বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬

খেলা

সুপার কাপ শিরোপা ডর্টমুন্ডের

করেছেন এক গোল এবং ভূমিকা রেখেছেন আরো একটিতে। জার্মান সুপার কাপে ইংলিশ তরুণ জাদোন সানচোর দারুণ নৈপুণ্যে বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। ম্যাচে বায়ার্নের বিপক্ষে ডর্টমুন্ডের জয় ২-০ গোলের ব্যবধানে। যার ফলে টানা চতুর্থবারের মতো সুপার কাপ শিরোপা জেতা থেকে বঞ্চিত থাকল বায়ার্ন। অন্যদিকে এটি ডর্টমুন্ডের ষষ্ঠ সুপার কাপ শিরোপা। এদিকে আগের দিন ফ্রান্স সুপার কাপ শিরোপা জিতেছে পিএসজি।

ডর্টমুন্ডের মাঠ সিগনাল ইদুনা পার্কে এদিন দাপট ছিল মূলত লিগ চ্যাম্পিয়ন বায়ার্নের। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে সানচোর জাদুকরি পারফরম্যান্সের কাছেই হার মানতে হয়েছে ‘বাভারিয়ান’ জায়ান্টদের। এদিন নিজেদের রক্ষণ সামলে আক্রমণ শানাতেও দারুণ দক্ষতা দেখিয়েছে ডর্টমুন্ড। ম্যাচ শেষে দলের কোচ লুসিয়ান ফেব্রেও স্বীকারও করেছেন নিজেদের প্রতি আক্রমণনির্ভর কৌশলের কথা। তিনি বলেন, ‘আমরা আক্ষরিক অর্থেই ম্যাচটি জিততে চেয়েছি। এটা বেশ কঠিন ছিল। বায়ার্ন খুবই শক্তিশালী দল। তারা বেশির ভাগ সময় বলও দখলে রেখেছে। কিন্তু আমরা ভালোভাবে রক্ষণ সামলেছি এবং বেশ গোছানো ছিলাম। আমরা জানতাম, আমাদের প্রতি আক্রমণ নির্ভর ফুটবল খেলতে হবে এবং আমরা তা বেশ ভালো করতে পেরেছি।’&dquote;&dquote;

এদিন প্রথমার্ধে অবশ্য গোলমুখ খুলতে পারেনি ডর্টমুন্ড। সেজন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে ম্যাচের ৪৮ মিনিট পর্যন্ত। পাকো আলকাসেরের গোলে এগিয়ে যায় দলটি। তার এ গোলের উৎস ছিলেন সানচো। এ ইংলিশ তারকার পাস থেকেই গোল করেন স্প্যানিশ তারকা আলকাসের। অবশ্য এতটুকুতেই সন্তুষ্ট থাকেননি সানচো। ৬৯ মিনিটে দারুণ এক গোলে অনেকটা একক প্রচেষ্টায় দলকে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন সানচো। জোড়া গোলে এগিয়ে যাওয়া ডর্টমুন্ডকে চেষ্টা করেও পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি বায়ার্ন। শেষ পর্যন্ত ৬৬ শতাংশ বল দখলে রেখে এবং সাতটি অন টার্গেট শট নিয়েও শিরোপাহীন থাকতে হলো বায়ার্নকে। তবে শুরু থেকেই সুযোগ হাতছাড়া না করলে জিততেও পারত বায়ার্ন। ম্যাচ শেষে তাই হতাশার বাণীই শুনিয়েছেন বায়ার্ন অধিনায়ক ম্যানুয়েল নুয়্যার। তিনি বলেন, ‘আমরা অনেক ভুল করার মধ্য দিয়ে ম্যাচটি ডর্টমুন্ডকে উপহার দিয়েছি।’ এএফপি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন