পূরকের চেয়ে ভিটামিন ও খনিজ সমৃদ্ধ সঠিক খাদ্যাভাসে অভ্যস্থ হতে হবে।

ওজন ঠিক রাখতে খুব পরিচিত একটি অভ্যাস রয়েছে। সেটি হচ্ছে, সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে ঈষদুষ্ণ জলে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়া। কিন্তু বর্তমানে বাজারে যেসব মধু পাওয়া যায় সেগুলো খাঁটি তো নয়ই বরং চিনিতে ভরপুর। ফলে এগুলো খেলে উল্টো খারাপ ফলাফল পাওয়ার আশঙ্কাই বেশি। তবে আপনি যদি খাঁটি মধু পেয়েও যান তাহলে গ্রীষ্মকালে সেটা খাওয়া ঠিক হবে না, এতে করে শরীর আরও বেশি উত্তপ্ত হবে। ঈষদুষ্ণ গরম জলে কেবল লেবুর রস মিশিয়ে খেলেই যথেষ্ট। এতে করেই শরীর থেকে সমস্ত টক্সিন বেরিয়ে যাবে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন