শেয়ারবাজার

প্রথমার্ধে আইসিবি ইসলামিক ব্যাংকের লোকসান কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ১২, ২০১৯

চলতি ২০১৯ হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান আগের হিসাব বছরের একই সময়ের তুলনায় ২ পয়সা কমেছে। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ২৯ পয়সা। ২০১৮ হিসাব বছরের প্রথমার্ধে লোকসান ছিল ৩১ পয়সা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) আইসিবি ইসলামিক ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ১৫ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ১৮ পয়সা। এ হিসাবে দ্বিতীয় প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি লোকসান কমেছে ৩ পয়সা।

৩০ জুন ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি নিট দায় দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৭৭ পয়সা। আগের হিসাব বছরের প্রথমার্ধ শেষে দায় ছিল ১৬ টাকা ৫ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৭৩ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর শেয়ারপ্রতি নিট দায় দাঁড়ায় ১৬ টাকা ৪৭ পয়সা। আগের হিসাব বছরে শেয়ারপ্রতি লোকসান ও নিট দায় ছিল যথাক্রমে ৬১ পয়সা ও ১৫ টাকা ৭২ পয়সা।

২০১৭ হিসাব বছরেও শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক। শেয়ারপ্রতি ৪১ পয়সা লোকসানের কারণে ২০১৬ হিসাব বছরেও লভ্যাংশ দেয়নি তারা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক শেয়ারের সর্বশেষ দর ছিল ৩ টাকা ৬০ পয়সা, যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ৩০ পয়সা বা ৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ কম। সমাপনী দর ছিল ৩ টাকা ৭০ পয়সা। দিনভর দর ৩ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ৩ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। এদিন ১৮২ বারে ব্যাংকটির মোট ৪ লাখ ৮ হাজার ২৮৬টি শেয়ার লেনদেন হয়। গত এক বছরে শেয়ারটির সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ দর ছিল যথাক্রমে ৩ টাকা ৬০ পয়সা ও ৫ টাকা ৬০ পয়সা।

১৯৯০ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকটির বর্তমান অনুমোদিত মূলধন দেড় হাজার কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ৬৬৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা। পুঞ্জীভূত লোকসান ১ হাজার ৭০৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকা।