রবিবার | নভেম্বর ১৭, ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শেষ পাতা

সড়ক দুর্ঘটনায় চার জেলায় সাতজনের মৃত্যু

বণিক বার্তা ডেস্ক

চার জেলায় গতকাল সড়ক দুর্ঘটনায় সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে প্রাইভেট কার খাদে পড়ে নিহত হয়েছেন এক পরিবারের চার সদস্য। বগুড়ার মোকামতলা ও রাজবাড়ীতে সংঘটিত পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন আরো দুজন। এছাড়া সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে বৃহস্পতিবার সংঘটিত দুর্ঘটনায় আহত একজনের মৃত্যু হয়েছে গতকাল। বণিক বার্তার প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

ময়মনসিংহ: জেলার গৌরীপুরে গতকাল বাসকে পাশ কাটাতে গিয়ে একটি প্রাইভেট কার খাদে পড়ে গেলে মা-বাবা ও দুই সন্তানের মৃত্যু ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন নিহত দম্পতির আরেক শিশুসন্তানসহ আরো চারজন। গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর নামক স্থানে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রাইভেট কারটির আরোহী হতাহতরা নেত্রকোনার দুর্গাপুর থেকে নরসিংদী যাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে। নিহতরা হলেন রফিকুজ্জামান (৪৬), তার স্ত্রী শাহিনা আক্তার (৪২), ছেলে নাদিম (২৬) ও মেয়ে রওনক (১৩)। তারা নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার চণ্ডীগড় গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় রফিকুজ্জামানের আরেক ছেলে নাহিদ (৩) গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম মিয়া জানান, রামগোপালপুর বাজারসংলগ্ন স্থানে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জগামী এমকে সুপার পরিবহনের একটি বাসকে পাশ কাটাতে গিয়ে প্রাইভেট কারটি রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে শাহিনা আক্তার ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে আরো তিনজনের মৃত্যু ঘটে।

বগুড়া: জেলার মোকামতলায় দুধ পরিবহনে ব্যবহূত ট্যাংকার ও যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ট্যাংকারের চালক সামসুল ইসলাম (৫০) নিহত হয়েছেন। তিনি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার চণ্ডীপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে। গতকাল ভোর সোয়া ৫টা নাগাদ বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের বিহারপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকতারুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুর্ঘটনায় দুগ্ধবাহী গাড়ির সামনের অংশ দুমড়েমুচড়ে ঘটনাস্থলেই চালকের মৃত্যু হয়। তবে এ ঘটনায় কোনো বাসযাত্রী আহত হয়নি।

রাজবাড়ী: জেলার কালুখালী উপজেলার গান্ধিমারা এলাকায় পিকনিকের বাস উল্টে খাদে পড়ে শামিম রেজা নামে এক স্কুল শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত শামিম রেজা মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার শহিদুল ইসলামের ছেলে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ২১ জন। আহতদের রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত শিক্ষার্থী হাসান হাবীব বলেন, আমরা একই এলাকার শিক্ষার্থী ও বন্ধুবান্ধব মিলে মোট ৫৫ জন গত বুধবার মেহেরপুর থেকে একটি বাস নিয়ে কুয়াকাটায় পিকনিকে যাই। পিকনিক থেকে ফেরার পথে গভীর রাত হলে বেশির ভাগ যাত্রীই ঘুমিয়ে পড়ে। চালক মাঝেমধ্যে ঝাঁকুনি দিয়ে ব্রেক করছিল। এক পর্যায়ে বাসটি খাদে পড়ে যায়।

কালুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম জানান, মেহেরপুর ফেরার পথে কালুখালী উপজেলার গান্ধিমারা এলাকায় গতকাল রাত ৩টা নাগাদ বাসটি উল্টে পাশের একটি খাদে পড়ে যায়। এ ঘটনায় শামিম রেজা ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ ঘটনায় ২১ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নিহতের মরদেহ ও আহতদের উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

সিরাজগঞ্জ: জেলার বেলকুচিতে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সংঘটিত এক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ইব্রাহিম হোসেন (২৮) নামে এক ব্যক্তি গতকাল চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তিনি উপজেলার শেরনগর গ্রামের মোস্তফা মুন্সীর ছেলে।

বেলকুচি থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ থেকে এনায়েতপুরগামী মির্জা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস এনায়েতপুর-সিরাজগঞ্জ সড়কের বেলকুচির কামারপাড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যালয়ের কাছে একটি যাত্রীবাহী অটোভ্যানকে চাপা দেয়। এ ঘটনায় ভ্যানচালকসহ একই পরিবারের সাতজন আহত হন। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পুলিশ তাদের উদ্ধার করে প্রথমে খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইব্রাহিম হোসেন ও তার শিশুসন্তান জান্নাত খাতুনকে নিয়ে যাওয়া হয়। এর মধ্যে ইব্রাহিম গতকাল সকালে মারা যান।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন