বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬

খেলা

ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর মালিকানা চুক্তির পর দলবদল : বিপিএলে কেউ কারো নয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) নিয়ে জমে উঠেছিল ঘরোয়া ক্রিকেট। ঢাকা ডায়নামাইটস থেকে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে দলে ভিড়িয়ে বড় চমকও দিয়েছিল রংপুর রাইডার্স। বসে থাকেনি অন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও। টি২০ ফরম্যাটে চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসনকে আনুষ্ঠানিকভাবে দলভুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে খুলনা টাইটানস। একইভাবে জে পি ডুমিনির সঙ্গে চুক্তির কথা জানায় রাজশাহী কিংস। মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবালদের নতুন চুক্তি নিয়েও খবর প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু এসব চুক্তির কোনোই মূল্য নেই, গতকাল সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। আগে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর চুক্তি নবায়ন হবে, তার পরই কেবল শুরু হবে সপ্তম বিপিএলের দলবদল কার্যক্রম।

এবারের আসরকে ঘিরে প্রায় প্রতিদিনই প্লেয়ারদের দলবদল নিয়ে খবর আসতে থাকে। এ নিয়ে অবশ্য গত কয়েকদিনে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখায়নি বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে গতকাল বিকালে এক জরুরি সভায় বসেন বিপিএল নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন কর্তাব্যক্তিরা। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট পরিচালক মাহবুব আনাম বলেন, বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সঙ্গে এখনো কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির চুক্তি হয়নি। দলগুলো যা করেছে তার সঙ্গে বিসিবি বা বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের কোনো সম্পর্ক নেই। দলগুলোর সঙ্গে যেখানে চুক্তিই নেই, নিয়মকানুনও সুনির্দিষ্ট না, তাই যা কিছু হোক না কেন, তার কোনো গ্রহণযোগ্য ভিত্তি নেই।

ঢাকা ডায়নামাইটসে তিন বছর খেলার পর দল বদলে রংপুর রাইডার্সে যোগ দেয়ার কথা নিজেই জানান সাকিব। এ প্রসঙ্গে মাহবুব আনাম বলেন, ‘যে চুক্তির কোনো বৈধতা নেই, তা নিয়ে আলোচনা করার যৌক্তিকতাও নেই। শুধু সাকিবই নয়, আরো অনেকের কথাও আমরা শুনেছি। সবার ক্ষেত্রেই বাস্তবতা একই।’

গতকাল এ সংবাদ সম্মেলনের সময় উপস্থিত ছিলেন বিপিএলের অন্যতম কর্মকর্তা জালাল ইউনুস, লোকমান হোসেন ভুঁইয়া, আকরাম খান, ইসমাইল হায়দার মল্লিক, বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন প্রমুখ। বিপিএলে প্রথম ছয় আসরে প্রথম চক্র শেষ হয়েছে, কিন্তু দ্বিতীয় চক্রের জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে কোনো চুক্তি হয়নি বিষয়টা ব্যাখ্যা করে বলেন মাহবুব আনাম। তার কথায়, ছয় মৌসুম চুক্তি শেষে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে আমাদের নতুন কোনো চুক্তি হয়নি। আর তাই কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি কার সঙ্গে চুক্তি করল, সেটাকে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি না।

২০১২ সালে বিপিএলের প্রথম আসরে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর সঙ্গে ছয় মৌসুমের জন্য চুক্তি করেছিল বিসিবি। এবার নতুন করে চার মৌসুমের জন্য চুক্তি হবে। এরপরই কেবল সপ্তম আসরের কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। এ সম্পর্কে মাহবুব আনাম তার ব্যাখ্যায় বলেন, ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে ছয় মৌসুমের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে। এবার প্রতিটি দলকে বিসিবির সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করতে হবে। এরপরই দলগুলো খেলোয়াড়দের সঙ্গে চুক্তি করতে পারবে। আর কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি যদি দল গুছিয়ে রাখতে চায় বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল সেটাকে হিসাবের মধ্যে নেবে না। চুক্তি হওয়ার পরই কেবল খেলোয়াড়দের বিষয়টি আমলে নেয়া হবে।’

এবারের বিপিএল আসর আট দল নিয়ে হওয়ার কথা আগেই জানানো হয়েছে। গত আসরে অংশ নিয়েছিল সাতটি দল। তবে এবারের আসর থেকে আগেই নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। যার অর্থ এখন পর্যন্ত অস্তিত্ব আছে ছয়টি দলের। আট দলের আসর হওয়া মানে আরো দুটি নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির অন্তর্ভুক্তি। নতুন দুটি দল খুঁজতে এরই মধ্য দরপত্র আহ্বান করেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।

ছয় মৌসুমে প্রথম চক্র শেষ হওয়ার পর দ্বিতীয় চক্রে নতুনভাবে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে। এবারের মেয়াদ চার মৌসুমের জন্য। আর তাই প্লেয়ার থেকে শুরু করে সবকিছুই হবে নতুন চুক্তি অনুসারে। যার অর্থ প্লেয়ার ধরে রাখার কোনো নিয়ম থাকছে না ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর। এবারের বিপিএল শুরু হওয়ার কথা ৬ ডিসেম্বর।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন