টকিজ

‘বিবাহ অভিযান’-এ সফল হবেন নুসরাত ফারিয়া?

ফিচার প্রতিবেদক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ১২, ২০১৯

এই একটি ছবি, যেটি নিয়ে অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়ার পরিকল্পনা ছিল বছরজুড়ে। এই একটি ছবি, যার একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে দীর্ঘ সময় কঠোর পরিশ্রম করেছেন তিনি। কথা আর না বাড়িয়ে ছবিটির নাম বলা যাক বিবাহ অভিযান। কয়েক মাস ধরে যতবারই ছবিটি নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছে, ততবারই অন্য এক হাসির ঝিলিক মিলেছে নুসরাতের মুখে। কথোপকথনে নুসরাত সময়ক্ষেপণ না করে এও জানিয়ে দিয়েছেন যে কীভাবে টানা শুটিং করেছেন, কীভাবে পার করেছেন শুটিং সময়কার দারুণ সব মুহূর্তগুলো কিংবা সহ-অভিনেতা অঙ্কুশের সঙ্গেও কেমন খুনসুটি করেছেন সেসব কথা। তবে একটি ব্যাপারে নুসরাত খুব সতর্ক থেকেছেন আর যতবারই এ নিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে ততবারই বলেছেন, ‘জানতে হলে দেখতে হবে।’ মানে তার অভিনীত ভারতীয় ছবি বিবাহ অভিযান নিয়ে বাড়তি কোনো তথ্য প্রকাশ করা থেকেই সুকৌশলে নিজেকে বিরত রেখেছিলেন।

এবার অবশ্য জানা গেল, নুসরাত অভিনীত বিবাহ অভিযান ছবিটির খানিকটা। বিশেষ করে ছবিটিতে নুসরাতের চরিত্র সম্পর্কে। আর তা প্রকাশ করেছেন নুসরাত ফারিয়া নিজেই। গত শুক্রবার নুসরাত তার টুইটার পেজে এ ছবির নতুন একটি পোস্টার শেয়ার করেন। সেই সঙ্গে তিনি লিখে দেন ‘যদিদং হূদয়ং বলে ওঠে কেউ গোবেচারা বর পেল বিপ্লবী বউ।’ পোস্টারের সঙ্গে জুতসই এমন ক্যাপশনই খোলাসা করে দিল এ ছবিতে অঙ্কুশ ও নুসরাত ফারিয়ার মধ্যকার সম্পর্ক স্বামী-স্ত্রীর। পোস্টারে দেখা গেছে, নুসরাত-অঙ্কুশ দুজনই একেবারে সেজেগুজে পাগড়ি-ফুলের মালা পরে দাঁড়িয়ে আছেন। তবে ছবিটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, চিরাচরিতভাবে স্ত্রী তুলনামূলক লাজুক থাকলেও নুসরাত মোটেও তেমন ছিলেন না, বরং অঙ্কুশই মাথা নিচু করে দাঁড়িয়ে আছেন।

ছবিটি এরই মধ্যে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে এর ট্রেইলার দিয়ে। সম্প্রতি এর ট্রেইলারও প্রকাশ পেয়েছে। যেখানে দেখা গেছে, দুই বন্ধু অঙ্কুশ ও রুদ্রনীল ঘোষ তাদের বিবাহিত জীবন নিয়ে হতাশায় ভোগে। তারা পরিকল্পনা করে তাদের স্ত্রীদের সঙ্গে আলাদা হওয়ার। দুই বন্ধুর দুই স্ত্রীর চরিত্রে যথাক্রমে অভিনয় করেছেন নুসরাত ফারিয়া ও সোহিনী সরকার। এরপর গল্পে যোগ হয় আরো রসাত্মক সব কাহিনী। এ ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য্য ও প্রিয়াংকা সরকার। ২১ জুন ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

বিবাহ অভিযান ছবিতে শুরুতে অভিনয়ের কথা ছিল কলকাতার অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর। পরবর্তী সময়ে সেখানে ব্যাটে-বলে না মেলায় ছবিটিতে মিমির অভিনয় করা হয়নি। মূলত তার পরিবর্তে নুসরাত ফারিয়া চুক্তিবদ্ধ হন। ফলে স্বাভাবিকভাবেই দর্শক, বিশেষ করে ভারতীয় দর্শক নুসরাতের কাছ থেকে বেশি কিছু প্রত্যাশা করবেন এবং চুলচেরা বিশ্লেষণ করবেন, এমনটাই স্বাভাবিক। এ নিয়ে অবশ্য নুসরাত ফারিয়া জানিয়েছেন, সেরাটুকু ঢেলে দিয়ে নিজেকে অন্য রকম একটি চরিত্রে ফুটিয়ে তুলতে যা যা করণীয়, তার সবই তিনি করার চেষ্টা করেছেন। তাই আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে তিনি এও জানিয়ে দেন, ছবিটি এমনভাবে তৈরির চেষ্টা করা হয়েছে, যা দর্শককে প্রেক্ষাগৃহে টেনে আনতে বাধ্য করবে এবং তার অভিনয়ও মুগ্ধ করবে সবাইকে।

উল্লেখ্য, কয়েক বছর ধরে প্রেক্ষাগৃহে নুসরাত ফারিয়া অভিনীত ছবি মুক্তি পেলেও এবার ঈদে তেমনটি ঘটেনি। ফলে খুব স্বাভাবিকভাবেই নুসরাত চাইছেন, আগামী ২১ জুন মুক্তি পেতে যাওয়া বিবাহ অভিযান জয়ধ্বনি এ বাংলায়ও পৌঁছে যাক।