বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

খেলা

স্বপ্নকেও ছাড়িয়ে স্মিথ

এমন কিছু রূপকথার গল্পতেই বেশি দেখা যায়, মানুষের কল্পনার বাইরে কোনো কিছু ঘটতে থাকা। অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের দিকে চোখ রাখলে তেমনটাই মনে হওয়ার কথা। এ রূপকথার গল্পের রচয়িতা স্টিভ স্মিথ। এ অসি ক্রিকেটারের প্রতিভা ও সামর্থ্য নিয়ে খুব কম মানুষেরই সন্দেহ আছে। বর্তমান সময়ের সেরা ব্যাটসম্যানের সংক্ষিপ্ত তালিকায়ও সহজে জায়গা পেয়ে যান তিনি। কিন্তু এজবাস্টনে স্মিথ যা করে দেখালেন, তা নিজেই যেন ঠিক বিশ্বাস করতে পারছেন না। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরে টানা দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি। যে সেঞ্চুরি রেকর্ড বুকেও ব্যাপক অদল-বদল ঘটিয়ে দিয়েছে। স্মিথের এমন কীর্তি দেখে স্বয়ং কিংবদন্তি স্টিভ ওয়াহ বিস্ময় প্রকাশ করে বলেছেন, এমন কিছু তিনি আগে কখনো দেখেননি।

এক বছরের বেশি সময় আগে ‘স্যান্ডপেপারগেট’ কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে যান স্মিথ, তার সতীর্থ ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফট। শিরিশ কাগজ দিয়ে বল ঘষে ধরা পড়ে যান তারা। এরপর এ ক্রিকেটারদের জীবনটাই ওলট-পালট হয়ে যায়। এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় পড়ে ক্রিকেট ক্যারিয়ারই হুমকির মুখে পড়ে তাদের। এরপর বিশ্বকাপের আগে ওয়ানডেতে ফেরেন স্মিথ ও ওয়ার্নার। সেখানে আহামরি না হলেও ভালো পারফরম্যান্স ছিল স্মিথের। কিন্তু অ্যাশেজ দিয়ে টেস্টে ফিরে স্মিথ যেন ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গেছেন। ইংলিশ বোলারদের বলতে গেলে একাই নাকানি-চুবানি খাইয়েছেন এ স্মিথ। সামলেছেন ইংলিশ ক্রিকেটের সমর্থকদের দুয়োও। এতসব সামলে টানা দুই ইনিংসে দুই সেঞ্চুরি করে সব প্রশ্নের জবাবই যেন দিয়ে দিলেন তিনি। ১৪৪ ও ১৪২ রানের ইনিংস খেলে নিজেকে তুলেছেন অনন্য এক উচ্চতায়। পঞ্চম অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান হিসেবে স্মিথ অ্যাশেজে টানা দুই ইনিংসের দুটিতেই করলেন সেঞ্চুরি। এছাড়া চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে করলেন টানা দুই ইনিংসে একশ চল্লিশোর্ধ্ব রান।

দারুণ এসব কৃতিত্ব গড়ার পর স্মিথ বলেন, ‘আমি কখনই নিজের সামর্থ্যের প্রতি সন্দেহ পোষণ করিনি। কিন্তু এভাবে ফিরে আসা স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো ব্যাপার। এক ম্যাচে দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি, তাও অ্যাশেজের প্রথম টেস্টে; এমন কিছু আমি কোনো ফরম্যাটের ক্রিকেটে কখনই করে দেখাতে পারিনি। এটা অবিশ্বাস্য কিছু আমার জন্য। এটা অনেকটা বড়দিনের সকালের মতো। যেন প্রতিটি সকালে ফিরে এসে এমন কিছু করা।’

তার ব্যাটিং নিয়ে ইংলিশ ব্যাটিং কোচ গ্রাহাম গুচ বলেন, ‘নানাভাবে আপনাকে তার ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করতে হবে এবং আপনি একজন অসাধারণ ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং উপভোগ করছেন—এটা মানতে হবে।’ স্টিভ বলেন, ‘আমি তার মতো কাউকে দেখিনি। তার প্রস্তুতি অসাধারণ। সে অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি বল হিট করে। এটা অনেকটা এ রকম যে, যখন ব্যাট করতে নামে, তখন সে খেলাটির সঙ্গে একাত্ম হয়ে পড়ে। সে নিশ্চিতভাবেই জানে, প্রতিপক্ষ কী চেষ্টা করছে, কীভাবে তাকে আউটের চেষ্টা করছে। দেখে মনে হয়, তার কাছে সব প্রশ্নেরই জবাব আছে। সে অবিশ্বাস্য এক খেলোয়াড়। আমি মনে করি না, আমি তার মতো কাউকে দেখেছি।’

অনন্য ব্যাটিংয়ের পুরস্কারও পেলেন স্মিথ, তিনিই এজবাস্টনের ম্যাচসেরা। এএফপি, ক্রিকইনফো

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন