মঙ্গলবার | অক্টোবর ২২, ২০১৯ | ৭ কার্তিক ১৪২৬

শিল্প বাণিজ্য

রাজধানীতে শুরু হচ্ছে প্রিন্টেক বাংলাদেশ ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুদ্রণ শিল্পের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি, মেশিনারিজ, কাগজ, কালি, স্পেয়ার্স ও নানা যন্ত্রপাতি নিয়ে ১০ অক্টোবর শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীপ্রিন্টেক বাংলাদেশ ২০১৯। প্রথমবারের মতো আয়োজিত এ প্রদর্শনীতে সব ধরনের প্রিন্টিং ও প্যাকেজিং শিল্পসংশ্লিষ্ট আন্তর্জাতিক পণ্য ও প্রযুক্তি তুলে ধরা হবে। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় অনুষ্ঠেয় এ প্রদর্শনী যৌথভাবে আয়োজন করেছে আস্ক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন্স প্রাইভেট লিমিটেড ও বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতি (পিআইএবি)

গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রিন্টেক ২০১৯ সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পিআইএবির চেয়ারম্যান শহীদ সেরনিয়াবাত, আস্ক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন্স প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক টিপু সুলতান ভূঁইয়াসহ আয়োজক প্রতিষ্ঠান দুটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শহীদ সেরনিয়াবাত বলেন, বর্তমানে মুদ্রণ শিল্প বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনীতিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক। এ শিল্পের অবকাঠামোগত উন্নয়ন, আধুনিক প্রযুক্তি এবং কারিগরি শিক্ষা প্রসারে এ ধরনের প্রদর্শনী এখন সময়ের দাবি। বর্তমানে দেশে প্রায় সাত হাজার মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এর মধ্যে প্রায় দুই হাজার প্রতিষ্ঠান প্রযুক্তির ব্যবহারে আধুনিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিবেচ্য। প্রিন্টেক বাংলাদেশের উদ্দেশ্যই এ খাতের সব প্রতিষ্ঠানকে আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে উন্নীত করা।

টিপু সুলতান ভূঁইয়া বলেন, প্রথমবারের মতো এ শিল্পের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর আয়োজন করতে গিয়ে আমরা যে অভাবনীয় সাড়া পেয়েছি, তা সত্যিই ইতিবাচক। মূলত স্থানীয় শিল্পের কাছে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি তুলে ধরতেই আমাদের এ প্রচেষ্টা। আমরা পিএইচডি চেম্বার অব কমার্স এবং আইপিএএমএর সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতা এবং তাদের অংশগ্রহণে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ভবিষ্যতেও তাদের এ ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছি। একই সঙ্গে বাংলাদেশএশিয়া প্রিন্টের আয়োজন করায় আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।

আয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় শিল্পের দোরগোড়ায় আন্তর্জাতিক অভিনব ও সর্বাধুনিক প্রযুক্তি তুলে ধরতে এবং বাংলাদেশের এ শিল্পের সঙ্গে অন্যান্য দেশের মধ্যে সেতুবন্ধ তৈরি করতেই মূলত এ প্রচেষ্টা। ইন্ডিয়ান প্রিন্টিং প্যাকেজিং অ্যান্ড অ্যালায়েড মেশিনারি ম্যানুুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন (আইপিএএমএ) ও স্ক্রিন প্রিন্টারস অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া (এসপিআইএ) থেকে প্রায় ৬০টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করছে এ প্রদর্শনীতে। একই সঙ্গে চীন ও বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও এতে অংশ নিচ্ছে। প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বিনা মূল্যে সবার জন্য প্রদর্শনীটি ১২ অক্টোবর পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে।

এ প্রদর্শনীর সঙ্গে একই ভেনুতে আয়োজিতস্ক্রিনটেক্স বাংলাদেশ ২০১৯’-এ স্ক্রিন, ডিজিটাল, সাবলিমেশন ও টেক্সটাইল প্রিন্টিংয়ের ওপর প্রি-প্রেস, ইন-প্রেস, পোস্ট প্রেস, ফিনিশিং, কনভার্টিং, সাইনেজ, স্ক্রিন, করুগেশন, কাগজ, প্যাকেজিং, সফটওয়্যার, কালি, মেশিন স্পেয়ার্স, কেমিক্যাল ও সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হবে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন