শেষ পাতা

সিলেটে শিক্ষার্থীকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি সিলেট | ০২:৪৩:০০ মিনিট, মার্চ ২৪, ২০১৯

সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার শেরপুরে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে ওয়াসিম আফনান নামে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) এক শিক্ষার্থীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শেরপুরে এ ঘটনা ঘটে বলে নিহত শিক্ষার্থীর সহপাঠীরা জানিয়েছেন। তাদের অভিযোগ, বাসচালকের দুই সহযোগী ওয়াসিমকে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে রাস্তায় ফেলে হত্যা করে।

ওই শিক্ষার্থী মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল মুসা বলেন, ওয়াসিম আফনান নামে এক ছাত্রকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে, তা এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি।

নিহত ওয়াসিম সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। তিনি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের রুদ্র গ্রামের মো. আবু জাহেদ মাহবুব ও ডা. মীনা পারভিনের ছেলে।

সিকৃবির রেজিস্ট্রার বদরুল ইসলাম সোয়েব জানান, ওয়াসিমসহ আরেকজন ছাত্র এ বাসে করে বাড়ি থেকে সিলেটে আসছিল। বাগিবতণ্ডার একপর্যায়ে দুজনকেই বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বাসচালকের দুই সহকারী। এর মধ্যে ওয়াসিমের ওপর দিয়ে আরেকটি গাড়ি চলে যাওয়ায় ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।

তিনি বলেন, ওয়াসিমের মৃত্যুর খবরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা হাসপাতালে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করছে। পরিস্থিতি একটু শান্ত হওয়ার পর এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপের উদ্যোগ নেয়া হবে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ওয়াসিম হবিগঞ্জের আউশকান্দি থেকে সিলেটে আসার উদ্দেশে ময়মনসিংহ সড়কের উদার পরিবহন নামে একটি বাসে ওঠেন। সেখানে বাসের হেলপার ও চালকের সঙ্গে তার বাগিবতণ্ডা হয়। বাগিবতণ্ডার একপর্যায়ে বাসের হেলপার তাকে চলতি বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়।

এদিকে শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় গতকাল রাতে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে সিকৃবির শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। পরে সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকায় বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা।

অভিযোগ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেটের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, এ রকম একটি অভিযোগ আমিও শুনেছি। কিন্তু এখনো অভিযুক্ত বাসের চালক ও তার সহযোগীদের পাইনি। তাদের সঙ্গে আলাপ করার পর বিস্তারিত জানাতে পারব।