বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

লাইফস্টাইল

লোহিত রক্তকণিকা বাড়াতে চাইলে...

ফিচার ডেস্ক

দ্রুত ক্লান্তি ভর করা, অবসাদ জেঁকে বসা, এমন উপসর্গ কিন্তু অ্যানিমিয়ার কথাই বলে। এর মূল কারণ হচ্ছে লোহিত রক্তকণিকা বা আরবিসি কমে যাওয়া। লোহিত রক্তকণিকা কমে গেলে পুরো শরীরে অক্সিজেন সরবরাহ করতে বেশ ঝামেলা পোহাতে হয় বলেই দ্রুত ক্লান্ত হয়ে পড়তে হয়। প্রতিদিন শরীর মিলিয়ন পরিমাণ লোহিত রক্তকণিকা উত্পন্ন করে। কিন্তু যাদের রক্তে ঠিক পরিমাণ লোহিত কণিকা উত্পন্ন হয় না, তারাই মূলত অ্যানিমিয়ায় ভোগে। অ্যানিমিয়ায় ভুগছে যারা, তারা কিছু বিষয় জেনে রাখলে আরবিসি সংখ্যা বাড়াতে ডাক্তারবাড়ি ছুটতে হবে না। এমন কিছু পুষ্টি উপাদান রাখতে পারেন আপনার খাদ্যতালিকায়, যা লোহিত রক্তকণিকা বাড়াতে সাহায্য করবে। জেনে নিন সেসব সম্পর্কে

 

আয়রনসমৃদ্ধ খাবার

লোহিত রক্তকণিকা বাড়িয়ে তুলতে আয়রনসমৃদ্ধ খাবারের কথা বলা হয় বারবারই। কেননা শরীরে আয়রনের ঘাটতি থেকে লোহিত রক্তকণিকা কমে যায়। অ্যানিমিয়ায় ভুগছে যারা, তারা গরুর মাংস, গরুর যকৃৎ, সবুজ শাকসবজি, ডিমের কুসুম, শিম, কলাই ইত্যাদি খেতে পারেন নিয়মিত। এছাড়া সকালের নাশতায় রাখতে পারেন শিমের বিচি কিংবা যেকোনো ধরনের বিন। অ্যানিমিয়ায় ভুক্তভোগীরা যদি বিকালের নাশতায় কিছুটা কিশমিশ খেতে পারেন, তাহলেও মন্দ হয় না। কেননা লোহিত রক্তকণিকা বেড়ে যায় কিশমিশ খেলেও।

 

ফলিক অ্যাসিড রয়েছে এমন খাবারও রাখুন


অ্যানিমিয়া হলে ভিটামিন বি৯ বা ফলিক অ্যাসিড পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রহণ করার কথা বলা হয়ে থাকে। সেদিক থেকে রুটি, শাকসবজি, ডাল, মটরশুঁটি, বাদাম এসব খাবার খেতে পারেন। এতে ফলিক অ্যাসিডের ঘাটতি কমবে তথা অ্যানিমিয়া থেকেও মুক্তি মিলবে।

 

ভিটামিন বি১২-এর অপর্যাপ্ততা

অ্যানিমিয়া হওয়ার পেছনে আরো একটি কারণ হিসেবে দেখা হয় ভিটামিন বি১২-এর অপর্যাপ্ততা। ধরনের পুষ্টি উপাদান লোহিত রক্তকণিকা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে। ফলে খেয়াল রাখুন পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন বি১২ গ্রহণ করছেন কিনা প্রতিদিন। মাছ, মাংস (গরুর মাংস) দুধ, পনির, ডিম ইত্যাদি হচ্ছে ভিটামিন বি১২-এর ভালো উৎস। তাই অ্যানিমিয়া থেকে মুক্তি পেতে তথা লোহিত রক্তকণিকার অভাব ঘোচাতে বেছে নিতে পারেন ভিটামিন বি১২ সমৃদ্ধ খাবার।

 

বাদ যাবে না ভিটামিন

লোহিত রক্তকণিকা বাড়িয়ে তুলতে বেশ সহায়ক ভূমিকা রাখে ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার। বিভিন্ন খাবারকে বলা হয় ভিটামিন আধার। যার মধ্যে রয়েছে মিষ্টিআলু, লাল মরিচ, গাজর, লাউ, শাকসবজি ইত্যাদি। অ্যানিমিয়া বিদায় নেবে, যদি প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় খাবারগুলো রাখা যায়।

 

সূত্র: হেলথলাইন


এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন