আন্তর্জাতিক খবর

৩০ বছরের শাসককে সরিয়ে একদিন ক্ষমতায় থাকলেন তিনি

বণিক বার্তা অনলাইন | ১১:৫৪:০০ মিনিট, এপ্রিল ১৩, ২০১৯

সুদানের ৩০ বছরের শাসক ওমর আল-বশিরকে সরিয়ে ক্ষমতা দখলের মাত্র একদিন পর পদত্যাগ করলেন সামরিক কাউন্সিলের প্রধান হওয়া আওয়াদ ইবনে আউফ। শুক্রবার রাতে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে এক ঘোষণার মাধ্যমে পদত্যাগের বিষয়টি জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা আওয়াদ। তবে তিনি সরে গেলেও তার উত্তরসূরি করে যাচ্ছেন সামরিক বাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আবদেল রাহমান বুরহানকে। বিবিসির এক অনলাইন প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে তিন দশক ধরে দেশ শাসন করা প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে উৎখাত এবং গ্রেফতার করে ছয় ঘণ্টার কারফিউ জারি করে সুদানের সামরিক পরিষদ। তবে সরকারের বিরুদ্ধে চলা কয়েক মাসের বিক্ষোভ সামরিক এই হস্তক্ষেপেও থেমে ছিল না। বিক্ষোভকারীরা নতুন করে সেনাবাহিনীর এই সামরিক পরিষদের বিরুদ্ধে রাজধানী খার্তুমের রাস্তায় বিক্ষোভ করতে থাকে। সামরিক কাউন্সিলের বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভের ফলে পদত্যাগে বাধ্য হন আওয়াদ ইবনে আউফ।

বশিরকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়া সেনা কর্মকর্তারা বলছেন, বিক্ষোভকারী জনগণ রাস্তা থেকে সরে যেতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে পদত্যাগ করলেন আওয়াদ। দেশটির সেনাবাহিনী বলছে, পরবর্তী নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত দুই বছর ক্ষমতায় থাকবে এই সামরিক কাউন্সিলর।

গত ডিসেম্বর থেকেই প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ করে আসছে আন্দোলনকারীরা। অব্যহত এই বিক্ষোভের মধ্যে বৃহস্পতিবার ৭৫ বছর বয়সী বশিরকে গ্রেফতার করা হয়। তবে তার গ্রেফতারের খবরে সড়কজুড়ে উল্লাস শুরু হলেও তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। সামরিক পরিষদের ক্ষমতা গ্রহণের ঘোষণার পরপরই এই আনন্দ থেমে যেতে থাকে। আন্দোলনকারীরা পরে সামরিক বাহিনীর সদরদপ্তরের বাইরে অবস্থানের কর্মসূচি দেয়।

কয়েক মাস ধরে সরকারের বিরুদ্ধে লাগাতার বিক্ষোভ করা লোকজন বলেন, প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের এবং সামরিক পরিষদের মধ্যে তারা কোনো পার্থক্য দেখছে না। তারা সেনাবাহিনীর এই ক্ষমতা দখল মেনে নিবেন না বলে জানান। এই অবস্থায় সেনাবাহিনী এবং বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এছাড়া দুই পক্ষের এ মুখোমুখি অবস্থানের ফলে নিরাপত্তা বাহিনীর বিভিন্ন অংশ এবং আধাসামরিক বাহিনী একে অপরের বিরুদ্ধে অস্ত্র তুলে নিতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই অবস্থায় জাতিসংঘ ও আফ্রিকান ইউনিয়ন সুদানের সব পক্ষকেই শান্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

ওমর আল বশির নিজেও ১৯৮৯ সালে এক ক্যুর মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেন। আফ্রিকার দেশগুলোর মধ্যে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সময় ধরে শাসন করা প্রেসিডেন্টদের মধ্যে তিনি অন্যতম। গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি)।