রবিবার | নভেম্বর ১৭, ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান

প্রত্যাহার করা হচ্ছে জেনট্যাক

বণিক বার্তা ডেস্ক

 বিশ্বের সবগুলো বাজার থেকে অম্লরোগ/অম্বল বা হার্টবার্নের জন্য নিজেদের জনপ্রিয় ওষুধ জেনট্যাক প্রত্যাহার করে নিচ্ছে ব্রিটিশ বহুজাতিক ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন (জিএসকে) যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) ওষুধটিতে অগ্রহণযোগ্য মাত্রায় ক্যান্সার সৃষ্টিকারী সম্ভাব্য উপাদান বা অপদ্রব্য পাওয়ার কয়েক দিন পর তা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে জিএসকে খবর রয়টার্স

রেনিটিডিন জেনেরিকের জেনট্যাক এখন পর্যন্ত সর্বশেষ ওষুধ যেটিতে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী অপদ্রব্য পাওয়া গেল উল্লেখ্য, গত বছর থেকে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ হূদরোগে ব্যবহূত বেশকিছু ওষুধ প্রত্যাহার করে নিতে শুরু করেছে

ব্রিটেনের ওষুধ, নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, এন-নাইট্রোসোডিয়ামইথাইলামাইন (এনডিএমএ) নামের একটি সম্ভাব্য ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদানের কারণে জিএসকে চার ধরনের জেনট্যাক ওষুধ প্রত্যাহার করে নিচ্ছে, যেগুলো কেবল ব্যবস্থাপত্রে দেয়া হয় এর মধ্যে রয়েছে একটি সিরাপ, একটি ইনজেকশন এবং ১৫০ মিলিগ্রাম (মিগ্রা) ৩০০ মিগ্রা ডোজের ট্যাবলেট

এদিকে ভিন্ন একটি কোম্পানির প্রস্তুতকৃত ব্যবস্থাপত্র ছাড়া (ওভার দ্য কাউন্টার) ৭৫ মিগ্রা ডোজের জেনট্যাক প্রত্যাহার কর্মসূচির আওতায় নেই বলে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি জানিয়েছে

জিএসকের এক মুখপাত্র রয়টার্সকে নিশ্চিত করে জানিয়েছে, কোম্পানি এরই মধ্যে জেনট্যাক ওষুধগুলোর সব ধরনের ডোজের সরবরাহ, বিতরণ বাজারে ছাড়া স্থগিত করার তথ্য এমএইচআরএকে (মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রডাক্টস রেগুলেটরি এজেন্সি) জানিয়ে দিয়েছে জিএসকে এনডিএমএর সম্ভাব্য উৎস নিয়ে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছিল বলে মুখপাত্র জানিয়েছেন

উৎপাদন প্রক্রিয়ায় পরিবর্তনের মাধ্যমে অপদ্রব্যটি ওষুধটিতে প্রবেশ করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে

এমএইচআরএ জানিয়েছে, এরই মধ্যে চলতি সপ্তাহে স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিতদের ওষুধটির তাত্ক্ষণিক সরবরাহ বন্ধ, অবশিষ্ট সব পণ্য পৃথক্করণ সরবরাহকারকদের কাছে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে এছাড়া রোগীদের তাদের ওষুধ গ্রহণ বন্ধ না করার জন্য বলা হয়েছে পরবর্তী নিয়মিত সাক্ষাতের সময় ছাড়া চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই বলেও জানিয়ে দেয়া হয়েছে তবে যদি তাদের মধ্যে কোনো সমস্যা বা ভীতি দেখা দেয়, তবে তারা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করতে পারবে

অনলাইন ফার্মেসি ভ্যালিসিওর সর্বপ্রথম অপদ্রব্যের কথা সামনে আনার পর রেনিটিডিনের নিরাপদ ব্যবহার পর্যালোচনা করা হচ্ছে বলে গত মাসে মার্কিন ইউরোপীয় স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো জানিয়েছে

এফডিএ জানিয়েছে, ভ্যালিসিওরের উচ্চতাপমাত্রায় পরীক্ষা পদ্ধতিতে রেনিটিডিন জাতীয় ওষুধগুলোয় অতি উচ্চমাত্রার এনডিএমএ উত্পন্ন হতে দেখা গেছে উল্লেখ্য, এর আগে এআরবিএস নামের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের কিছু ওষুধে এনডিএমএ পাওয়া গিয়েছিল

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন