বুধবার | জুলাই ১৫, ২০২০ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

খবর

ডাম্পিং স্টেশনে স্থান সংকট

লক্কড়-ঝক্কড় গাড়ি ধরেও ছেড়ে দিচ্ছে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর আগারগাঁও এলাকায় দুটি ডাম্পিং স্টেশন ছিল ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একটি ছিল আগারগাঁও থানার ঠিক পাশে। এখানে মামলার আলামত হিসেবে জব্দ করা বিভিন্ন মোটরযান রাখা হতো। আরেকটি ডাম্পিং স্টেশন ছিল তালতলায়। অর্থনৈতিক আয়ু পার হওয়া লক্কড়-ঝক্কড় মোটরযানের ঠাঁই হতো এখানে। বর্তমানে আগারগাঁও থানাসংলগ্ন ডাম্পিং স্টেশনটি তুলে দেয়া হয়েছে। এখানে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) অন্যদিকে মেট্রোরেলের চলমান কাজের কারণে পরিসর কমে অর্ধেকে নেমে এসেছে তালতলার ডাম্পিং স্টেশন। এখানে ব্যবহার অনুপযোগী গাড়িতে তিল ধারণের জায়গা নেই। তাই আনফিট লক্কড়-ঝক্কড় যান ধরেও ছেড়ে দিচ্ছে পুলিশ।

আগারগাঁওয়ের ডাম্পিং স্টেশনটি আবার ডিএমপির স্থায়ী ডাম্পিং স্টেশন নয়। পরিসংখ্যান ভবনের সামনের সড়কের একাংশ সাময়িকভাবে ডাম্পিং স্টেশন হিসেবে ব্যবহূত হচ্ছে। এর বাইরে আরো তিনটি ডাম্পিং স্টেশন রয়েছে ডিএমপির। শাহবাগ, কাঁচপুর যাত্রাবাড়ীতে রয়েছে এসব স্টেশন। এর বাইরে ছোট পরিসরে দুটি ডাম্পিং স্টেশন রয়েছে গাবতলী দারুস সালাম এলাকায়। ঢাকার ৪৯টি থানাতেও কিছু গাড়ি রাখার ব্যবস্থা রয়েছে, তবে থানাগুলোয় সচরাচর মামলার আলামত হিসেবে জব্দ করা গাড়িগুলোই রাখা হয়। সরেজমিন ঢাকার ডাম্পিং স্টেশনগুলো ঘুরে সবকটিতেই জায়গার স্বল্পতা (স্থান সংকট) লক্ষ করা গেছে। কোনোটির নেই নতুন করে গাড়ির রাখার সক্ষমতা। পুলিশ সদর দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নতুন কোনো গাড়ি এলে সেগুলো আর ডাম্পিং এলাকায় রাখা যাচ্ছে না। রাখতে হচ্ছে রাস্তার ওপর।

ঢাকায় আনফিট গাড়ি পাঁচ লাখের বেশি। এর একটা বড় অংশ রাস্তায় চলার অনুপযোগী। আয়ুষ্কাল পেরিয়ে যাওয়া এসব গাড়ি চাইলেও ডাম্পিংয়ে পাঠাতে পারছে না পুলিশ। রাজধানীতে পুলিশের যে তিনটি ডাম্পিং স্টেশন রয়েছে, তার সবই পুরনো গাড়িতে টইটম্বুর। ডাম্পিং স্টেশনে জায়গাস্বল্পতার কারণে লক্কড়-ঝক্কড় গাড়িকে মামলা দিয়েই ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। যেগুলো ফের অবাদে চলাচল করছে রাস্তায়।

জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের সর্বশেষ সভাতেও বিষয়টি তুলেছেন ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সভায় পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, ঢাকা শহরের লক্কড়-ঝক্কড় গাড়ির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। কিন্তু পুলিশের ডাম্পিং জোনে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় এসব যানবাহন জব্দ করা সম্ভব হচ্ছে না।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) গত ২১ আগস্ট পর্যন্ত তথ্য বলছে, সারা দেশে ফিটনেসবিহীন গাড়ির সংখ্যা লাখ ??

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন