টকিজ

টাকার বিনিময়ে স্মারক ডাকটিকিট!

রুবেল পারভেজ | ২১:৫১:০০ মিনিট, মে ১৪, ২০১৯

স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় যে কয়েকজন বরেণ্য সাহিত্যিকের নাম অগ্রগণ্য, তাদের মধ্যে অন্যতম ব্যক্তিত্ব শওকত ওসমান। দেশের ক্রান্তিকালে শওকত ওসমানের বলিষ্ঠ লেখনী সবাইকে দিয়েছে এগিয়ে যাওয়ার মন্ত্রণা। শওকত ওসমানই একমাত্র সাহিত্যিক, যিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার প্রতিবাদে দেশ ত্যাগ করেছিলেন। বাংলা ভাষার অন্যতম প্রধান লেখক ও প্রবল রাজনৈতিক প্রজ্ঞার অধিকারী এ শিল্পীকে নিয়েই দুঃখজনক এক ঘটনার জন্ম দিল বাংলাদেশ ডাক বিভাগ।

কিংবদন্তি এ কথাশিল্পীকে নিয়ে সরকারিভাবে নানা পদক্ষেপ নেয়ার কথা থাকলেও এত দিনে তার কিছুই হয়নি। উল্টো তাকে নিয়ে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করতে ‘কথাশিল্পী শওকত ওসমান স্মৃতি পরিষদ’কে দেড় লাখ টাকা দিতে হয়েছে ডাক বিভাগ বরাবর। চলতি বছরের ২ জানুয়ারি শিল্পীর ১০২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যমানের এ স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে ডাক বিভাগ।

এখানেই শেষ নয়, এর আগে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশের জন্য শওকত ওসমান স্মৃতি পরিষদের দেয়া স্মারক ডাকটিকিটবিষয়ক প্রস্তাব পাস নিয়েও ডাক বিভাগ দীর্ঘ প্রায় আট মাস গড়িমসি করেছে বলে অভিযোগ শিল্পীর পরিবারের। তারা দাবি করেন, এমন পরিস্থিতিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ আকবর হুসাইনের হস্তক্ষেপে স্মারক ডাকটিকিটটি প্রকাশে গতি পায়। এ বিষয়ে ডাক বিভাগের তৎকালীন মহাপরিচালক সুশান্ত কুমার মণ্ডলের সঙ্গে বণিক বার্তার পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এবং বলেন, ‘আমি অবসরে চলে যাওয়ায় এ নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না।’ তবে ডাক বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখার ভাষ্য, যথাযথ নিয়ম মেনেই তারা যাবতীয় কার্যক্রম সম্পাদন করেছেন।

শওকত ওসমানের মতো ব্যক্তিত্বের স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করা নিয়ে ডাক বিভাগের অর্থ গ্রহণকে অবিবেচনাপ্রসূত ও অনৈতিক বলে মন্তব্য করেছেন চিত্রশিল্পী হাশেম খান এবং সাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক আহমদ রফিকের মতো ব্যক্তিত্বরা।

বিষয়টি নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে হাশেম খান বলেন, ‘শওকত ওসমানের মতো ব্যক্তিত্বের স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশের ক্ষেত্রে অর্থ গ্রহণের বিষয়টি মোটেও কাম্য নয়। বরং স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ডাক বিভাগকে নিজের দায়িত্বেই এটি করার কথা এবং এ থেকে প্রাপ্য রয়্যালটি তার পরিবারকে দেয়া উচিত ছিল।’ এর কারণ জানাতে গিয়ে জনাব হাশেম খানের ব্যাখ্যা, ‘শওকত ওসমানের ছবি ব্যবহার করে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করলে ডাক বিভাগেরই সুনাম বাড়ে এবং তারা ধন্য হয়। এক্ষেত্রে ডাক বিভাগ কর্তৃক অর্থ গ্রহণের বিষয়টির জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এটি করা একদমই ঠিক হয়নি।’

বাংলাদেশ পোস্ট অফিস আইন (২০১৮-এর খসড়া) অনুযায়ী, বিশেষ সময় বা বিশেষ উদ্দেশ্যে বিশেষ বিষয় বা বিশেষ ঘটনাকে প্রতিফলিত করার উদ্দেশ্যে বিশেষ দিনে যে ডাকটিকিট প্রকাশ করে, তাকে বলা হয় স্মারক ডাকটিকিট। দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে স্ব স্ব ক্ষেত্রে যেসব ব্যক্তিত্বের অবদান রয়েছে এবং পুরো জাতির কাছে স্মরণীয় হয়ে আছেন, তাদের সম্মান জানিয়েও এ আইনের অধীনে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে সরকার।

বণিক বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।

সম্পাদক ও প্রকাশক: দেওয়ান হানিফ মাহমুদ

বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বিডিবিএল ভবন (লেভেল ১৭), ১২ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫

পিএবিএক্স: ৮১৮৯৬২২-২৩, ই-মেইল: [email protected] | বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন বিভাগ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৬১৯