প্রথম পাতা

আয়ু বাড়ায় ব্যায়াম বা দৈহিক শ্রম

বণিক বার্তা ডেস্ক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ১২, ২০১৯

যারা বেশিদিন বাঁচতে চান, তারা এখন থেকেই নিয়মিত ব্যায়াম করা শুরু করে দিতে পারেন যেকোনো সময়েই। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, ব্যায়াম তথা কায়িক শ্রম আয়ু বাড়ানোয় কার্যকর। এমনকি কেউ যদি আগে থেকে শ্রমবিমুখ অলস জীবনযাপন করে থাকেনও, নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে নিজের মৃত্যুঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারেন তিনি। কায়িক শ্রমের মাত্রা ও মৃত্যুঝুঁকির মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে গবেষণাটিতে পাওয়া ফলাফল সম্প্রতি ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালে (বিএমজে) প্রকাশ হয়েছে। খবর মেডিকেল নিউজ টুডে।

ব্যায়াম যে দেহের জন্য উপকারী, সে বিষয়টি সন্দেহাতীত। হূদরোগ, ক্যান্সার বা ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমানো থেকে শুরু করে প্রত্যাশিত আয়ু বাড়ানোসহ নানা ধরনের ইতিবাচক প্রভাব ফেলে ব্যায়াম। বিভিন্ন সময়ে পরিচালিত অসংখ্য গবেষণায় তা প্রমাণও হয়েছে।

অনেকের মধ্যেই প্রশ্ন থাকতে পারে, দীর্ঘ সময় শ্রমবিমুখ জীবনযাপনের পর হঠাৎ করে ব্যায়াম শুরু করলে তাতে আদৌ কোনো ফললাভের সম্ভাবনা রয়েছে কিনা। তাদের এ সংশয় দূর করে নতুন গবেষণাটিতে পাওয়া ফলাফল বলছে, যেকোনো বয়সে ব্যায়াম শুরু করলেও তা হূদরোগের মতো নির্দিষ্ট কিছু কারণে মৃত্যুর ঝুঁকি কমিয়ে আনতে সক্ষম।

যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজের ডক্টোরাল রিসার্চার আলেক্সান্ডার মকের নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছে গবেষণাটি। মূলত সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ব্যায়ামের মাত্রায় পরিবর্তনের (এমনকি শূন্য থেকেও) ফলে তা আয়ু বাড়ানোর ক্ষেত্রে কী ধরনের ভূমিকা রাখতে পারে, সেটি নির্ধারণের জন্যই গবেষণাটি চালানো হয়। প্রায় ১৫ হাজার ব্যক্তির ওপর পরিচালিত জরিপের ভিত্তিতে গবেষণাটি করা হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, নিয়মিত ব্যায়াম বা দৈহিকভাবে কর্মঠ জীবনযাপন করলে তা মৃত্যুঝুঁকি কমানোয় কার্যকর ভূমিকা রাখে। যেকোনো বয়সেই এর সুফল আদায় করা সম্ভব। এমনকি কেউ যদি অতীতে শ্রমবিমুখ জীবনযাপন করে আসেন, নিয়মিত ব্যায়াম বা কায়িক শ্রমের মধ্য দিয়ে নিজের মৃত্যুঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারবেন তারাও।