শিল্প বাণিজ্য

লংকাবাংলার আয়োজন : চট্টগ্রামে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম ব্যুরো | ০৩:৩২:০০ মিনিট, এপ্রিল ১৪, ২০১৯

‘স্বপ্নের বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য নিয়ে চট্টগ্রামে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে আর্থিক খাতের অন্যতম শীর্ষ প্রতিষ্ঠান লংকাবাংলা। গতকাল সকালে নগরীর কাজির দেউড়ির ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে সপ্তমবারের মতো এ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

এ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রামের ৫০টি স্বনামধন্য স্কুলের ৫০৮ জন শিক্ষার্থী দুই ভাগে অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়।

চট্টগ্রামে আয়োজিত এ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অতিথি ছিলেন লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহারিয়ার ও লংকাবাংলা ক্যাপিটাল মার্কেট অপারেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী। প্রতিযোগিতায় প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ফাইন আর্টসের সহকারী অধ্যাপক মো. জসিম উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহারিয়ার বলেন, লংকাবাংলা সামাজিক দায়িত্বের অংশ হিসেবে নারী, শিশু, মেধাবী-গরিব শিক্ষার্থী ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। কোমলমতি শিশুদের মেধা বিকাশে এ ধরনের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এজন্য আমাদের এ প্রতিযোগিতার পরিধি বেড়েছে। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের চিত্রকর্ম বার্ষিক ক্যালেন্ডারের মাধ্যমে প্রকাশ করবে লংকাবাংলা।

লংকাবাংলা ক্যাপিটাল মার্কেট অপারেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, শিশুদের মানসিক বিকাশে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা লংকাবাংলার পক্ষ থেকে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছি। এ প্রতিযোগিতায় শিশুরা তাদের ছবির মাধ্যমে আমাদের দেশ সম্পর্কে নিজেদের মনোভাব ফুটিয়ে তুলেছে।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের দুটি গ্রুপে ভাগ করা হয়। গ্রুপ ‘এ’ থেকে ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুলের রুমাইসা নাফিয়া, ফ্রোবেল একাডেমির মো. মুহতাসিম মুশারাফ সাফি ও ফুলকির তাসনিয়া আনিস বুশরা যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছেন। গ্রুপ ‘বি’তে বাংলাদেশ এলিমেন্টারি স্কুলের আনিকা তাবাসসুম, হালিশহর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের নুশরাত জাহান লুবনা ও ড. খাস্তগির সরকারি হাই স্কুলের স্নিগ্ধা দে শৈলী যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে।